Home /News /south-bengal /

তাপমাত্রা ৮.৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস, মরশুমের শীতলতম দিন বর্ধমানে

তাপমাত্রা ৮.৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস, মরশুমের শীতলতম দিন বর্ধমানে

  • Share this:

    Saradindu Ghosh #বর্ধমান: শীতের কনকনানি কাকে বলে টের পাচ্ছেন বর্ধমানের বাসিন্দারা। শুক্রবারের থেকে তাপমাত্রা এক ধাক্কায় কমেছে অনেকটাই। শনিবার বর্ধমানের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ৮.৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এদিন ছিল মরশুমের শীতলতম দিন। আর তাতে শীতেল কামড় হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছেন বর্ধমানের বাসিন্দারা। সবচেয়ে ঠান্ডা দিনে পিকনিকে মজলেন অনেকেই।

    এদিন সকালে কুয়াশা একেবারেই ছিল না বললেই চলে। সকাল সকাল সূর্যের দেখা মিললেও শীত কমিয়ে উষ্ণতা দেওয়ার মতো তেজ রোদের ছিল না । ফলে বেলা বাড়লেও তাপমাত্রার তেমন হেরফের হয়নি। সেই সঙ্গে উত্তুরে হিমেল হাওয়া শীতের কাঁপন বাড়িয়ে তুলেছে। আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাস অনুযায়ী, আগামী ২৪ ঘন্টায় এই রকম শৈত্য প্রবাহ চলবে। তারপর বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। মেঘ কাটলে শীতের একই রকম দাপুটে ব্যাটিং দেখা যাবে নতুন বছরের প্রথম কটি দিনে। আবহাওয়াবিদরা জানিয়েছেন, মেঘ ও কুয়াশা শীতে বাধা হয়ে দাঁড়াচ্ছিল। আকাশ মেঘমুক্ত থাকার কারনেই তাপমাত্রা দ্রুত নিচে নেমেছে।

    হাড় কাঁপানো শীত ও হিমেল হাওয়ার কারনে এদিন শহরের রাস্তায় প্রাতঃভ্রমণকারীরা ছিলেন সংখ্যায় কম। গোলাপবাগ চত্ত্বর, টাউন হল ময়দান, মোহনবাগান মাঠ, জিটি রোড বা কল্পতরু মাঠে তাঁদের উপস্থিতি বিশেষ চোখে পড়েনি।অনেকে আবার শীতের কাঁপুনি থেকে রেহাই পেতে রাস্তার ধারে আগুন জ্বেলে উষ্ণতা খুঁজেছেন। অনেকে অভ্যাসমতো বাড়ির বাইরে গিয়েও শুধু চায়ের কাপে তুফান তুলেছেন। ভোরে অনেকেই রাস্তার ধারে আগুন জ্বেলে হাত পা সেঁকেছেন।

    তবে বছর শেষে জাঁকিয়ে পড়া শীতে খুশি শহরবাসী। অনেকেই কনকনানি শীতে চড়ুইভাতির মজা নিয়েছেন। এদিন বর্ধমানের সদরঘাটে দামোদরের চর পিকনিক পার্টির ভিড়ে জমজমাট ছিল। মেমারির পাল্লা রোড, খন্ডঘোষের সংসারে দামোদরের চরে অনেকেই সপরিবারে পিকনিক করেছেন। পিকনিক পার্টির ভিড়ে জমজমাট ছিল লাকুড্ডি জলকল মাঠ, ইদিলপুর বাংলো ও তার আশপাশ। সব মিলিয়ে বছর শেষে জাঁকিয়ে পড়া শীত তাড়িয়ে তাড়িয়ে উপভোগ করছেন বর্ধমানের বাসিন্দারা। উৎসব ময়দানে বর্ধমান উৎসবে এদিন দুপুর থেকেই দর্শকদের ভিড় ছিল তুলনামূলক বেশি। ছোটদের নিয়ে রমনাবাগান অভয়ারণ্যে ভিড় করেছিলেন বড়রা। সেখানে দুপুরের মিঠে রোদে বাঘ, ভালুক, হরিণ, পশু পাখি দেখার মজা নিয়েছেন অনেকেই। মেঘনাদ সাহা তারা মন্ডল ও বর্ধমান বিজ্ঞান কেন্দ্রেও এদিন নজরকাড়া ভিড় ছিল।

    Published by:Simli Raha
    First published:

    Tags: Bardhaman, Temperature

    পরবর্তী খবর