Home /News /south-bengal /

Howrah News|| গল্প হলেও সত্যি! ঘুরতে গিয়ে আস্ত একটি স্কুল তৈরী করে ফেললেন হাওড়ার যুবকরা

Howrah News|| গল্প হলেও সত্যি! ঘুরতে গিয়ে আস্ত একটি স্কুল তৈরী করে ফেললেন হাওড়ার যুবকরা

Howrah News: অন্ধকার গ্রামে হাওড়া যুবকের সাথে কাঁধে-কাঁধ মেলালেন মুর্মু বোন ও মান্ডি ভাইরা। ধামসা মাদল বাজিয়ে শুরু হয় স্কুল।

  • Share this:

#হাওড়া: অন্য আর পাঁচ জনের মতোই ঘুরতে গিয়েছিলেন ঝাড়গ্রামের ছোট্ট গ্রাম 'চিচুড়গড়িয়া'য়। সবুজে ঘেরা ছবির মতো সুন্দর গ্রাম। গ্রামে ঘুরতে ঘুরতে দেখা কিছু শিশুর সঙ্গে, কেউ ঘরের মাটির দেওয়ালে খেলার ছলে ছবি আঁকছিল, কেউ খেলাধুলায় ব্যস্ত ছিল।

করোনা কালে স্কুল বন্ধ, শহরের মতো এদের ছিল না অনলাইন স্কুল, তাই সকাল-বিকেল খেলা আর খেলা। হাওড়ার এক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার পাঁচ সদস্যরা সেই পরিস্থিতিতে ঠিক করে এই গ্রামে শিক্ষার বিস্তার করবে।এলাকায় ঘুরে ঘুরে জানা পাঁচেক শিক্ষিত যুবক যুবতীকে খুঁজে পায় তাঁরা।স্থানীয় যুবক-যুবতী সাগেন মান্ডি, বাসন্তী মুর্মু ও ফুলমনি মান্ডিরা অনেক দিন ধরেই লড়াই চালাচ্ছেন জঙ্গল মহলের অন্ধকারে ডুবে থাকা গ্রামকে আলোয় ফেরানোর।

গ্রামের শিক্ষিত যুবক যুবতীর আবেদনে হাওড়ার তাপস, রাকেশ, অরুন ও পৃথ্বীশরা রাজি হয়ে যায় শিক্ষা বিস্তারে, জানায় তাঁরা সব রকম সাহয্য করবে। তিরিশটি পরিবারের বাস এই গ্রামে। পড়ুয়ার সংখ্যা ২৫ থেকে ৩০ জন। তাদের বই খাতা দিয়ে সাহায্যের কথা বলতেই গ্রামবাসীরা তাদের কাছে জানায়, এই গ্রামে কোনও স্কুল নেই, স্কুলে পাঠাতে হলে গ্রামের মানুষদের ৪-৫ কিলোমিটার দূরে যেতে হয়। সারাদিন মাঠে-ঘাটে ঘুরে পেটের চাহিদা মেটাতেই হিমশিম অবস্থা হয় তার পর শিশুদের স্কুলে পাঠানোর সময় নেই তাদের| সংস্থার সদস্য পৃথ্বীশ কুন্তী জানায়, 'আমরা তখনই ঠিক করি এখানে একটি অবৈতনিক পাঠশালা তৈরী করব। আমাদের প্রস্তাব শুনেই গ্রামবাসীরা জায়গা ঠিক করে দেয়। এমনকি বাঁশ-প্লাস্টিক দিয়ে নিজেরাই তৈরী করে ফেলেন নিজেদের শিশুদের জন্য শিক্ষার মন্দির। শুরু হয় 'বর্ণপরিচয়'-র পথচলা।'

হাওড়ার স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার তরফে প্রত্যেক ছাত্রছাত্রীদের বই খাতা-সহ যাবতীয় শিক্ষার সরঞ্জাম দেওয়া থেকে শুরু করে স্কুলের সব দায়িত্ব গ্রহণ করা হয়। গ্রামেই স্কুল পেয়ে স্বভাবতই খুশি পড়ুয়া থেকে অবিভাবকরা। স্কুল শুরু হয় ধামসা মাদলের সুরে, কখনও অ-আ আবার কখনও A-B-C-D সুর ওঠে শিশু পড়ুয়াদের গলায়। কখনও শুধু রং নিয়ে খাতায় ফুটে তোলে মনের রং। এইভাবেই হাওড়ার একদল যুবকের চেষ্টায় ও স্থানীয় মুর্মু বোন ও মান্ডি ভাইদের পরিশ্রমে আজ 'চিচুড়গড়িয়া'তে বর্ণের পরিচয় শুরু ঘরে ঘরে।

Debasish Chakraborty

Published by:Shubhagata Dey
First published:

Tags: Howrah

পরবর্তী খবর