• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • ‘স্বাধীনভাবে কাজ করতে দিতে হবে,অনুব্রতর অনুগত হতে পারব না’, বিস্ফোরক অভিযোগ মমতার মন্ত্রীর

‘স্বাধীনভাবে কাজ করতে দিতে হবে,অনুব্রতর অনুগত হতে পারব না’, বিস্ফোরক অভিযোগ মমতার মন্ত্রীর

মন্ত্রীর অভিযোগ, অনুব্রত মণ্ডলের সঙ্গে কাজ করতে গিয়েই যত দ্বন্দ্ব। তাঁর অভিযোগ, মঙ্গলকোটে বালির অবৈধ কারবার চলছে। এমনকী সিদ্দিকুল্লার অনুগামীদের ফাঁসানো হচ্ছে মিথ্যে মামলায়।

মন্ত্রীর অভিযোগ, অনুব্রত মণ্ডলের সঙ্গে কাজ করতে গিয়েই যত দ্বন্দ্ব। তাঁর অভিযোগ, মঙ্গলকোটে বালির অবৈধ কারবার চলছে। এমনকী সিদ্দিকুল্লার অনুগামীদের ফাঁসানো হচ্ছে মিথ্যে মামলায়।

মন্ত্রীর অভিযোগ, অনুব্রত মণ্ডলের সঙ্গে কাজ করতে গিয়েই যত দ্বন্দ্ব। তাঁর অভিযোগ, মঙ্গলকোটে বালির অবৈধ কারবার চলছে। এমনকী সিদ্দিকুল্লার অনুগামীদের ফাঁসানো হচ্ছে মিথ্যে মামলায়।

  • Share this:

    #পূর্ব বর্ধমান: একের পর এক দলীয় কোন্দল প্রকাশ্যে ৷ ভোট যখন শিয়রে তখন ঘর সামলাতে নাজেহাল শাসকপক্ষ ৷ দলের নেতা মন্ত্রীদের একে অপরের বিরুদ্ধে ক্ষোভ ক্রমাগত বেড়েই চলেছে এবং সমস্ত আবরণ সরিয়ে তা সর্বসাধারণের সামনে প্রকট ৷ এবার বোমা ফাটালেন মন্ত্রী সিদ্দিকুল্লা চৌধুরী ৷ মুখ্যমন্ত্রীর ‘প্রিয়’ কেষ্টার বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ মঙ্গকোটের বিধায়কের মুখে ৷

    মঙ্গলকোটে ভোটের হাওয়া গরম ৷ অনুব্রত মণ্ডলের বিরুদ্ধে ‘বিস্ফোরক’ সিদ্দিকুল্লা ৷ ‘অনুব্রতর অনুগত হয়ে কাজ করতে পারব না। স্বাধীনভাবে কাজ করতে দিতে হবে।’ বিস্ফোরক মঙ্গলকোটের তৃণমূল বিধায়ক ও মন্ত্রী সিদ্দিকুল্লা চৌধুরী। বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল কোনও প্রতিক্রিয়া দেননি।

    একুশের আগে ভোটের হাওয়া গরম। একাধিক তৃণমূল বিধায়কের গলায় ক্ষোভের সুর। এবার বিস্ফোরক মঙ্গলকোটের বিধায়ক ও রাজ্যের মন্ত্রী সিদ্দিকুল্লা চৌধুরী । তাঁর নিশানায় বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল। মঙ্গলকোট এলাকায় তৃণমূল পর্যবেক্ষক ছিলেন অনুব্রত মণ্ডল ৷ এখন অনুব্রত পর্যবেক্ষকের দায়িত্বে না থাকলেও তিনিই দলীয় কাজকর্ম দেখেন ৷ মন্ত্রীর অভিযোগ, অনুব্রত মণ্ডলের সঙ্গে কাজ করতে গিয়েই যত দ্বন্দ্ব।

    মঙ্গলকোটের বিধায়ক ও মন্ত্রী সিদ্দিকুল্লা চৌধুরী বলেন, ‘ওঁর মেজাজ চিনি, জানি,গত নির্বাচনে তাদের ভূমিকা এলাকার মানুষ দেখেছে। ওই ঝুঁকি নিয়ে আমি হাত পোড়াতে যাব না। দল ওনাকে দায়িত্ব দিলে উনি দাঁড়াবেন, জেতাবেন, উনি বড় খেলোয়াড়, আমি তেমন খেলোয়াড় নই ৷ আমি মারামারি করতে চাই না।’ এখানেই শেষ নয়, তিনি বলেন, ‘অনেকেই বিজেপিতে যোগ দিয়েছে। ওঁর সঙ্গে কাজ করা যাচ্ছে না। সেই ছেলেরা বলছে ওঁরা বিজেপিতে যেতে চায়নি। ওঁর কারণেই বিজেপিতে গিয়েছে ৷’

    মঙ্গলবার পূর্ব বর্ধমানের জেলাশাসক ও পুলিশ সুপারের সঙ্গে দেখা করেন মন্ত্রী। নাম না করে অনুব্রতর বিরুদ্ধে তাঁর অভিযোগ, মঙ্গলকোটে বালির অবৈধ কারবার চলছে। এমনকী সিদ্দিকুল্লার অনুগামীদের ফাঁসানো হচ্ছে মিথ্যে মামলায়।

    তবে, বীরভূম তৃণমূল জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল এই নিয়ে কোনও প্রতিক্রিয়া দেননি। রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে, দলের মন্ত্রীর এই মন্তব্যে অস্বস্তিতে তৃণমূল। ভোটের আগে রাজ্যের মন্ত্রীর এই ধরনের কথায় তৃণমূলের কোন্দল ফের প্রকাশ্যে।

    Published by:Elina Datta
    First published: