একই স্লোগান দিলেও গ্রেফতার নয় কেন তৃণমূল কর্মীরা, প্রশ্ন শুভেন্দু অধিকারীর 

একই স্লোগান দিলেও গ্রেফতার নয় কেন তৃণমূল কর্মীরা, প্রশ্ন শুভেন্দু অধিকারীর 

কেশপুরের জনসভায় শুভেন্দু অধিকারী।

এই গ্রেফতারি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী।

  • Share this:

#কেশপুর: গোলি মারো সালেকো, বিজেপির মিছিল থেকে এই স্লোগান দেওয়ার অপরাধে গ্রেফতার তিন বিজেপি যুব মোর্চা কর্মী। তাদেরকে গ্রেফতার করেছে চন্দননগর পুলিশ কমিশনারেট। এই গ্রেফতারি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী।

এদিন শুভেন্দু অধিকারী অভিযোগ করেন, "আমরা কোনও গোলি মারার সংষ্কৃতিতে বিশ্বাস করিনা। আইন আইনের পথে চলবে। কিন্তু আমাদের ছেলেদের গ্রেফতার করল। আগের দিন ওদের ছেলেরা একই স্লোগান দিল যার বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থা নিল না পুলিশ। টালিগঞ্জে যা করল তাতে ছাড় কেন? আইন সকলের জন্যে সমান।"

নির্বাচনের সময় যত ঘনিয়ে আসছে ততই রাজনীতির পারদ বাড়ছে। বাগযুদ্ধের সঙ্গে জারি রয়েছে মিছিল-পাল্টা মিছিল,স্লোগান-পাল্টা স্লোগান। কিন্তু মঙ্গলবার তৃণমূলের মিছিল থেকে গোলি মারো স্লোগান ঘিরে তৈরি হয়েছিল নয়া বিতর্ক। পরের দিন বুধবার চন্দননগরে বিজেপির রোড শো ঘিরে ফের শুরু হয় বিতর্ক। চন্দননগরে মিছিলে শুভেন্দু-লকেট-অর্জুনের ট্যাবলোর পিছন থেকে উঠেছিল আওয়াজ, দেশ কো গদ্দারো কো,গোলি মারো সালেকো। একই সঙ্গে স্লোগান উঠেছে, গোলি মারো তৃণমূলকো।

বিজেপির রোড শো থেকে এই স্লোগান ওঠায় ফের বিজেপির স্লোগান সংস্কৃতি নিয়ে প্রশ্ন উঠেছিল। সোমবার টালিগঞ্জ থেকে রাসবিহারী পর্যন্ত মিছিল করেছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। মঙ্গলবার সেই একই পথে হাজরা মোড় পর্যন্ত পাল্টা মিছিল করেছিল তৃণমূল। গোটা বাংলা জুড়ে সন্ত্রাস করছে বিজেপি, হাঙ্গামা করে রাজ্যকে অশান্ত করতে চাইছে গেরুয়া শিবির, এই অভিযোগে মিছিল করেছিল তৃণমূল কংগ্রেস। আর সেই মিছিলে বিস্ফোরক স্লোগান তুলেছিল মিছিলের একাংশ। যে স্লোগান শাহিনবাগ আন্দোলনের সময় দিল্লিতে শুনেছে গোটা দেশ, সেই, ‘গোলি মারো’ স্লোগান ওঠে ওই মিছিলে। সেখানে বলতে শোনা যায়, ‘বঙ্গাল কে গদ্দারো কো গোলি মারো শালো কো’।

হুগলি  জেলা বিজেপি যুব মোর্চার সভাপতি সুরেশ সাউ গতকাল এই স্লোগান দেন। গতকাল তিনি এই মিছিলে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন। তার মুখ থেকেই শোনা গিয়েছিল ওই স্লোগান। ধীরে ধীরে সেই স্লোগান দিতে থাকেন মিছিলে উপস্থিত থাকা বাকিরাও।  প্রসঙ্গত, নির্বাচনী প্রচারে তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিজেপির বিরুদ্ধে ‘বহিরাগত’ তোপ দেগেছিলেন। যা নিয়ে একাধিকবার সরব হয়েছিল বিজেপি নেতারাও।বুধবার মিছিল থেকেই বিজেপি নেতা এই স্লোগান দেন। ওই মিছিল থেকেই বিজেপির নেতা সুরেশ সাউ জানিয়েছিলেন, ‘‘সীমান্তে আমাদের জওয়ানরা আছেন। যারা অনুপ্রবেশ করার চেষ্টা করেন তাদের গোলি মারতে বলেছি। যারা অনুপ্রবেশ করে তারা গদ্দার।"

উল্লেখ্য, বুধবার মিছিল শুরুর আগে বিজেপি-র ব্যানার, পোস্টার নিয়ে ব্যাপক জনসমাগম করেছিল তারা। তবে টিএমসি'কে গোলি মারার স্লোগান নিয়ে মুখ খুলেছিলেন সুরেশ সাউ৷ তিনি জানিয়েছিলেন, "তৃণমূলে গদ্দার আছে। তাই বলেছি।" বিজেপি নেতারা পুলিশের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন। এদিন রাজ্যের এডিজি আইনশৃঙ্খলা জ্ঞানবন্ত সিংহকে কটাক্ষ করেন শুভেন্দু অধিকারী। তিনি জানিয়েছেন, উনি একজন আপার ডিভিশন ক্লার্ক।

Published by:Arka Deb
First published:

লেটেস্ট খবর