সিনেমার ধোনি আজ নেই, সুশান্তের স্মৃতি আঁকড়ে ধরে খড়গপুর প্ল্যাটফর্ম

সিনেমার ধোনি আজ নেই, সুশান্তের স্মৃতি আঁকড়ে ধরে খড়গপুর প্ল্যাটফর্ম
২০১৬ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর মুক্তি পেয়েছিল 'এম এস ধোনি- দ্য আনটোল্ড স্টোরি'৷ ১০০ কোটি টাকার উপরে ব্যবসা করেছিল ধোনির বায়োপিক৷ ধোনি নিজেও এই ছবির প্রমোশনে অংশ নিয়েছিলেন৷

পর্দার মাহি ট্রেনটা ছাড়েননি। রিলের ধোনি রিয়ালে ট্রেনটা মিস করে গেলেন। খড়গপুরের অনেক গল্প অজানাই থেকে গেল।

  • Share this:

    #খড়গপুর: খড়গপুর স্টেশনে ট্রেন দাঁড়িয়ে। বসে আছেন এক টিকিট চেকার। উঠবেন কি উঠবেন না। ভাবছেন। না, পর্দার মাহি ট্রেনটা ছাড়েননি। রিলের ধোনি রিয়ালে কিন্তু ট্রেনটা মিস করে গেলেন। খড়গপুরের অনেক গল্প অজানাই থেকে গেল।

    সাধারণ টিকিট চেকার। মাথার ঘাম পায়ে ফেলে কঠিন পরিশ্রম করেন। প্র্যাকটিস করেন। স্বপ্ন দেখেন স্বপ্ন ছোঁয়ার। বাইশ গজকে বশ করার। চাকরিটা করবেন? না কি ইচ্ছেডানায় ভেসে যাবেন? ভাবতে ভাবতে সময় বয়ে গেল। সামনে ক্রিকেট কেরিয়ারের হাতছানি। স্টেশনে রেলগাড়িটা সেদিন আগামীর রাস্তা দেখিয়েছিল পর্দার ধোনিকে। সেসব কথা বুকে করে রেখেছিল খড়গপুর। কিন্তু, রিলের ধোনি ট্রেনটায় চাপলেনই না। চলে গেলেন কোনও অজানা দেশে। হয়ে গেলেন ‘দ্য আনটোল্ড স্টোরি’। খড়গপুরের কত না বলা কথা থেকে গেল।


    বাস্তবের ধোনি বিষন্ন। বলছেন, সঙ্গে থাকো সুশান্ত। খড়গপুর হতবাক। মনে পড়ে যায়, ২০১৫ সালের জুন মাসেরই কথা। খড়গপুর স্টেশনে টিকিট চেকারের সাজে সুশান্ত সিং রাজপুত। স্টেশন থেকে শেরশাহ স্টেডিয়ামে প্র্যাকটিস। পুলিশ সুপারের বাংলো পেরিয়ে টমাসের দোকানে চা খেতে যেতেন সুশান্ত। ধোনির মতই, বড় বড় চুল। যেন একইরকম দেখতে। টমাসও চমকে যেতেন। পরে ভুল ভাঙত। বুঝতেন, ধোনির বায়োপিকের শ্যুটিং হচ্ছে। আর ক্রিকেটারের আদবকায়দা এমন রপ্ত করেছেন অভিনেতা, যে বোঝা দায়।

    দু’মাস খড়গপুর আইআইটির গেস্ট হাউসে ছিলেন সুশান্ত। ধোনির প্রিয় বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডা দিতেন। ফুচকা খেতে যেতেন। পর্দার ধোনির হাতে পুরস্কার তুলে দিয়েছিলেন তখনকার পুরপ্রধান প্রদীপ সরকার। সব মনে পড়ে যাচ্ছে।

    পরিচালক নীরজ পাণ্ডে জানতেন খড়গপুরের মাটিতে মাহির রক্ত-ঘাম-ক্লান্তি মিশে। টানা ন’মাস। সুশান্তও সেই পরিশ্রমে নিজেকে আষ্টেপৃষ্টে ডুবিয়ে দেন। নিজের মত করে। অনুশীলন করতেন দিনরাত। স্টারডম ভুলেছেন। ক্রিকেট কিট বইতেন। হেলিকপ্টার শট দেখে অনেকেই বলেছেন, কোনটা আসল ধোনি চেনা দায়। সুশান্ত ছিলেন এমনই। খুঁতখুঁতে, বাধ্য ছাত্র।

    শেরশা স্টেডিয়াম, গোলখুলির দুর্গা মন্দির, খ্রীষ্টান কবরখানার পিছনের মাঠ, বিএনআর গ্রাউন্ড যেখানে যেখানে ধোনি ক্রিকেট খেলতেন, সব জায়গা ছুঁয়েছিলেন সুশান্ত। ২০১৫-র জুনে খড়গপুর-সুশান্ত-ধোনি মিলে মিশে একাকার। কয়েকবছর পরে আবার একটা জুন। খড়গপুরের বুকে অঝোর ধারায় বৃষ্টি। শূন্য এ বুকে রেলনগরী একটা ট্রেনের অপেক্ষা করে। হয়ত তোমারই জন্য.. তোমারই জন্য সুশান্ত........

    Published by:Siddhartha Sarkar
    First published: