#EgiyeBangla : কর্মসংস্থানে নতুন দিশা রাজ্যের রেশম খামার, কয়েক হাজার কর্মসংস্থান সরাসরি

#EgiyeBangla : কর্মসংস্থানে নতুন দিশা রাজ্যের রেশম খামার, কয়েক হাজার কর্মসংস্থান সরাসরি
  • Share this:

#ডেবরা: কর্মসংস্থানে নতুন দিশা দেখাচ্ছে রাজ্যের রেশম খামার

। পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার রেশম খামার থেকে সরাসরি কর্মসংস্থান হয়েছে কয়েকহাজারেরও বেশি মানুষের। এছাড়াও রেশম খামার থেকে পাওয়া বীজ থেকে বানিজ্যিক উন্নতি হয়েছে অন্য জেলার মানুষেরও। সরকারি প্রকল্প ও উন্নত গবেষণার সুফল পেয়েছে রেশম শিল্প।

পশ্চিম মেদিনীপুরে সরকারি দু’টি রেশম খামার রয়েছে। যার মধ্যে একটি মেদিনীপুর শহর সংলগ্ন ফুলপাহাড়ি রেশম খামার। আরেকটি রেশম খামার ডেবরায়। ডেবরা রেশম খামারে গবেষণার সঙ্গেই উন্নত প্রজাতির রেশম বীজ তৈরি ও প্রতিপালন হয়। ফুলপাহাড়ি রেশম খামারে ওই সমস্ত উন্নত বীজ এনে আরও বেশি পরিমাণে বীজ ও গুটি তৈরি করা হয়। এই বীজ ও গুটি পশ্চিম মেদিনীপুরের সঙ্গেই মালদহ, মুর্শিদাবাদ, বীরভূম ও অন্য বিভিন্ন জেলায় বাণিজ্যিকভাবে সরবরাহ করা হয়। এই রেশম চাষ দিশা দেখিয়েছে কর্মসংস্থানে।

রাজ্যে মোট ৫৯টি রেশম খামার আছে যার মধ্যে ৫টি খামার গবেষণা ও উন্নত প্রজাতির বীজ তৈরিতে ব্যবহার হয় এর মধ্যে একটি খামার পশ্চিম মেদিনীপুরের ডেবরাতে ৷ ডেবরা থেকে বীজ এনে পরিত্যক্ত জমিতে তুঁত চাষ করতে পারবেন কর্মহীনরা ৷ রাজ্যের ওয়েস্টল্যান্ড ডেভলপমেন্ট প্রোগ্রাম প্রকল্পে পরিত্যক্ত জমিতে তুঁত চাষের সুবিধা মিলবে ৷ পশ্চিম মেদিনীপুরে ৩০০ পরিবার রেশম চাষে যুক্ত ছিল ৷ এখন প্রায় ৬০০ পরিবার রেশম চাষে যুক্ত ৷

অল্প পরিশ্রমেই বাড়িতে বসে মোটা টাকা রোজগারের সুযোগ দিচ্ছে রেশম চাষ। মহিলারাও সংসারে লাভ করতে পারছেন।

বিশ্বজুড়ে রেশম বস্ত্রের চাহিদা ব্যাপক। তাই রেশম শিল্পের ব্যবসায় লাভও অনেক। তাই রেশম চাষ থেকে বাজারজাত করার প্রক্রিয়ায় যুক্ত মানুষেরাও লাভবান হচ্ছেন অনেকটাই। কয়েক লক্ষ মানুষের প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে কর্মসংস্থানের সুযোগ করেছে রেশম শিল্প। সহযোগিতার হাত বাড়িয়েছে রাজ্য সরকার।

First published: 11:20:01 AM Jan 24, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर