#EgiyeBangla: বিকল্প চাষে কৃষকদের উৎসাহ দিচ্ছে সরকার, ডাল-তৈলবীজ উৎপাদন কৃষকদের

#EgiyeBangla: বিকল্প চাষে কৃষকদের উৎসাহ দিচ্ছে সরকার, ডাল-তৈলবীজ উৎপাদন কৃষকদের

প্রথাগত ধান আলুর চাষ কমিয়ে বিকল্প চাষে কৃষকদের আকৃষ্ট করতেই একগুচ্ছ পরিকল্পনা নিয়েছে রাজ্য সরকার। অসেচযুক্ত জমিতে বাড়ছে ডাল ও তৈলবীজের চাষ।

  • Share this:

#বর্ধমান: রাজ্য সরকারের উৎসাহে ডাল, তৈল বীজের উৎপাদন ক্রমশ বাড়ছে। সরকারি সহায়তায় লাভের মুখ দেখতে পেয়ে খুশি কৃষকরা। প্রথাগত ধান আলুর চাষ কমিয়ে বিকল্প চাষে কৃষকদের আকৃষ্ট করতেই একগুচ্ছ পরিকল্পনা নিয়েছে রাজ্য সরকার। অসেচযুক্ত জমিতে বাড়ছে ডাল ও তৈলবীজের চাষ।

রাজ্যের শস্যভাণ্ডার হিসেবে পরিচিত পূর্ব বর্ধমান জেলায় ধান ও আলুর চাষ সবচেয়ে বেশি। এই জেলাতেও বাড়ছে বিকল্প চাষ। এবার বোরো চাষে জল দিতে পারবে না ডিভিসি। তাই ডাল ও তৈলবীজ চাষে কৃষকদের উৎসাহী করেছে কৃষি দফতর।

ডাল ও তৈলবীজ চাষ

---------------------------------

- পূর্ব বর্ধমানের ২৩টি ব্লকেই বিকল্প চাষ হচ্ছে

- আউশগ্রাম ১ ও ২, কালনা, পূর্বস্থলী ১ ও ২

- খণ্ডঘোষ ও রায়নায় বিকল্প চাষে বিশেষ সাফল্য মিলেছে

-গতবছর ১৩ হাজার হেক্টর জমিতে মুসুর, ছোলা, খেসারি ডাল চাষ হয়

-চলতি বছর ২১ হাজার হেক্টর জমিতে ডালশস্য চাষ হয়েছে

- গত বছর ২৮ হাজার হেক্টর জমিতে তৈলবীজের চাষ হয়

- চলতি বছরে ৩৪ হাজার হেক্টর জমিতে সরষে, তিল-সহ বিভিন্ন তৈলবীজ চাষ হয়েছে জমির স্বাস্থ্যের জন্যও ডালজাতীয় চাষ প্রয়োজন, একথা কৃষকদের বোঝাতে সক্ষম হয়েছে কৃষি দফতর। তাই উত্তরোত্তর বাড়ছে বিকল্প চাষ।

বিকল্প চাষে রাজ্যের উৎসাহ

-----------------------------

রাইস ফেলো টার্গেটেড এরিয়া প্রকল্পে এক ফসলি জমিকে বিকল্প চাষের মাধ্যমে দো ফসলি জমিতে পরিণত করা হয়েছে

-কৃষকদের বিনামূল্যে উন্নত প্রজাতির বীজ সরবরাহ করছে সরকার- অনুখাদ্য, বীজ শোধনের রাসায়নিক ও প্রয়োজনীয় পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে কৃষকদের

- বিনামূল্যে কীটনাশক সরবরাহ করছে সরকার

- চাষের শুরুতে কৃষকদের নিয়ে প্রশিক্ষণ শিবির হচ্ছে

- মাঠে নিয়ে গিয়ে চাষের পদ্ধতি দেখিয়ে দেওয়া হচ্ছে কৃষকদের

- চাষের অগ্রগতি নিয়মিত মাঠে গিয়ে খতিয়ে দেখছেন কৃষি আধিকারিকরা

আলু পচনশীল। লাভজনক দাম পেতে ধান অনেকদিন মজুত করে রাখতে হয়। ডাল ও তৈলবীজের নষ্ট হওয়ার ঝুঁকি কম, দামও মেলে ভাল। ধান ও আলু উৎপাদনে দেশে বিশেষ জায়গা করে নিলেও ডাল ও তৈল বীজ উৎপাদনে পিছিয়ে ছিল এরাজ্য। প্রথাগত ধান আলুর চাষ কমিয়ে বিকল্প চাষে কৃষকদের আকৃষ্ট করতে উদ্যোগী হয়েছে রাজ্য সরকার। কয়েক বছরে কৃষি দফতরের তৎপরতায় এরাজ্যে ডাল ও তৈলবীজের এলাকা অনেকটাই বেড়েছে।

First published: 11:04:16 AM Feb 18, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर