corona virus btn
corona virus btn
Loading

সুন্দরবনের রহস্য়ময় সোয়াচ অফ নো গ্রাউন্ড!

সুন্দরবনের রহস্য়ময় সোয়াচ অফ নো গ্রাউন্ড!

সোয়াচ অফ নো গ্রাউন্ড অর্থাৎ যার কোন তল নেই। বঙ্গোপসাগরের 1738 বর্গ কিলোমিটার দীর্ঘ এই অঞ্চল বাস্তবিক অর্থেই অতল।

  • Share this:

#কলকাতা: পশ্চিমবঙ্গের অন্য়তম সুন্দর জায়গা সুন্দরবন৷  জঙ্গল, বন্য়প্রাণী, প্রকৃতি সব কিছু তো রয়েছে৷ সঙ্গে রয়েছে দারুণ এক রহস্য়৷ সুন্দরবন থেকে ১৮৫ কিলোমিটার দূরে। সোয়াচ অফ নো গ্রাউন্ড। পৃথিবীর ১১ তম গভীর সমুদ্র খাত। সোয়াচ অফ নো গ্রাউন্ড অর্থাৎ যার কোন তল নেই। বঙ্গোপসাগরের ১৭৩৮ বর্গ কিলোমিটার দীর্ঘ এই অঞ্চল বাস্তবিক অর্থেই অতল। বিজ্ঞানি শুভ্রজিৎ চক্রবর্তী জানালেন," প্রায় এক লক্ষ বছর আগে এই অঞ্চল সৃষ্টি হয়েছিল। তারপর ক্রমাগত সমুদ্রের জল বেড়েছে তার  সঙ্গে বেড়েছে সুইচ অফ নো গ্রাউন্ড এর রহস্য।"

এই অঞ্চলটির সম্পর্কে নানা লোকে নানা মতামত দিয়ে থাকেন। স্থানীয় জেলেরা একে" নাই বাম" বলে। বাম বলতে তারা জলের গভীরতাকে বোঝায়। এই নামের মানে যেই জিনিসের গভীরতা মাপা যায় না।ব্রিটিশ আমল থেকে এর গবেষণা চলছে। ডুবে যাওয়া যুদ্ধজাহাজের খোঁজ করতে এসে বিজ্ঞানীরা এর নামকরণ করেন সোয়াচ অফ নো গ্রাউন্ড।

পশ্চিমবঙ্গের  দক্ষিণে রয়েছে সুন্দরবন। তারপরই অনন্ত জলরাশির বঙ্গোপসাগর। জলরাশির অতলে রয়েছে নানা রহস্য। এরকমই এক রহস্য রয়েছে সু যাকে আমরা বলতে পারি" ভয়ঙ্কর সুন্দর"- নাম"

সমুদ্র্র গবেষক শুভ্রজিৎ চক্রবর্তীর মতে," এই অঞ্চলের গুরুত্ব আরও অনেক বেশি। বঙ্গোপসাগরের এই অঞ্চলকে চিহ্নিত করা হয়েছে পৃথিবীর অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ  বায়ো ডাইভারসিটি হটস্পট হিসেবে। কারণ বিভিন্ন সামুদ্রিক প্রাণী এখানে বসবাস করে। ডলফিন, হাঙ্গর ও কচ্ছপের প্রজননের অন্যতম স্থান এই জায়গা।

এই জায়গা  বিশ্বের একমাত্র সোয়াচ যেখানে তিন প্রজাতির একসঙ্গেদেখা পাওয়া যায়। বিজ্ঞানিদের মতে এখানকার প্রাণিজ ভাণ্ডার অপূর্ব। তিমি, পপার্স ডলফিন, ইম্প্লাইস ডলফিন, ইরাবতী ডলফিন, হামারহেড শারক সহ নানান প্রজাতির প্রাণী  এখানে বসবাস করে। এই  সোয়াচ তাদের নিরাপদ আশ্রয়স্থল বলা যেতে পারে। এই অঞ্চলটিকে  ১৯১৪ সালে মেরিন প্রটেক্টেড অঞ্চল হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। এই অঞ্চলকে কেন্দ্র করে কীভাবে ব্লু ইকোনমি করা যায় সেটা ভাবনা চিন্তার স্তরে আছে। তার সঙ্গে  চলছে অনুসন্ধানের কাজ ও ।

First published: February 3, 2020, 9:35 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर