ফেরি সার্ভিস বন্ধ দীর্ঘদিন, নাকাল পুড়ুয়া থেকে গ্রামবাসীরা ! নীরব প্রশাসন

গ্রামের যাতায়াতের একমাত্র নদীপথে দীর্ঘদিন নৌকা চলাচল বন্ধ থাকায় নাকাল হতে হচ্ছে পড়ুয়া থেকে গ্রামবাসীদের।

Siddhartha Sarkar | News18 Bangla
Updated:May 15, 2017 08:47 PM IST
ফেরি সার্ভিস বন্ধ দীর্ঘদিন, নাকাল পুড়ুয়া থেকে গ্রামবাসীরা ! নীরব প্রশাসন
Representational Image
Siddhartha Sarkar | News18 Bangla
Updated:May 15, 2017 08:47 PM IST

#কাটোয়া :  গ্রামের যাতায়াতের একমাত্র নদীপথে দীর্ঘদিন নৌকা চলাচল বন্ধ থাকায় নাকাল হতে হচ্ছে পড়ুয়া থেকে গ্রামবাসীদের। প্রশাসনকে জানিয়েও কোন সুফল না পাওয়ায় প্রাণের ঝুঁকি নিয়ে কচি কাঁচা পড়ুয়া থেকে গ্রামবাসীরা হেঁটে নদী পার হচ্ছেন।

মহিলারা বাচ্চা কোলে করে তাদের সন্তানদের নদী পার করে স্কুলে পৌঁছে দিচ্ছেন। এই ডিজিটাল যুগে অসহায় জীবন যাপন করছেন কেতুগ্রাম ২ ব্লকের বেগুনকোলা গ্রামের বাসিন্দারা। গ্রামের নাম বেগুনকোলা, তিন দিকই অজয় নদ  এমনভাবে ঘিরে রেখেছে যে গ্রামবাসীদের শহরে বা স্কুলে আসতে হলে নদী পার করেই আসতে হবে। মহকুমা প্রশাসনের পক্ষে আগে ফেরি সার্ভিস চালু ছিল।এই ফেরিঘাট লাভজনক না থাকায় ফেরি লিজ দেওয়ার সময় কোনও ঠিকাদার বেগুনকোলা- কাটোয়া ফেরিঘাটের লিজ নিত না।

প্রশাসনের পক্ষ থেকেও বিষয়টি তেমন কেউ নজর দেয়নি বলে গ্রামবাসীদের অভিযোগ। ১২৫৪ জনের বাস এই গ্রামে ৷ তবুও গ্রামে নদী পারাপারের জন্য কোনও নৌকা না থাকায় বাধ্য হয়ে প্রাণ হাতে করে হেঁটেই অজয় নদ পার হতে হয় স্কুল পড়ুয়াদের। তারা কখনও ব্যাগ মাথায় করে আবার কখনও পোশাক খুলে গামছা পরেই নদী পার হচ্ছে। গ্রামের প্রবীণ ব্যক্তিদের অভিযোগ, ‘‘ প্রশাসনের অবহেলার শিকার হয়ে আমাদের গ্রামের মা, বোনদের ইজ্জত থাকছে না।’’ কাটোয়ার মহকুমা শাসক খুরশিদ আলি কাদরি ফেরি সার্ভিস বন্ধ থাকার কথা কার্যত মেনে নিয়ে বলেন, ‘‘ পড়ুয়াদের হয়রানি খুব শীঘ্রই বন্ধ করে ফেরি ব্যবস্থা করা হবে।’’

First published: 08:47:38 PM May 15, 2017
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर