Home /News /south-bengal /
উত্তর ব্যারাকপুরের পুরসভায় কর্মবিরতিতে ৫০০ সাফাই কর্মী

উত্তর ব্যারাকপুরের পুরসভায় কর্মবিরতিতে ৫০০ সাফাই কর্মী

উত্তর ব্যারাকপুর পুরসভায় বুধবার থেকে কর্মবিরতি শুরু করলেন ৫০০ স্থায়ী ও অস্থায়ী সাফাই কর্মী। বেতন বৃদ্ধি ও অস্থায়ী কর্মীদের স্থায়ী করার দাবিতে অনির্দিষ্ট কালের জন্য কর্মবিরতির সিদ্ধান্ত নেন সাফাই কর্মীরা। তবে এক সপ্তাহের মধ্যে সমস্যার নিষ্পত্তি করার আশ্বাস দিয়েছে উত্তর ব্যারাকপুর পুরসভা। সাফাইকর্মীদের দাবি, বুধবারই তাদের সেব্যাপারে লিখিত প্রতিশ্রুতি দিতে হবে।

আরও পড়ুন...
  • News18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #ব্যারাকপুর: উত্তর ব্যারাকপুর পুরসভায় বুধবার থেকে কর্মবিরতি শুরু করলেন ৫০০ স্থায়ী ও অস্থায়ী সাফাই কর্মী। বেতন বৃদ্ধি ও অস্থায়ী কর্মীদের স্থায়ী করার দাবিতে অনির্দিষ্ট কালের জন্য কর্মবিরতির সিদ্ধান্ত নেন সাফাই কর্মীরা। তবে এক সপ্তাহের মধ্যে সমস্যার নিষ্পত্তি করার আশ্বাস দিয়েছে উত্তর ব্যারাকপুর পুরসভা। সাফাইকর্মীদের দাবি, বুধবারই তাদের সেব্যাপারে লিখিত প্রতিশ্রুতি দিতে হবে।

    বুধবার সকাল থেকেই কাজে যোগ দেননি উত্তর ব্যারাকপুর পুরসভার স্থায়ী ও অস্থায়ী সাফাই কর্মীরা। পুরসভার গেটে এদিন সকাল থেকেই অবস্থানে বসেন সাফাইকর্মীরা। অস্থায়ী কর্মীদের স্থায়ী করা  এবং বেতন বৃদ্ধির দাবিতে তাঁদের এই অবস্থান। সাফাই কর্মীদের অভিযোগ, দীর্ঘদিন ধরে তাঁরা নোংরা পরিষ্কার করে আসলেও তাঁদের দৈনিক মজুরি মাত্র ১৩০ থেকে ১৫০ টাকা। বামবোর্ড থাকাকালীনই তাঁদের আন্দোলন শুরু হয়। সাফাই কর্মীদের অভিযোগ, বামবোর্ড থাকাকালীন বর্তমান চেয়ারম্যান মলয় ঘোষ প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, পুরসভায় তৃণমূল বোর্ড আসলে তাঁদের সমস্ত দাবি পূরণ করা হবে। কিন্তু বোর্ড আসার পরে পাঁচ বছর পার হয়ে গেলেও সেই প্রতিশ্রুতি রাখা হয়নি। এই কর্মবিরতিতে অসুবিধায় পড়তে চলেছে ব্যারাকপুর পুরসভার অধীন নাগরিকরা। চেযারম্যান মলয় ঘোষ বলেন, ‘বিষয়টি আমি জানিয়েছিলাম উর্ধ্বতন কর্তৃক্ষকে। সুষ্ঠ ব্যবস্থা হবে। কিন্ত এই প্রতিশ্রুতিতে আর কান দিচ্ছেন না শ্রমিকরা। চেয়ারম্যান বলেন অবস্থান তুলে নিতে। সাত দিনের মধ্যে বিষয়টি নিষ্পত্তি হবে। কিন্তু অনড় শ্রমিকরা। তাঁদের দাবি, লিখিত দিতে হবে। ফলে অবস্থান চলছে। শ্রমিকদের দাবি মানা না পর্যন্ত পরিষেবা বন্ধ রাখা হবে। ফলে দুর্ভোগে পড়তে চলেছে সাধারণ মানুষ।

    First published:

    Tags: Barrackpore, Municipality, North Barrackpore, Strike

    পরবর্তী খবর