৯ মাস ধরে ছাত্রী যেতে পারছে না স্কুলে, মন্ত্রী আশ্বাসের পরেও চোখের জল নিয়ে ফিরল...

স্কুলে ভর্তি জন‍্য বারবার প্রশাসনের দ্বারস্থ হয় প্রগতি ও তার মা

Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Sep 07, 2019 06:56 PM IST
৯ মাস ধরে ছাত্রী যেতে পারছে না স্কুলে, মন্ত্রী আশ্বাসের পরেও চোখের জল নিয়ে ফিরল...
Photo- Video Grab
Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Sep 07, 2019 06:56 PM IST

#ঝাড়গ্রাম: নামবদলের কারণে স্কুল ছাড়তে হয়েছে ঝাড়গ্রামের প্রগতি রায়কে। দীর্ঘ ৯ মাস ধরে বাড়িতেই বসে ছাত্রী। নিউজ এইটিন বাংলার খবরের জেরে প্রগতিকে স্কুলে ভরতির আশ্বাস দিয়েছে প্রশাসন। তবে ৯ মাসের অপেক্ষার পরও পছন্দের স্কুল পাচ্ছে না প্রগতি। মন্ত্রীর আশ্বাসের পরও চোখে জল নিয়েই বাড়ি গেল ছোট্ট প্রগতি।

নামবদল করায় স্কুল ছাড়তে হয়েছে ঝাড়গ্রামের প্রগতি রায়কে।

-- ৯ মাস আগে আদালতে হলফনামা দিয়ে নাম বদলায় ছাত্রী

-- তৃপ্তি থেকে নাম বদলে হয় প্রগতি

-- নাম বদলানোয় প্রগতিকে ষষ্ঠ শ্রেণিতে ভরতি নেয়নি সারদা বিদ‍্যাপীঠ

Loading...

-- স্কুলে ভরতির জন‍্য বারবার প্রশাসনের দ্বারস্থ হয় প্রগতি ও তার মা

-- শিক্ষামন্ত্রীর আশ্বাসের ৪ মাস পরও স্কুল পায়নি প্রগতি

-- পরিবহনমন্ত্রীর আশ্বাসে ছাত্রীর সঙ্গে কথা বলেন ডিআই

-- ডিআইয়ের সঙ্গে বৈঠকের পরও অমিল সমাধান

বৃহস্পতিবার ঝাড়গ্রামের ডিএম হলে শিক্ষক দিবসের অনুষ্ঠানে পরিবহনমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীর সঙ্গে দেখা করেন প্রগতি ও তার মা। কিন্তু সেখানেও আশ্বাস ছাড়া কিছুই পেল না প্রগতি। মন্ত্রীর সঙ্গেই মঞ্চে ছিলেন সারদা বিদ‍্যাপীঠের প্রধান শিক্ষিকা ইলা পট্টনায়েক। ৯ মাস আগে তাঁর স্কুলেই ভরতি নেওয়া হয়নি প্রগতিকে।

 নিউজ এইটিন বাংলার খবরের জেরে গত মাসেই ঝাড়গ্রামের ডিপিএইচসি বীরবাহা সোরেনকে প্রগতির সমস‍্যা মেটানোর দায়িত্ব দেন শুভেন্দু অধিকারী। কিন্তু বৃহস্পতিবার প্রগতির থেকে মুখ ফেরালেন তিনিও।পরিবহনমন্ত্রী অবশ্য বলছেন, স্কুলে ভরতির সুযোগ দেওয়া হলেও প্রগতি চাইছে পছন্দের স্কুলে ভরতি হতে।

আরও পড়ুন - রাষ্ট্রপতি কোবিন্দের আর্জি রাখলেন না ইমরান খান, আকাশ সীমা ব্যবহার করতে দেওয়া হবে না জানাল পাকিস্তান

পছন্দের স্কুলে প্রগতিকে ভরতির আশ্বাস দিয়েছিলেন মন্ত্রী, আধিকারিকরাই। কিন্তু ৯ মাসেও পছন্দের স্কুলে ভরতির সুযোগ পায়নি প্রগতি। এখনও তার ভরসা শুধুই আশ্বাস।

আরও দেখুন

First published: 06:55:28 PM Sep 07, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर