Home /News /south-bengal /
Crime: দেড় কেজি সোনা, হীরে! দিনের বেলায় কোটি টাকার জিনিস নিয়ে চম্পট, হরিহরপাড়ায় আতঙ্ক

Crime: দেড় কেজি সোনা, হীরে! দিনের বেলায় কোটি টাকার জিনিস নিয়ে চম্পট, হরিহরপাড়ায় আতঙ্ক

নিজস্ব চিত্র

নিজস্ব চিত্র

Crime: সেই মতো বুধবার চারজন সোনা নিয়ে আসলে, তাদের শাহাজাদপুর মাঠে রাস্তায় ডেকে নিয়ে মাথায় আগ্নেয়াস্ত্র ঠেকিয়ে সোনা ও হীরে নিয়ে পালায় দুষ্কৃতীরা।

  • Share this:

#হরিহরপাড়া: প্রকাশ্যে আগ্নেয়াস্ত্র ঠেকিয়ে লুঠ সোনা ও হীরে, প্রশ্ন আইন শৃঙ্খলা নিয়ে। প্রকাশ্যে দিনের বেলায় আগ্নেয়াস্ত্র ঠেকিয়ে প্রায় দেড় কিলো সোনা ও হিরে নিয়ে চম্পট দিল দুষ্কৃতীরা। চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার হরিহরপাড়া থানার শাহাজাদপুর মাঠ সংলগ্ন এলাকায়। জানা গিয়েছে, ফোনের মাধ্যমে কলকাতায় সোনা ও হিরের অর্ডার পায় সোনা ব্যাবসায়ীরা।

সেই মতো বুধবার চার জন সোনা নিয়ে আসলে, তাদের শাহাজাদপুর মাঠে রাস্তায় ডেকে নিয়ে মাথায় আগ্নেয়াস্ত্র ঠেকিয়ে সোনা ও হীরে নিয়ে পালায় দুষ্কৃতীরা। হরিহরপাড়া থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করে ব্যবসায়ীরা। দুষ্কৃতীদের খোঁজে তল্লাশি চালাচ্ছে হরিহরপাড়া থানার পুলিশ।

আরও পড়ুন: কতদূর এগোল তদন্ত? রামপুরহাট যাওয়ার আগে নবান্নে উচ্চ পর্যায়ের বৈঠকে মমতা

ফোনের মাধ্যমে অর্ডার প্রায় কিলো সোনা ও হিরের। গত ১০ দিন ধরে ফোনের মাধ্যমেই মাল দিয়ে যাওয়ার জন্য বারে বারে অনুরাধ করা হচ্ছিল সোনা ব্যবসায়ীদের। বুধবার গাড়ি করে চালক-সহ চার জনেই হরিহরপাড়া শাহাজাদপুরে যাওয়ার পথেই গাড়ি আটকে দেয় তিনজন দুষ্কৃতী। চার চাকা গাড়ির সামনে মোটরবাইক দাঁড় করিয়ে তিন দুষ্কৃতী আগ্নেয়াস্ত্র ঠেকিয়ে সঙ্গে থাকা সোনার গহনা ও হীরে নিয়ে চম্পট দেয়। প্রায় কোটি টাকার জিনিস মূহুর্তের মধ্যেই লুঠ হয়ে যাওয়ায় দিশেহারা হয়ে পড়েন তিন পাইকারী সোনা ব্যাবসায়ী। সঙ্গে সঙ্গে স্থানীয় মানুষদের সহযোগিতায় হরিহরপাড়া থানার পুলিসকে খবর দেওয়া হয়। পুলিশ পুরো ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। তবে, প্রশ্ন উঠেছে দিনের বেলায় এই ভাবে সোনা ছিনতাই-এর ঘটনায় পুলিশের ভুমিকা নিয়ে। তবে, পুলিশের প্রথামিক ধারণা, এই ব্যাবসায়ীদের সঙ্গে পরিচয় কেউ জড়িত রয়েছে। সেই লিঙ্কের খোঁজে তল্লাশি চালাচ্ছে হরিহরপাড়া থানার পুলিশ।

আরও পড়ুন: রামপুরহাটে কী ঘটেছে, বিশদে জানাতে অমিত শাহের সময় চাইল তৃণমূল! উত্তপ্ত লোকলভা

স্বর্ন ব্যাবসায়ী গোপাল রানা বলেন, ঘটনার তদন্ত করে শীঘ্রই দুষ্কৃতীদের গ্রেফতার করা হোক। পুলিশের তৎপরতায় সোনা ও হীরে ফেরত না পেলে অনেক দেনায় জড়িয়ে যাব। পুলিশি উদ্যোগে সোনা ও হীরেগুলো ফিরিয়ে আনার কাতর আর্জি তাঁর।পুলিশের প্রাথমিক অনুমান, এই ঘটনার সঙ্গে কোন পূর্বপরিচিত ব্যবসায়ী যোগাযোগ রয়েছে। ফোনের সূত্র ধরেই অভিযুক্তদের তল্লাশি চালাচ্ছে হরিহরপাড়া থানার পুলিশ।

Pranab Kumar Banerjee

Published by:Uddalak B
First published:

Tags: Thief

পরবর্তী খবর