corona virus btn
corona virus btn
Loading

অনলাইন বা টিভিতে ক্লাস নয়, লকডাউনে মাইকিং করে পড়ুয়াদের পড়াচ্ছেন শিক্ষক-শিক্ষিকারা

অনলাইন বা টিভিতে ক্লাস নয়, লকডাউনে মাইকিং করে পড়ুয়াদের পড়াচ্ছেন শিক্ষক-শিক্ষিকারা

সামাজিক দূরত্ব মেনে স্কুলের ওই কন্ট্রোলরুমে বসছেন স্কুলের একজন শিক্ষিকা ও দুজন শিক্ষক। সেখান থেকেই পড়াশোনা করানো হচ্ছে ওই স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীদের।

  • Share this:

#বীরভূম: বীরভূমের সিউড়ীর নগরী গ্রাম পঞ্চায়েতের আমগাছি আদিবাসী গ্রাম। এই গ্রামের ছোট্ট সরকারি প্রাথমিক স্কুল,  নাম উদয়ন পাঠশালা। এই স্কুলের শিক্ষক শিক্ষিকারা লকডাউনে বাড়িতে বসে নেই। বরং পড়াশোনার জন্য স্কুলে খোলা হয়েছে ছোটখাটো একটা কন্ট্রোল রুম। এই কন্ট্রোলরুমে রয়েছে সাউন্ড মেশিন, সঙ্গে রয়েছে মাইক্রোফোন। আর এই কন্ট্রোলরুম থেকেই বেশ কয়েকটা তার বেরিয়ে গ্রামের ভিতরে বৈদ্যুতিক খুঁটিগুলো পর্যন্ত চলে গিয়েছে যেখানে লাগানো মাইকে!

সামাজিক দূরত্ব মেনে স্কুলের ওই কন্ট্রোলরুমে বসছেন স্কুলের একজন শিক্ষিকা ও দুজন শিক্ষক। সেখান থেকেই পড়াশোনা করানো হচ্ছে ওই স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীদের। মাইকে কণ্ঠস্বর শুনে স্কুলের পোষাক পরেই পড়াশুনা করছে গ্রামের বাচ্চারা৷ পড়াশোনার নির্দেশিকা মানছেন ওই স্কুলের ছোট্ট ছোট্ট ছাত্রছাত্রীরা। কুমোর পাড়ার গরুর গাড়ি কবিতা বা নামতা। কিছু কিছু বিষয় আগেই মোবাইলে রেকর্ড করেছে শিক্ষক-শিক্ষিকারা৷ তাই পেনড্রাইভের মাধ্যমে বাজানো হচ্ছে মাইকে। আবার কোনও কোনও ক্ষেত্রে মাইক্রোফোন হাতে নিয়ে সরাসরি পড়াশোনা করানো হচ্ছে মাইকের মাধ্যমে।

আরও পড়ুন কলকাতায় সরকারি বাসের জন্য দীর্ঘ লাইনে চূড়ান্ত নাকাল যাত্রীরা, অবিলম্বে বেসরকারি বাস চলার দাবি

তবে এখানেই শেষ নয়৷ ছাত্রছাত্রীরা আদৌ পড়াশোনা করছে কিনা বা তাদের নির্দেশিকা বুঝতে কোন অসুবিধা হচ্ছে কিনা তা দেখতে স্কুলের শিক্ষক শিক্ষিকারা গ্রামের বাড়ি বাড়ি ঘুরছেনও। প্রশান শিক্ষক দেবদাস সাহাও গ্রামের বাড়ি বাড়ি ঘুরে বেড়াচ্ছেন, ঘুরে বেড়াচ্ছেন অন্য আরেক শিক্ষক বিকাশ বন্দ্যোপধ্যায়ও। এই উদ্যোগে খুশি প্রশাসন থেকে স্থানীয় পঞ্চায়েতের প্রধান৷ পঞ্চায়েত প্রধান স্যালুট জানিয়েছেন শিক্ষক-শিক্ষিকাদের এই উদ্যোগের জন্য। প্রত্যেকদিন সকাল সাতটা থেকে সকাল নটা পর্যন্ত চলছে এই ক্লাস। বড়ো বড়ো নামজাদা স্কুলগুলোতে যখন টেকনোলজি নির্ভর অনলাইন পড়াশোনা,  অডিও ভিজুয়াল মাধ্যমে সরাসরি শিক্ষক-শিক্ষিকা ও ছাত্রছাত্রীরা একে অপরকে দেখতে পাচ্ছেন ছাত্রছাত্রীরা, ঠিক সেই সময়ে এমন প্রথা মাত করে দিয়েছে পড়াশোনার ক্ষেত্রে লকডাউনে। ওই স্কুলের শিক্ষিকা জয়শ্রী মন্ডল জানিয়েছেন এই ভাবে ছাত্রছাত্রীদের পড়াশোনা করিয়ে মনে একটা আলাদা আনন্দ হচ্ছে।

Published by: Pooja Basu
First published: May 18, 2020, 8:20 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर