শুকিয়ে যাওয়া সবজি দিয়ে পসরা সাজিয়েছে বামেরা, কটাক্ষ বাম বিরোধীদের

শুকিয়ে যাওয়া সবজি দিয়ে পসরা সাজিয়েছে বামেরা, কটাক্ষ বাম বিরোধীদের
রবিবারের বাম নেতা সুজন চক্রবর্তী ঘুরে যাওয়ার, বামেদের ন্যায্য মূল্যের সব‌জি বাজারকে রাজনৈতিক ভাবে আক্রমণ শাসক ও বাম বিরোধী দুই শিবিরের ।

রবিবারের বাম নেতা সুজন চক্রবর্তী ঘুরে যাওয়ার, বামেদের ন্যায্য মূল্যের সব‌জি বাজারকে রাজনৈতিক ভাবে আক্রমণ শাসক ও বাম বিরোধী দুই শিবিরের ।

  • Share this:

#‌বারাসত:‌ বামেদের ন্যায্য মূল্যের সব‌জির বাজার নিয়ে জোর বিতর্ক বারাসতে। রবিবার সকালে এই সব‌জির বাজার পরিদর্শনে এসেছিলেন সিপিএম নেতা সুজন চক্রবর্তী। তাঁর দাবী ছিল বর্তমান বাজারে জিনিস পত্র ও সব‌জির যে বাজার দর তাতে দিন আনা দিন খাওয়া মানুষ রা চরম বিপাকে। কেন্দ্র ও রাজ্য সরকার পাশে আছি বলে রেশন শুধুমাত্র চাল দিয়ে দায় সারছে। আর কেন্দ্র কৃষি পন্যকে খোলা বাজারে কর্পোরেটদের হাতে বেচে দিয়েছে বলে বাম পরিষদীয় নেতা অভিযোগ করেন। এক দিকে করোনা অতিমারির জেরা কাজ হারা মানুষ। তার উপর নিত্য প্রয়োজনীয় সআ জিনিসের দাম বাড়ছে প্রতিদিন। তাই আমাদের ন্যায্য মূলের সব‌জির বাজারে ৩৮ টাকার বদলে জ্যোতি আলু ৩৪ টাকায় বিক্রি করছি।

রবিবারের বাম নেতা সুজন চক্রবর্তী ঘুরে যাওয়ার, বামেদের ন্যায্য মূল্যের সব‌জি বাজারকে রাজনৈতিক ভাবে আক্রমণ শাসক ও বাম বিরোধী দুই শিবিরের । বারাসত জেলা বিজেপির সাংগঠনিক সভাপতি শংকর চক্রবর্তী এই বামেদের সব‌জির বাজারকে কটাক্ষ করে বলেন, রাজ্য আলু থেকে সবজি সব কিছুর দাম দেখার কথা রাজ্যের। আর বামেরা রাজ্যের বিরুদ্ধে কিছু না বলে শুধুই কেন্দ্র কে দায়ী করেছে। বিজেপির বারাসত জেলার সভাপতির দাবী, সামনে নির্বাচন, তাই প্রচারে আলোয় থাকার জন্য মানুষকে ভাওতাবাজি দেওয়ার জন্য বামফ্রন্ট বিভিন্ন জায়গায় ব্যানার, স্টল বসিয়েছে। সেখানে না আছে কোন সবজি, না আছে কোন ন্যায্য মূল্য জিনিস। তার আরও অভিযোগ বাজারের দামেই এদিক ওদিক করে বিক্রি করে জিনস বেচছে বামে রা।এই কর্মসূচি আসলে নির্বাচনী রণকৌশল বলে মন্তব্য করেন শংকর বাবু।

অন্যদিকে বারাসত শহর তৃনমুল কংগ্রেসের সভাপতি অশ্বিনী মুখ্যোপাধ্যায় বলেন,এটা একটা পলিটিক্যাল গিমিক দেওয়া চেষ্টা করছে বামেরা। অশ্বিনী মুখ্যোপাধ্যােয়ের দাবী তিনি খোঁজ নিয়ে দেখেছেন, বামেদের ন্যায্যমূল্যের বাজারে যে সবজি মানুষের হাতে তুলে দেওয়া হচ্ছে,তা গুনগত মান অত্যন্ত নিকৃষ্ট মানের। এইভাবে যদি রাজনীতিতে ভেসে থাকা যায়,মানুষের পাশে আছি প্রমাণ করা যায়। তারই একটা প্রয়াস বলে মন্তব্য করেন তিনি।


তবে শহরের রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বের এই অভিযোগ সম্পূর্ণ নস্যাৎ করে ভাস্কর দে নামে এক ক্রেতা, জানান,বামেদের এই ন্যায্য মুল্যের বাজারে সব‌জির দাম অনেকটাই কম, সাধারণ বাজার মুল্য থেকে। পাশাপাশি সরকারে সদিচ্ছা থাকলে সরকারও কম দামে আলু তুলে দিতে পারে সাধারণ মানুষের কাছে বলেও মন্তব্য করেন ঐ ক্রেতা।

RAJARSHI Roy

Published by:Uddalak Bhattacharya
First published: