দক্ষিণবঙ্গ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

শীতের রাতে দুর্ঘটনা কমাতে অভিনব উদ্যোগ নিল পুলিশ!

শীতের রাতে দুর্ঘটনা কমাতে অভিনব উদ্যোগ নিল পুলিশ!

বিশেষ নজরদারী চলছে বীরভূমের জাতীয় সড়ক সংলগ্ন থানা এলাকা গুলিতে, যার মধ্যে রয়েছে নলহাটি, রামপুরহাট, মল্লারপুর, মহম্মদবাজার, সিউড়ী, সদাইপুর, দুবরাজপুর, খয়রাশোল থানা এলাকায়।

  • Share this:

#বীরভুম: শীতকালে ঘাতক রাতের কুয়াশা। প্রায়সই রাতে ঘটে পথ দুর্ঘটনা। মৃত্যুও ঘটার আশঙ্কা রয়েছে। সেই কথা চিন্তা করেই বীরভুম জেলা পুলিশের শীতের রাতে বিশেষ উদ্যোগ। গভীর রাতে বীরভূমের রাস্তা দিয়ে যাতায়াত করে অত্যাবশ্যকীয় পন্য বোঝাই যানবাহন। আবার বীরভূমের উপর দিয়েই গিয়েছে ১৪ নম্বর জাতীয় সড়ক। রাতেই ওই জাতীয় সড়ক দিয়ে যাতায়াত করে যানবাহন। এক রাজ্য থেকে আরেক রাজ্য বা এক জেলা থেকে এক জেলা পণ্য পরিবহনের জন্য দিবারাত্রী ওই জাতীয় সড়ক দিয়েই চলে যানবাহন। শীতকাল বলে যে জাতীয় সড়ক বা বীরভূমের অন্যান্য রাস্তায় রাতে যানবাহন চলাচল বন্ধ তা নয়, আর এই শীতের কুয়াশা ভরা রাতে যানবাহন চালাতে চালাতে চালকদের ঘুম আসাটা প্রায় ক্ষেত্রেই পথ দুর্ঘটনার কারন হয়ে দাঁড়ায়। কোন যানবাহন যাতে দুর্ঘটনার কবলে না পড়ে সেই লক্ষ্যেই বীরভূম জেলা পুলিশের বিশেষ উদ্যোগ৷ শীতের রাতে চালকদের সাথে রাত জেগে একটু সময় কাটিয়ে, একটু গল্প করে চা বা কফি খাইয়ে তাদের গন্তব্যস্থলে পাঠানো!

রাস্তায় গাড়ি থামিয় চালককে চোখে জল দিতে বলার অনুরোধ বীরভূম পুলিশের। পাশাপাশি কোনও চালক যদি ক্লান্ত থাকছেন, রাতে কোনও জায়গায় ঘুমানোর পরামর্শ দিচ্ছে পুলিশ। আবার কিছু কিছু ক্ষেত্রে দেখা যায় চালকরা রাতে মদ্যপ অবস্থায় যানবাহন চালাচ্ছে,  তাও চোখ এড়াচ্ছেনা পুলিশের। সেই সব চালকের বিরুদ্ধে আইনমাফিক ব্যাবস্থাও নেওয়া হচ্ছে জানিয়েছেন বীরভূমের জেলা পুলিস সুপার শ্যাম সিং। 

বিশেষ নজরদারী চলছে বীরভূমের জাতীয় সড়ক সংলগ্ন থানা এলাকা গুলিতে,  যার মধ্যে রয়েছে নলহাটি,  রামপুরহাট,  মল্লারপুর,  মহম্মদবাজার,  সিউড়ী,  সদাইপুর,  দুবরাজপুর,  খয়রাশোল থানা এলাকায়। এছাড়াও অন্যান্য থানা এলাকাগুলিতেও বিশেষ নজরদারি চলছে বলে জানা গিয়েছে। বীরভূম জেলা পুলিশের নজরদারিতে উঠে এসেছে শীতের রাতে আবহাওয়ার জন্য অনেক চালকের গাড়ি চালাতে চালাতে ঘুম চলে আসে,  আবার কুয়াশার জন্যও পথ দুর্ঘটনা ঘটে। তাই দুর্ঘটনা কমানোর লক্ষ্যে এই উদ্যোগ বলে জানা গিয়েছে।

Published by: Pooja Basu
First published: December 27, 2020, 12:48 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर