আকাশের নীচেই চলছে পঠন-পাঠন, মিড ডে মিলের রান্না

আকাশের নীচেই চলছে পঠন-পাঠন, মিড ডে মিলের রান্না
Photo- video Grab

হেমতাবাদের পূর্ব ইসলামপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়।

  • Share this:

#হেমতাবাদ: প্রতিশ্রুতি পূরণ না হওয়ায় স্কুলে তালা দিয়ে দিলেন জমিদাতার পরিবার। আকাশের নীচেই চলছে পঠন-পাঠন। শিকেয় উঠেছে মিড ডে মিলের রান্না।হেমতাবাদের পূর্ব ইসলামপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়। কিছুটা দূরে আকাশের নীচেই বসেছে ক্লাস।স্কুল বাড়ির দরজায় তালা ঝুলিয়ে দিয়েছেন স্থানীয় বাসিন্দা সুফিয়া খাতুন। কিন্তু কেন?

২০০১ সালে স্কুল তৈরির জন্য সরকারকে জমি দান করেছিলেন সুফিয়ার স্বামী জহুরুদ্দিন আহমেদ। সেইসময় পরিবারের একজনকে চাকরি দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল শিক্ষা দফতর। কিন্তু বছরের পর বছর পেরিয়ে গেলেও চাকরি পাননি জহুরুদ্দিন। ২০০৫ সালে তাঁর মৃত্যুর পর অভাব অনটন আরও বাড়তে থাকে।

এখন আর চাকরি চাননা সুফিয়া খাতুন। ফেরত চান দান করা স্কুলের জমি। ২৫ জুলাই স্কুলে তালাও ঝুলিয়ে দিয়েছেন তিনি।স্কুলে ঢুকতে না পারায় কাছেই আম বাগানে ত্রিপল পেতে চলছে ক্লাস। মিড-ডে মিল রান্নাও বন্ধ।আগেও একবার স্কুলে তালা ঝুলিয়ে দিয়েছিলেন সুফিয়া। পুলিশ-প্রশাসনের মধ্যস্থতায় সেবার তালা ভেঙে ফের স্কুল বাড়িতে শুরু হয়েছিল পঠন-পাঠন। শিক্ষা দফতর চাইলে ফের সেরকম ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন হেমতাবাদের বিডিও।

স্কুল চালু করতে জমিদাতা পরিবারের সঙ্গে কথা বলেন জেলা প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শক সুজিত মাইতি। কিন্তু জমি ফেরতের দাবিতে অনড় সুফিয়া। আর খোলা আকাশের নীচেই পড়তে হচ্ছে খুদে পড়ুয়াদের।

First published: 11:48:25 PM Aug 11, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर