গীতাঞ্জলি এক্সপ্রেসে উদ্ধার ছত্তিশগড়ের ব্যবসায়ীর দেহ, উদ্ধার কোটি টাকা !

খড়গপুরে ডাউন গীতাঞ্জলি এক্সপ্রেস থেকে উদ্ধার রায়পুরের ব্যবসায়ীর দেহ।

খড়গপুরে ডাউন গীতাঞ্জলি এক্সপ্রেস থেকে উদ্ধার রায়পুরের ব্যবসায়ীর দেহ।

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #খড়গপুর: খড়গপুরে ডাউন গীতাঞ্জলি এক্সপ্রেস থেকে উদ্ধার রায়পুরের ব্যবসায়ীর দেহ। নিহতের ট্রলি ব্যাগ থেকে মিলেছে নগদ প্রায় এক কোটি টাকা। উদ্ধার সোনার বিস্কুট, চেন। হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে সুভাষচন্দ্র সুরানার মৃত্যু হয়েছে বলে জানান চিকিৎসকরা। মৃতের পরিবারের দাবি, কলকাতা থেকে কাপড় কেনার জন্যই টাকা নিয়ে আসছিলেন তিনি। ঘটনার তদন্তে নেমেছে রেল পুলিশ।

    একটি মৃতদেহ, সঙ্গে কোটি টাকা ভর্তি ব্যাগ আর সোনা ! এইসবকে কেন্দ্র করেই শনিবার চাঞ্চল্য ছড়ায় খড়গপুর স্টেশনে। মুম্বই থেকে হাওড়াগামী ডাউন গীতাঞ্জলি এক্সপ্রেসের এস-ফোর কামরার যাত্রী ছিলেন রায়পুরের সুভাষচন্দ্র সুরানা। টাটানগরে তিনি হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন বলে খবর আসে খড়গপুরে। তৈরি থাকেন চিকিৎসকরা। বেলা সাড়ে এগারোটা নাগাদ খড়গপুরের ছ'নম্বর প্ল্যটফর্মে ঢোকে গীতাঞ্জলি এক্সপ্রেস। ততক্ষণে ওই ব্যক্তির মৃত্যু হয় বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা। এই পর্যন্ত কোনও চাঞ্চল্য না ছড়ালেও, জিআরপি-র চোখ কপালে ওঠে মৃতের সঙ্গে থাকা ট্রলি ব্যাগ খুলতেই। ব্যাগ ভর্তি শুধুই টাকা।

    মৃতের ব্যাগে কোটি টাকা

    - সুভাষচন্দ্র সুরানার ব্যাগে ছিল ৯৯ লক্ষ ৩ হাজার ৪৯০ টাকা - সাবান বাইরে থাকলেও প্যাকিং করা ছিল সাবান কেস - (তা দেখেই) সন্দেহ বাড়ে জিআরপি-র - সাবান কেস থেকে উদ্ধার (হয়) তিনটি সোনার বিস্কুট, একটি চেন

    IMG-20160820-WA0034

    ড্রাইভিং লাইসেন্স উদ্ধারের পর জানা যায়, ৬৫ বছরের সুভাষচন্দ্র সুরানা ছত্তিশগড়ের রায়পুরের বাসিন্দা। তিনি বিজেপি নেতা বরধাভান সুরানার দাদা। মৃতের পরিবারের দাবি, পেশায় বস্ত্র ব্যবসায়ী সুভাষচন্দ্র কলকাতায় কাপড় কিনতে আসছিলেন। ব্যবসায়িক কারণে তার যে কলকাতায় যাতায়াত ছিল, সেকথা জানানো হয়েছে মারওয়ারি সংগঠনের তরফেও।

    সত্যিই কি কাপড় কিনতেই এত টাকা নিয়ে আসা হচ্ছিল ? ঘটনার তদন্ত করছে জিআরপি।

    First published: