বর্ধমান রাজবাড়ি তৈরির পিছনে কোন ইতিহাস রয়েছে জানেন কী?

বর্ধমান রাজবাড়ি তৈরির পিছনে কোন ইতিহাস রয়েছে জানেন কী?

বর্ধমানের এই রাজবাড়ি থেকে মহাতাবচাঁদ, আফতাবচাঁদ, বিজয়চাঁদ ও উদয়চাঁদ - এই চার রাজা রাজত্ব পরিচালনা করেছেন।

বর্ধমানের এই রাজবাড়ি থেকে মহাতাবচাঁদ, আফতাবচাঁদ, বিজয়চাঁদ ও উদয়চাঁদ - এই চার রাজা রাজত্ব পরিচালনা করেছেন।

  • Share this:

#বর্ধমান: আগে বর্ধমানের রাজবাড়ি ছিল শহরের কাঞ্চননগর এলাকায়। সেখানেই থাকতেন রাজ পরিবারের সদস্যরা। সেখান থেকেই চলতো শাসঁকাজ।দামোদরে বার বার বন্যার কারণে শাসনকাজে ব্যাঘাত ঘটছিল। ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছিল চারপাশ।মহারাজ তেজচাঁদ তাই শহরের উঁচু জায়গায় রাজবাড়ি তৈরির পরিকল্পনা করেন।

মহারাজ তেজচাঁদের দত্তকপুত্র রাজা মহাতাবচাঁদ সেই পরিকল্পনা বাস্তবায়িত করেন। 1851 সালে এই রাজবাড়ি তৈরির কাজ সম্পূর্ণ হয়। মহারাজ মহাতাবচাঁদ তৈরি করেছিলেন বলে এই রাজবাড়ির নাম মহাতাব মঞ্জিল। তখন এটি ছিল বর্ধমান রাজের খাস হাভেলি। এখান থেকেই শাসনকাজ বিচার ব্যবস্থা পরিচালিত হত। ১৮৮০ র দশকে রাজা রানী সহ সকলেই এই এলাকায় চলে আসেন।

বর্ধমানের এই রাজবাড়ি থেকে মহাতাবচাঁদ, আফতাবচাঁদ, বিজয়চাঁদ ও উদয়চাঁদ - এই চার রাজা রাজত্ব পরিচালনা করেছেন। ১৯৫২  সালে জওহরলাল নেহেরুর সরকার জমিদারি উচ্ছেদ আইন আনেন। তার ফলে রাজতন্ত্রের বিলুপ্তি ঘটে। বিশাল রাজত্ব সরকারের হাতে চলে যায়।

১৯৫৩ সালে মহারাজ উদয়চাঁদ বর্ধমান ছেড়ে বেনারস চলে যান। দেশে বর্ধমান রাজার এগারোটি বাড়ি ছিল। তিনি কলকাতার কালীঘাটের বাড়ি বড়ছেলেকে এবং দার্জিলিংয়ের রাজবাড়ি ছোটছেলেকে দিয়ে দেন। মুখ্যমন্ত্রী বিধানচন্দ্র রায় বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয় তৈরির জন্য মহারাজের কাছে রাজবাড়ির এই বিল্ডিং চেয়ে নেন। ১৯৫৮ সালে বর্ধমান রাজপরিবার রাজ্য সরকারের হাতে রাজবাড়ি তুলে দেয়। ১৯৬০ সালে বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের পথ চলা শুরু। প্রথম উপাচার্য ছিলেন সুকুমার সেন।

এই রাজবাড়িতে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবন ও রাজবাড়ির গোলাপবাগ ক্যাম্পাসে পাঠভবন রয়েছে। যাবতীয় পড়াশোনা হয় গোলাপবাগে। উপাচার্যের অফিস সহ প্রশাসনিক কাজকর্ম হয় রাজবাড়ি থেকে।

২০০৯ সালে রাজ্য হেরিটেজ কমিশন বর্ধমান রাজবাড়িকে হেরিটেজ বিল্ডিং ঘোষনা করে। ঠিক হয় আলাদা জায়গায় উঠে যাবে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবন। রাজবাড়ি সংস্কারের পর তা দর্শনার্থীদের জন্য খুলে দেওয়া হবে। মিউজিয়াম সহ রাজবাড়ি সাজিয়ে তোলা হবে। লাইট অ্যান্ড সাউন্ডে দর্শকরা উপভোগ করবেন বর্ধমান রাজ কাহিনী।

Published by:Dolon Chattopadhyay
First published:

লেটেস্ট খবর