• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • বারাসতে নাবালিকার গণধর্ষণ ! অভিযুক্ত গৃহশিক্ষককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ ! ফেরার এক !

বারাসতে নাবালিকার গণধর্ষণ ! অভিযুক্ত গৃহশিক্ষককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ ! ফেরার এক !

অসুস্থ মাকে দেখতে হাসপাতালে যাচ্ছিল ছাত্রী, রাস্তায় তাঁকে গণধর্ষণ করার অভিযোগ উঠল দুই দুষ্কৃতীর বিরুদ্ধে। শুক্রবার ঘটনাটি ঘটেছে জালাউন জেলার ওরাই শহরে। জানা যায়, দুষ্কৃতীরা ছাত্রীকে রাস্তা থেকে অপহরণ করে একটি গাছপালায় ঢাকা নির্জন জায়গায় নিয়ে গিয়ে গণধর্ষণ করে। সেখানেই তাকে অচৈতন্য অবস্থায় ফেলে রেখে পালিয়ে যায় অভিযুক্তরা। Representational Image

অসুস্থ মাকে দেখতে হাসপাতালে যাচ্ছিল ছাত্রী, রাস্তায় তাঁকে গণধর্ষণ করার অভিযোগ উঠল দুই দুষ্কৃতীর বিরুদ্ধে। শুক্রবার ঘটনাটি ঘটেছে জালাউন জেলার ওরাই শহরে। জানা যায়, দুষ্কৃতীরা ছাত্রীকে রাস্তা থেকে অপহরণ করে একটি গাছপালায় ঢাকা নির্জন জায়গায় নিয়ে গিয়ে গণধর্ষণ করে। সেখানেই তাকে অচৈতন্য অবস্থায় ফেলে রেখে পালিয়ে যায় অভিযুক্তরা। Representational Image

এই ঘটনার কথা এলাকার লোকজন জানতে পারলে চড়াও হয় ওই গৃহ শিক্ষকের বাড়িতে।

  • Share this:

#বারাসত: বারাসত পুরসভার  ৩৩ নম্বর ওয়ার্ড সুভাষ পল্লী এলাকা।গৃহ শিক্ষক বিপুল চন্দ্র দাস ও তার বন্ধুদের বিরুদ্ধে অভিযোগ এক বছর ১৪ ছাত্রীকে গণ ধর্ষণের।এই দিন রাতে ওই ছাত্রী দেরি করে বাড়িতে ফিরলে, বাড়ির লোক জানতে চায় কেন এত দেরি। তখন ওই নাবালিকা মেয়েটি খুলে বলে গৃহশিক্ষক ও তার সাগরেতরা কি ভাবে তাকে ব্লাকমেল করে ধর্ষণ করত। এই ঘটনার কথা এলাকার লোকজন জানতে পারলে চড়াও হয় ওই গৃহ শিক্ষকের বাড়িতে। তাকে বাড়ি থেকে বের করে এনে দেওয়া হয় উত্তম মধ্যম মার।ক্ষুব্ধ জনতা ভাঙচুড় চালায় অভিযুক্ত গৃহ শিক্ষক বিপুল চন্দ্র দাসের বাড়িতে।

পরে পুলিশ গিয়ে উদ্ধার করে গৃহ শিক্ষককে জনতার কাছ থেকে। রাতেই তাকে গ্রেফতার করা হয়।এইদিন নির্যাতিতা নাবালিকা  পুলিশ কে জানায় তার জন্ম সার্টিফিকেট ভুল ছিল। আর তা সংশোধনের নাম করে বেশ কয়েক দিন ধরে  ওই গৃহ শিক্ষক ও তার বন্ধু তার উপর অত্যাচার করছিল।অত্যাচারের ছবি ক্যামেরাবন্দী করে ব্লাক মেল করত। তাদের পাড়ার কাছে চিকেন মোড়ে একটি বাড়িতে তারা তাকে নিয়ে যেত । সেখানে তাকে দিনের পর দিন ধর্ষণ করত শিক্ষক ও তার বন্ধু মিলে।

এই দিন বাড়ির লোকের কাছে ঘটনার কথা খুলে বলায় পর, এলাকার মানুষ রোষে ফেটে পড়ে অভিযুক্ত শিক্ষকের উপর। পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি সামাল দেয় জনরোষের মাঝ থেক উদ্ধার করে অভিযুক্তকে গৃহ শিক্ষক বিপুল চন্দ্র দাস কে। এই অভিযুক্ত শিক্ষক কে গ্রেফতারের পরই তার স্ত্রী দাবী করে তার স্বামীকে ফাঁসানো হয়েছে।   নাবালিকাকে দিয়ে মিথ্যা মামলা সাজানো হয়েছে। অন্যদিকে বারাসত পুরসভার ৩৩ নং ওয়ার্ডে তৃণমূলের আহ্বায়ক মিলন সর্দার বলেন অভিযুক্ত জঘন্য অপরাধ করেছে। কঠিন শাস্তি দরকার। এলাকার লোক জানে বিপুল চন্দ্র দাস কি করেছে। রাতেই পুলিশ আর এক অভিযুক্ত এর খোঁজে তল্লাশি শুরু করেছে।

RAJARSHI ROY

Published by:Piya Banerjee
First published: