Home /News /south-bengal /
East Medinipur || ভালবাসার জোর এমনই! শেষ মুহূর্তে সিদ্ধান্ত বদল শিক্ষকের, ঘটনা শুনলে চোখ ভিজবে আপনারও

East Medinipur || ভালবাসার জোর এমনই! শেষ মুহূর্তে সিদ্ধান্ত বদল শিক্ষকের, ঘটনা শুনলে চোখ ভিজবে আপনারও

East Medinipur || চাকরি জীবনের বাকি কয়েকটা বছর বাড়ির কাছে শিক্ষকতা করতে চেয়ে উৎসসী প্রকল্পে নামও লিখিয়েছেন। বদলির অর্ডারও পান তিনি। বদলি হয়ে বাড়ি থেকে ঢিল ছোড়া  দূরত্বে পশ্চিম মেদিনীপুরের সবং-এর স্কুলে জয়েন করার ব্যাপারে সবকিছু ঠিকঠাকও হয়ে যায়।

আরও পড়ুন...
  • Share this:

#পূর্ব মেদিনীপুর: আবেগ আর ভালবাসায় কত কিছুই না হয়। আজ যেমন হল পূর্ব মেদিনীপুরের পুর্ব নৈছনপুর হাই স্কুলে। শিক্ষকদের নিয়োগ দুর্নীতি নিয়ে যখন তোলপাড় গোটা রাজ্য, তখনই এই ভিন্ন ছবি দেখা গেল পূর্ব মেদিনীপুরের এক স্কুলে। যেখানে প্রিয় শিক্ষকের বদলি রুখতে শিক্ষককে ঘিরে ধরে ধর্নায় বসলেন পড়ুয়ারা। আবেগে ভাসল গোটা একটা স্কুল! আবেগতাড়িত হলেন পড়ুয়া, অভিভাবক, গ্রামবাসী, শিক্ষক, স্কুল কর্মচারী সকলেই।

আরও পড়ুন- সেফ ড্রাইভ সেভ লাইফ! জীবনের বার্তা নিয়ে সাইকেলে বাংলাদেশ পাড়ি সিভিক ভলান্টিয়ারের

দীর্ঘদিন পরে আজ খুলেছিল স্কুল। পূর্ব মেদিনীপুরের ময়নার পূর্বনৈছন হাইস্কুলের শিক্ষকের বদলির খবর পেয়ে স্কুল খোলার প্রথম দিনেই স্কুলে হাজির হন স্কুল পড়ুয়া থেকে অভিভাবক সকলেই।অন্য স্কুলে চলে যাচ্ছিলেন বাংলার শিক্ষক অনুপম মাইতি। দীর্ঘ ২১বছর যিনি এই স্কুলেরই শিক্ষক ছিলেন। চাকরি জীবনের বাকি কয়েকটা বছর বাড়ির কাছে শিক্ষকতা করতে চেয়ে উৎসসী প্রকল্পে নামও লিখিয়েছেন। বদলির অর্ডারও পান তিনি। বদলি হয়ে বাড়ি থেকে ঢিল ছোড়া  দূরত্বে পশ্চিম মেদিনীপুরের সবং-এর স্কুলে জয়েন করার ব্যাপারে সবকিছু ঠিকঠাকও হয়ে যায়।

সোমবার বদলির পর স্কুলে শেষ ক্লাস নিতে এসেছিলেন অনুপমবাবু। তারপরই আবেগে ভাসেন স্কুল পড়ুয়ারা। সহকর্মী থেকে অভিভাবক, গ্রামের মানুষ সকলেই পথ আটকান ওই শিক্ষকের। ভালবাসার জোরে এই স্কুলেই বাকি চাকরি জীবন কাটানোর আশ্বাস দেন অনুপম মাইতি। তাঁর এই সিদ্ধান্তে খুশি স্কুল পড়ুয়া থেকে অভিভাবক সকলেই।

Published by:Rachana Majumder
First published:

Tags: East Midnapore

পরবর্তী খবর