কুকুরের পাতে আদরের বিরিয়ানি, শুক্রবার কালনার সারমেয়দের যত্ন করে খাওয়াল খুদে পড়ুয়ারা

কুকুরের পাতে আদরের বিরিয়ানি, শুক্রবার কালনার সারমেয়দের যত্ন করে খাওয়াল খুদে পড়ুয়ারা

রীতিমতো বাবা বাছা করে ডেকে, আদর আপ্যায়ন করে কুকুরদের খাওয়ান হল যত্ন করে রান্না করা টাটকা বিরিয়ানি

  • Share this:

SARADINDU GHOSH

#কালনা: শুক্রবার কালনার সারমেয়দের দিনটা কাটল একেবারেই অন্যরকম। অন্যদিন পেট ভরাতে গৃহস্থের ফেলে দেওয়া এঁটো কাঁটার ওপরই ভরসা রাখতে হয়। তাতেও যে সবদিন নিশ্চিন্ত থাকা যায় তা নয়, সেখানে, এই হাড় কাঁপানো শীতের দুপুরে জুটল ভরপেট বিরিয়ানি। রীতিমতো বাবা বাছা করে ডেকে, আদর আপ্যায়ন করে কুকুরদের  খাওয়ান হল যত্ন করে রান্না করা টাটকা বিরিয়ানি। কালনা শহরে ঘুরে ঘুরে পথ কুকুরদের খাওয়াল পশুপ্রেমী পড়ুয়ারা।

মুম্বাইয়ের বাসিন্দা পশুপ্রেমী দানিশ জিয়ান গতবছর এই দিন পথ দুর্ঘটনায় মারা যান। তাঁর প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে কালনার কিছু খুদে পড়ুয়া তাঁর প্রথম মৃত্যুবার্ষিকীতে রাস্তার কুকুরদের জন্য এই অভিনব উদ্যোগ নিল।

কেন এই ভাবনা? এই পশুপ্রেমীদের মতে, মানুষ চাইলেই তাঁদের খাবার নিজেরাই সাধ্যমতো জোগাড় করে নিতে পারেন। কোনদিন কী খাবার খাবেন, তাও নির্বাচন করেন নিজের সামর্থ্য অনুযায়ী । কিন্তু কুকুরসহ পথ পশুদের পক্ষে তা সম্ভব নয়! তাদের খেতে দেওয়া তো দূরের কথা, অনেকেই দেখা মাত্র দূর দূর করে তাড়িয়ে দেয়। তাদের জন্য ভাবনার কেউ নেই-- এই ভাবনা থেকেই এমন আয়োজন।

কালনা স্টেশন, বাসস্ট্যান্ড সহ কালনা শহরের বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে ঘুরে খুদে খুদে পড়ুয়ারা কুকুরদের ভরপেট খাওয়াল এদিন। শুধু খাইয়েই দায়িত্ব শেষ করা নয়, শারীরিক সমস্যা থাকা কুকুরের চিকিৎসাও করে তারা। ক্ষতস্থানে লাগানো হল ওষুধ, বাঁধা হল ব্যান্ডেজ।

কিন্তু এত খরচ করা কীভাবে সম্ভব হল ? পড়ুয়ারা জানায়, সোশ্যাল মিডিয়ায় এখন দক্ষ সকলেই। সেখানেই কর্মসূচির কথা জানিয়ে সাহায্যের আবেদন রাখা হয়েছিল। তাতে অভূতপূর্ব সাড়া মিলেছে। অনেকেই সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। শুধু একদিন খাইয়েই কাজ শেষ নয়, মাঝেমধ্যেই এই কর্মসূচি নেওয়া হবে বলে জানিয়েছে তারা।

First published: 08:00:41 PM Dec 20, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर