• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • মোবাইল কানে এক হাতে বাস চালাচ্ছিলেন চালক, এর জেরেই দুর্ঘটনা বলে দাবি আহত যাত্রীদের

মোবাইল কানে এক হাতে বাস চালাচ্ছিলেন চালক, এর জেরেই দুর্ঘটনা বলে দাবি আহত যাত্রীদের

নিজস্ব চিত্র

নিজস্ব চিত্র

মুর্শিদাবাদের দৌলতাবাদে আজ সকালে আরও ৫টি দেহ উদ্ধার হল। মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৪১।

  • Share this:

    #মুর্শিদাবাদ: মুর্শিদাবাদের দৌলতাবাদে আজ সকালে আরও ৫টি দেহ উদ্ধার হল। মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৪১। এখনও বেশ কয়েকজনের নিখোঁজ থাকার আশঙ্কা করা হচ্ছে। ডুবুরি নামিয়ে চলছে তল্লাশি। স্থানীয় বাসিন্দারাও উদ্ধার কাজে হাত লাগান।

    নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বালি নদীতে পড়ে গেল যাত্রীবাহী সরকারি বাস। করিমপুর থেকে বহরমপুর যাওয়ার পথে বালিরঘাট সেতুর রেলিং ভেঙে নদীতে পড়ে যায় বাসটি। বাসে ৫০জনের বেশি যাত্রী ছিলেন বলে খবর। আহতদের চিকিৎসা চলছে মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে। মোবাইল কানে বাস চালানোর অভিযোগ উঠেছে চালকের বিরুদ্ধে।

    দৌলতাবাদে বালিরঘাট ব্রিজের উপর দিয়ে যাওয়ার সময়ে আচমকা নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ডানদিকের রেলিং ভেঙে তিরিশ ফুট নীচে পদ্মার শাখা বালি নদীতে পড়ে যায় বাসটি। ধীরে ধীরে তলিয়ে যায় বাস। বাসের একাংশ আটকে যায় নদীর পলিতে।

    কুয়াশায় দৃশ্যমানতা কম থাকায় দুর্ঘটনা বলে প্রাথমিকভাবে মনে করা হয়। যদিও বাসে থাকা আহত যাত্রীদের দাবি , মোবাইল কানে এক হাতে বাস চালাচ্ছিলেন চালক। ডান হাতে ছিল মোবাইল ফোন, আর বাঁ হাতে স্টিয়ারিং!

    দুর্ঘটনার কারণ নিয়ে শুরু হয়েছে কাটাছেঁড়া। কুয়াশার জেরে দৃশ্যমানতা কম থাকাতেই কি দুর্ঘটনা? না কী রেষারেষির জের? কাউকে সাইড দিতে গিয়েই কী রেলিং ভেঙে নদীতে পড়ে যায় বাসটি? কিংবা আহত যাত্রীদের দাবিমত মোবাইলে কথা বলতে বলতে এক হাতে স্টিয়ারিঙ ধরাতেই কি প্রাণ গেল এতগুলো মানুষের? উঠে আসছে বিভিন্ন সম্ভাবনা।

    বাস দুর্ঘটনার আসল কারণ জানতে, তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

    First published: