রাত পোহালেই বীরভূমের জয়দেবে মকরস্নান, আঁটোসাটো নিরাপত্তা

রাত পোহালেই বীরভূমের জয়দেবে মকরস্নান, আঁটোসাটো নিরাপত্তা

মেলার নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ডিউটি করছেন ২ হাজার পুলিশকর্মী।

  • Share this:

#বীরভূম: রাত পোহালেই মকর স্নান বীরভূমের জয়দেব কেন্দুলীতে। তার আগেই পুণ্যার্থীরা আসতে শুরু করেছেন জয়দেবে। পুরুষ এবং মহিলাদের জন্য আলাদা আলাদা করে স্নানঘাট তৈরি করা হয়েছে জয়দেবের অজয় নদীতে। নিরাপত্তা ব্যাবস্থায় থাকছে প্রায় ২ হাজার পুলিশকর্মী, যার মধ্যে রয়েছে সাদা পোশাকের পুলিশ কর্মীও। পুরোটা সিসিটিভি আওতায়। চলছে ড্রোনের নজরদারি। মেলার নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ডিউটি করছেন ২ হাজার পুলিশকর্মী। রাত্রে যাতে পুণ্যার্থীদের কোনও অসুবিধা না হয় তাই থাকছে পর্যাপ্ত আলোর ব্যবস্থাও, সব মিলিয়ে সাজো সাজো রব এখন জয়দেবে। গতকাল মেলার নিরাপত্তা ব্যবস্থা খতিয়ে দেখে যান আই জি বর্ধমান রেঞ্জ ভারত লাল মিনা। ছিলেন বীরভূমের পুলিশ সুপার শ্যাম সিং সহ অন্যান্য আধিকারিকরাও। যে পরিমাণ পুণ্যার্থী স্নান করবেন তাদের যাতে কোনও সমস্যা না হয় সেই কারণে বারবার নিরাপত্তা ব্যাবস্থা খতিয়ে দেখা হচ্ছে প্রশাসনের তরফে। বীরভূম জেলার পুলিশ সুপার শ্যাম সিং বারবার গিয়ে নিরাপত্তাব্যবস্থা খতিয়ে দেখছেন। তবে যাকে ঘিরে এই মেলা, সেই জয়দেব মন্দিরের বিভিন্ন জায়গায় কিন্তু ফাটল ধরেছে, আগামী দিনে এই মন্দির যদি বিলুপ্ত হয়ে পড়ে তাহলে কী থাকবে এই মেলা? প্রশ্ন পুণ্যার্থীদের মধ্যে। যদিও বীরভূম জেলা পরিষদের মেন্টর অভিজিৎ সিংহ-এর অভি্যোগ কেন্দ্রীয় সরকার আর্কিওলজিক্যাল বিভাগ এই মন্দিরে সংরক্ষণের বোর্ড লাগালেও কোনও কাজ হয়নি। বারবার এই মন্দির সংরক্ষণের জন্য পুরাতত্ত্ব বিভাগের কে চিঠি লেখা হলেও কোনো উত্তর আসেনি।

First published: January 14, 2020, 2:23 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर