রাতারাতি গায়েব ইন্দিরা-রাজীবের আবক্ষ মূর্তি! রাজনৈতিক উত্তাপে ফুটছে মন্তেশ্বর

রাতারাতি গায়েব ইন্দিরা-রাজীবের আবক্ষ মূর্তি! রাজনৈতিক উত্তাপে ফুটছে মন্তেশ্বর

মন্তেশ্বরে রাতারাতি গায়েব ইন্দিরা-রাজীবের আবক্ষ মূর্তি।

রাস্তার ধার থেকে রাতারাতি সরে গেল দেশের দুই প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী ও রাজীব গান্ধীর মূর্তি। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত হয়ে উঠল পূর্ব বর্ধমানের মন্তেশ্বর বাজার এলাকা।

  • Share this:

#মন্তেশ্বর: রাস্তার ধার থেকে রাতারাতি সরে গেল দেশের দুই প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী ও রাজীব গান্ধীর মূর্তি। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত হয়ে উঠল পূর্ব বর্ধমানের মন্তেশ্বর বাজার এলাকা। তাদের দলের প্রয়াত দুই নেতা-নেত্রীর মূর্তি রাজনৈতিক কারণে উচ্ছেদ করে দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ তুলে বৃহস্পতিবার দিনভর এলাকায় বিক্ষোভ দেখায় কংগ্রেস। এই ঘটনার প্রতিবাদে ও দোষীদের গ্রেফতারের দাবিতে মন্তেশ্বর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে তারা।

১৯৯০ সালে মন্তেশ্বর বাজারে দেশের প্রাক্তন দুই প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী ও রাজীব গান্ধীর মূর্তি বসানো হয়েছিল। পূর্ত দফতরের জায়গায় রাস্তার ধারে বসানো ছিল মূর্তি দুটি। কংগ্রেসের অভিযোগ, ৯ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় জেসিবি মেশিন দিয়ে মূর্তির দুটির চূর্ণ-বিচূর্ণ করে দেওয়া হয়। তাদের অভিযোগ, তৃণমূল কংগ্রেস থেকে বিজেপিতে যোগ দেওয়া দেবব্রত রায় ওরফে খাদিম রায়ের নেতৃত্বে ইন্দিরা রাজীবের মূর্তি সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। এই ঘটনার প্রতিবাদে আন্দোলনে নেমেছে কংগ্রেস। বৃহস্পতিবার তারা ওই এলাকায় বিক্ষোভ সভা করে। অবিলম্বে মূর্তি সরানোর ঘটনায় অভিযুক্ত খাদিম রায়ের গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়েছে তারা।

এই এলাকা থেকেই রাতারাতি গায়েব হয়েছে ইন্দিরা-রাজীবের আবক্ষ মূর্তি। এই এলাকা থেকেই রাতারাতি গায়েব হয়েছে ইন্দিরা-রাজীবের আবক্ষ মূর্তি।

এ ব্যাপারে বিজেপি নেতা দেবব্রত রায় জানান, মূর্তি দুটি ভেঙে গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়েছে এ অভিযোগ সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন। ওই মূর্তি দুটি যে জায়গায় বসানো হয়েছিল সেই জায়গাটি ভেঙে গিয়েছিল। ফলে মূর্তি দুটি হেলে পড়েছিল। তাই আমি তিন হাজার টাকা খরচ করে দক্ষ কারিগর এনে অতি সাবধানে মূর্তি দুটিকে ওখান থেকে তোলার ব্যবস্থা করেছি। চূর্ণ-বিচূর্ণ করে ফেলে দেওয়া হয়েছে এ অভিযোগ ঠিক নয়। বরং তা সযত্নে আমার ঘরেই আমার তত্ত্বাবধানে রাখা রয়েছে।কয়েকদিনের মধ্যেই সেগুলি পুনঃপ্রতিষ্ঠা করা হবে।

বিজেপি নেতা হয়ে আপনি ইন্দিরা রাজীবের মূর্তি প্রতিষ্ঠা করবেন? প্রশ্নের উত্তরে খাদিম রায় বলেন, অনেক আবেগ নিয়ে ১৯৯০ সালে আমরা ওই মূর্তি দুটি প্রতিষ্ঠা করেছিলাম। আজ যারা তৃণমূলের অঙ্গুলিহেলনে আমার দিকে অভিযোগের আঙুল তুলছে সেই কংগ্রেস নেতারা কোনওদিন মূর্তি দুটিতে মালা পর্যন্ত দেয়নি। আমি নিয়ম করে মূর্তি দুটিতে মালা পরিয়েছি, রক্ষণাবেক্ষণ করেছি। তাই দেশবরেণ্য এই দুই নেতা নেত্রীর মূর্তি প্রতিষ্ঠা করার ক্ষেত্রে আমার কোনও সমস্যা হবে না।

Saradindu Ghosh

Published by:Shubhagata Dey
First published: