শিরায় সিরিঞ্জ দিয়ে হাওয়া ঢুকিয়ে খুন– News18 Bengali

শিরায় সিরিঞ্জ দিয়ে হাওয়া ঢুকিয়ে খুন

পেশা ছিল বিভিন্ন হাসপাতালে মেডিক্যাল সামগ্রী সরবরাহ করা। সেই সময়ই সোমনাথ জানতে পেরেছিল সিরিঞ্জ দিয়ে শিরায় হাওয়া ঢোকালে মৃত্যু নিশ্চিত।

Dolon Chattopadhyay | News18 Bangla
Updated:Feb 28, 2017 09:52 AM IST
শিরায় সিরিঞ্জ দিয়ে হাওয়া ঢুকিয়ে খুন
Dolon Chattopadhyay | News18 Bangla
Updated:Feb 28, 2017 09:52 AM IST

#খড়দহ: পেশা ছিল বিভিন্ন হাসপাতালে মেডিক্যাল সামগ্রী সরবরাহ করা। সেই সময়ই সোমনাথ জানতে পেরেছিল সিরিঞ্জ দিয়ে শিরায় হাওয়া ঢোকালে মৃত্যু নিশ্চিত। ময়নাতদন্তে তা ধরা পড়ার উপায় নেই। কিন্তু পুলিশি জেরায় শেষ পর্যন্ত সেই জারিজুরি ধরা পড়ে গেল। খড়দহের জ্যোতিষি খুনের সেই অস্ত্র উদ্ধার করেছে পুলিশ।

পুরনো পেশার অভিজ্ঞতাকেই খুনের পরিকল্পনায় কাজে লাগায় সোমনাথ। কী ভাবে খুন করলে পুলিশের চোখে ধুলো দেওয়া সম্ভব তাও জানতো সে। খড়দহের জ্যোতিষি খুনের অন্যতম মাস্টার মাইন্ডকে জেরা করে চঞ্চল্যকর তথ্য জানতে পেরেছে পুলিশ। তদন্তে পুলিশ জানতে পেরেছে,

খুনের কারণ

- জয়ন্তের থেকে ৭ লক্ষ টাকা ধার করেন সমর

- সমরের স্ত্রীর সঙ্গে ওই জ্যোতিষির ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক

Loading...

- সেই সম্পর্ককে কাজে লাগিয়ে টাকা ধার

- পরে টাকা ফেরত চেয়ে চাপ দেন জয়ন্ত

এরপরই জয়ন্ত ভট্টাচার্যকে খুনের ছক করে সমর। খুনে সমরকে সহায়তা করেন সোমনাথ। হাসপাতালে হাসপাতালে চিকিৎসা সামগ্রীর প্রাক্তন সাপ্লায়ার সোমনাথ পালই খুনের পদ্ধতি শেখায় সমরকে। সতেরোই ফেব্রুয়ারি সমরের স্ত্রী মিতা ফোন করে জয়ন্তকে ডেকে পাঠায়। এরপর লাল রংএর একটি মারুতি ওমনি গাড়িতে তুলে অপরেশন চালানো হয়।

- গাড়িতে তুলে জয়ন্তকে মাদক খাওয়ানো হয়

- এরপর তাঁর মুখ ও হাতে প্যাকিং টেপ লাগানো হয়

- জয়ন্তর হাতের শিরা ও বুকে সিরিঞ্জ দিয়ে হাওয়া ঢোকান হয়

- মৃত্যু নিশ্চিত করতে তার দিয়ে শ্বাসরোধ করা হয়

১৯ তারিখ জয়ন্তের মৃতদের উদ্ধার পরই মিতাকে গ্রেফতার করা হয়। রবিরার সোমনাথ পালকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এই নিয়ে জ্যোতিষি খুনে পাঁচ জনকে গ্রেফতার করেছে খড়দহ থানার পুলিশ।

ধৃতদের জেরা করে খুনে ব্যবহৃত সামগ্রী উদ্ধার করা হয়েছে। খুনে ব্যবহৃত সিরিঞ্জ, তার ও প্যাকিং টেপ উদ্ধার হয়েছে। খোয়া যাওয়া জ্যোতিষির ২টি হিরের আংটিও উদ্ধার হয়েছে।

First published: 09:52:41 AM Feb 28, 2017
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर