দক্ষিণবঙ্গ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

পুজোয় অবাধ মেলামেশা বাড়ছে করোনা ছড়াবার যন্ত্রণা, উদ্বিগ্ন জেলা প্রশাসন

পুজোয় অবাধ মেলামেশা বাড়ছে করোনা ছড়াবার যন্ত্রণা, উদ্বিগ্ন জেলা প্রশাসন

উৎসবের সময়ে আবাধ মেলামেশায় ফের করোনা সংক্রমণ বাড়বে বলে আশঙ্কা বারাসত পুরসভার প্রশাসকের।

  • Share this:

করোনাকে হালকা ভাবে নিচ্ছে‌ন বহু মানুষ। উৎসবের সময়ে আবাধ মেলামেশায় ফের করোনা সংক্রমণ বাড়বে বলে আশঙ্কা বারাসত পুরসভার প্রশাসকের। এই শহর কালীপুজোর জন্য সারা রাজ্যে বিখ্যাত। তবে করোনা সংক্রমণের গতি দেখে শহরের সব বড় পুজোর জাঁকজমক এবার কমিয়ে আনা হয়েছে। এবার মন্ডপে মন্ডপে সুসজ্জার কোন প্রতিযোগিতা হবে না। থাকবে না রাস্তা জুড়ে আলোর ভেল্কি। বরং থাকবে কোভিডের কারনে পিছিয়ে পড়া মানুষের পাশে দাঁড়াবার আশ্বাস। দাবী বারাসতের পুরপ্রশাসক সুনীল মুখোপাধ্যায়ের।

বারাসত কে এন সি রেজিমেন্ট তাদের পুজোকে এবার ছোট করেছে দাবী অশনি মুখোপাধ্যায়ের। পুজো ছোট করে বাঁচানো অর্থ এবার গরীব মানুষকে পোষাক ,খাবার দেওয়ার মধ্যে ব্যয় করা হবে বলে জানান তিনি। দুর্গা পুজোর জন্য বিধাননগর, বনগাঁ, বারাকপুর মহকুমা যথেস্ট জনপ্রিয়। জেলা স্বাস্থ্য দফতর সুত্রে খবর এই মহকুমাগুলিতে ফের করোনার সংক্রমণ বাড়ার আশংকা রয়েছে। দুর্গা পুজোর সপ্তমীর দিন ২২শে অক্টোবর থেকে ৩০ শে অক্টোবর পর্যন্ত উত্তর ২৪ পরগনা জেলায় মোট করোনা আক্রান্ত ৬১৬৯ জন। কেবল মাত্র বারাসত শহরে আক্রান্ত এর সংখ্যা ২৫৭ জন। সেরে উঠেছেন ১৭৯ জন। মারা গিয়েছেন ২ জন। শহরের করোনা সংক্রমণ এর হার এখনও উদ্বেগজনক নয় বলে দাবী বারাসত পুর প্রশাসক সুনীল মুখোপাধ্যায়ের। শহরের সচেতন নাগরিকদের দাবী লকডাউন ও উৎসবের পর মানুষকে সচেতন করতে পাড়ার ক্লাবগুলিকে ব্যবহার করতে হবে। প্রশাসনকে পাড়ার ক্লাব গুলিকে বলে দিতে হবে যে তারা পাড়ায় এই সময় কি ভাবে সাবধান থাকতে হবে তার পাঠ যেন দেয়। প্রশাসনকে ক্লাবগুলির সঙ্গে সমন্বয় বাড়াবার দাবী তাঁর। কারন পুজোর মেলামেশার জেরে যে সংক্রমণ হয়েছে তার প্রকাশ হবে সাত থেকে ১০ দিন পর থেকে। আর সেই সময় পরিস্থিতি উদ্বেগজনক হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে বলে স্বীকার করে নিয়েছেন পুর প্রশাসক সুনীল মুখোপাধ্যায়। তবে শহরে এই মুহূর্তে সেফ হোমে এ রয়েছে ৮ জন। কোনও কোয়ারান্টাইন জোন নেই শহরে জানিয়েছেন পুর প্রশাসক।

Rajarshi Roy

Published by: Uddalak Bhattacharya
First published: October 30, 2020, 5:33 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर