দক্ষিণবঙ্গ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

আউশগ্রামে রাস উৎসবে পাঁচদিন গ্রামবাসীদের মধ্যে আসেন রাধাবল্লভ জিউ

আউশগ্রামে রাস উৎসবে পাঁচদিন গ্রামবাসীদের মধ্যে আসেন রাধাবল্লভ জিউ

বর্ধমান রাজারা এই এলাকায় রাস উৎসবের সূচনা করেছিলেন।

  • Share this:

#পূর্ব বর্ধমান : পরিবার থেকে পাঁচ দিনের জন্য বেরিয়ে আসেন রাধাবল্লব জিউ। পারিবারিক মন্দিরের বদলে এই কদিন তাঁর স্থান হয় অস্থায়ী রাসমঞ্চে। এই পাঁচ দিন তিনি থাকেন গ্রামবাসীদের মধ্যে। এভাবেই রাজ আমল থেকে পূর্ব বর্ধমানের আউশগ্রামের ছোট রামচন্দ্রপুর গ্রামে রাস উৎসব পালিত হয়ে আসছে। অন্যান্যবার এই উৎসব উপলক্ষে ব্যাপক আড়ম্বর লক্ষ্য করা গেলেও এবার এই করোনা পরিস্থিতিতে নিয়ম রক্ষার রাস উৎসব পালিত হচ্ছে।

পূর্ব বর্ধমানের আউশগ্রামের দেবশালা পঞ্চায়েত এলাকার গ্রাম ছোট রামচন্দ্রপুর। এখানেই রাধাবল্লব জিউয়ের রাস উৎসবকে কেন্দ্র করে উৎসব মুখর হয়ে ওঠে। ছোট রামচন্দ্রপুর ও তার আশপাশের বিস্তীর্ণ এলাকা অন্তত ৩০ টি গ্রামের বাসিন্দারা রাস উৎসব উপলক্ষে এই গ্রামে ভিড় করেন।

বর্ধমান রাজারা এই এলাকায় রাস উৎসবের সূচনা করেছিলেন। রাজাদের উদ্যোগে উৎসবের আড়ম্বর ছিল দেখার মতো। তখন থেকেই ছোট রামচন্দ্রপুরে রাস উৎসবের প্রসার ঘটে। পরবর্তী সময়ে রাজবাড়ি থেকে পুজোর খরচ পাঠানো হতো। সেই রীতি মেনে রাধাবল্লব জিওকে কেন্দ্র করে রাস উৎসব হয়ে আসছে এই এলাকায়। এই উৎসবের জন্য সারা বছরের অপেক্ষায় থাকেন বাসিন্দারা।

রাজ আমলে প্রতিষ্ঠা পাওয়া রাধাবল্লভ জিউ এখন নিত্য পুজো পান ছোট রামচন্দ্রপুর গ্রামের অধিকারী পরিবারে। এই বিগ্রহ এখন পরিবারের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকলেও রাসের সময় তা হয়ে যায় গ্রামবাসীদের। রাস উপলক্ষে মূল মন্দির থেকে পাঁচশো মিটার দূরে অস্থায়ী রাসমঞ্চ নিয়ে আসা হয় রাধাবল্লব জিউকে। এরপর পাঁচ দিন ধরে চলে নাম সংকীর্তন। অন্নকূটে অগণিত বাসিন্দা যোগ দেন।

রাস উৎসবের উদ্যোক্তারা জানালেন, অন্নকূট এই রাস উৎসবের অন্যতম আকর্ষণ। উৎসবের আগে বিস্তীর্ণ এলাকা ঘুরে ঘুরে খরচ জোগাড় করা হয়। অন্যান্যবার দশ হাজারেরও বেশি বাসিন্দা অন্নকূটে অংশ নেন। তবে এবার করোনা পরিস্থিতির কারণে একেবারেই আড়ম্বর কমিয়ে আনা হয়েছে। শুধুমাত্র নিয়মরক্ষার রাস উৎসব পালিত হচ্ছে এবার। সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে স্বাস্থ্যবিধি মেনে যতটা করা সম্ভব ততটুকুই হচ্ছে এবারের রাস-উৎসবে।

Saradindu Ghosh

Published by: Debalina Datta
First published: November 30, 2020, 2:36 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर