• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • লালগড়ের নেতাইয়ে শুভেন্দু অধিকারী, দলের কাজে নয়, শুভেন্দুর কর্মসূচি অরাজনৈতিক ব্যানারেই ! 

লালগড়ের নেতাইয়ে শুভেন্দু অধিকারী, দলের কাজে নয়, শুভেন্দুর কর্মসূচি অরাজনৈতিক ব্যানারেই ! 

নেতাইয়ের শহীদ স্মৃতি কমিটি আয়োজিত অনুষ্ঠানের প্রচারে ইতিমধ্যেই মন্ত্রীর বদলে শুভেন্দুর পরিচয় সেবক লেখা হয়েছে। যা নিয়ে চর্চা চলছে।

নেতাইয়ের শহীদ স্মৃতি কমিটি আয়োজিত অনুষ্ঠানের প্রচারে ইতিমধ্যেই মন্ত্রীর বদলে শুভেন্দুর পরিচয় সেবক লেখা হয়েছে। যা নিয়ে চর্চা চলছে।

নেতাইয়ের শহীদ স্মৃতি কমিটি আয়োজিত অনুষ্ঠানের প্রচারে ইতিমধ্যেই মন্ত্রীর বদলে শুভেন্দুর পরিচয় সেবক লেখা হয়েছে। যা নিয়ে চর্চা চলছে।

  • Share this:

#লালগড়: দল অবজাভার পদ তুলে দেওয়ার পর সেভাবে তিনি আর ভিন জেলায় যাচ্ছেন না। নিজের জেলায় যদিও বা মাঝেমধ্যে যাচ্ছেনও, সেখানে তিনি দলীয় কোনো কর্মসূচিতে পা মাড়াচ্ছেন না! তিনি শুভেন্দু অধিকারী। রাজ্যের মন্ত্রী সেই শুভেন্দু  অধিকারীই  যাচ্ছেন নেতাইয়ে। মেদিনীপুরে আজ তাই তাঁর ছবিতে ছবিতে ছয়লাপ করে দিয়েছেন শুভেন্দু অনুগামীরা। লালগড়ের নেতাইয়ের রাস্তাজুড়ে রাজ্যের পরিবহনমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীর ছবিসহ ব্যানার হেডিং ফ্লেক্স।

নেতাইয়ের শহীদ স্মৃতি কমিটি আয়োজিত অনুষ্ঠানের প্রচারে ইতিমধ্যেই মন্ত্রীর বদলে শুভেন্দুর পরিচয় সেবক লেখা হয়েছে। যা নিয়ে চর্চা চলছে। তাঁর যাত্রাপথে  একাধিক হোর্ডিং ফ্লেক্স ব্যানার।কোনোটাতেই তৃণমূলের প্রতীক নেই, নেই মন্ত্রীর পরিচয়ও। পরিবর্তে রয়েছে নন্দীগ্রামের মুক্তিসূর্য, বাংলা হৃদ স্পন্দন, জনসেবকের মত নানা বিশেষণ। রবিবার লালগড়ে নেতাই সামাজিক কর্মসূচিতে যোগ দেওয়ার কথা শুভেন্দু অধিকারীর। মেদিনীপুরে যে রাস্তা দিয়ে শুভেন্দু লালগড়ে গাড়ি চেপে যাবেন, সেই রাস্তার মোড়ে মোড়ে লাগানো হয়েছেশুভেন্দুর ছবি সহ ফ্লেক্স।মেদিনীপুর সবং সালবনি চন্দ্রকোনা সহ বিভিন্ন  জায়গায় ফ্লেক্স লাগিয়েছেন দাদার অনুগামীরা। শুভেন্দু অনুগামীদের কথায়, বহুদিন পর দাদার পদার্পণ হচ্ছে জেলায়। উনি সদ্য করোনা মুক্ত হয়েছেন। দাদার মঙ্গল কামনায় আমরা মন্দিরে মন্দিরে পুজো দিয়েছি।এবার স্বাগত জানাতেও প্রস্তুত আমরা।

জানা গেছে, মেদিনীপুর শহরের অদূরে ঢোকার মুখে মোহনপুর ধর্মা কেরানি চটিতে স্বাগত জানাতে অনেকে ফুলমালা নিয়ে প্রস্তুত থাকবেন। মোহনপুর থেকে ভাদুতলা পর্যন্ত বাইক মিছিলও হতে পারে। উল্লেখ্য, গোটা রাস্তা জুড়েই শুভেন্দুর ছবিসহ হোর্ডিং ঝুলিয়েছেন তাঁর অনুগামীরাই। ছবির উপর কোনটাতে লেখা জঙ্গলমহলের অগ্নি যুবক, কোনটায় বিপদের সাথী, কোনটায় আবার অন্যায়ের প্রতিবাদী মুখ। জনগণের নেতা জননেতা জিন্দাবাদ লেখা হোর্ডিং চোখে পড়ছে। বেশ কয়েক মাস ধরেই এই জেলার সবং, মোহনপুর, দাঁতন, ঘাটাল খরগোপুর এলাকায় শুভেন্দু অনুগামীরা অরাজনৈতিক কর্মসূচি করছেন। শুভেন্দুকে স্বাগত জানাতে অনুগামীদের এমন আয়োজন ঘিরে দল যে বেশ অস্বস্তি পড়েছে। তা তৃণমূল নেতৃত্বের দাবিতে স্পষ্ট। জেলায় একাধিক এলাকায় শুভেন্দুর ছবিতে ছয়লাপ হয়ে গিয়েছে। অথচ পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা সভাপতি অজিত মাইতি বলেন, এমন হোর্ডিং দেওয়ার বিষয়টি আমার জানা নেই, না জেনে কিছু বলতে পারব না। যদিও অজিত মাইতির এমন মন্তব্যকে কটাক্ষ করছেন দলেরই অন্য একটি অংশ। দলের জেলা সভাপতির উদ্দেশ্যে তাঁরা বলছেন, বয়স বাড়ছে, চোখের দৃষ্টিশক্তিও কমছে ওনার। অজিত বাবুকে দ্রুত চোখ সারিয়ে নেওয়ার পরামর্শও দিয়েছেন তাঁরা।

SUJIT BHOWMIK

Published by:Debalina Datta
First published: