corona virus btn
corona virus btn
Loading

অবশেষে ব্যান্ডেলের পুরাতাত্ত্বিক খুনের কিনারা

অবশেষে ব্যান্ডেলের পুরাতাত্ত্বিক খুনের কিনারা
Representational Image

অবশেষে ব্যান্ডেলের পুরাতাত্ত্বিক খুনের কিনারা

  • Share this:

 #ব্যান্ডেল: পুরাতাত্ত্বিক জিনিস নয়, ব্যাঙ্ক থেকে তোলা টাকা লুঠ করতেই খুন করা হয় অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপিকা সুলেখা মুখোপাধ্যায়কে। গ্রেফতার সুলেখাদেবীর পরিচারিকা মাধবী কর্মকার, তার স্বামী বিশু, রাজমিস্ত্রী সুবল সহ ৪ জন। টাকা ও সোনা লুঠ করতেই ২৫ অক্টোবর রাতে সুলেখাদেবীর বাড়ি ঢোকে এই চারজন।

পরিচিতদের হাতেই খুন হন ব্যান্ডেলের অধ্যাপিকা সুলেখা মুখোপাধ্যায়। টাকা লুঠ করতে এসে বাধা পেয়ে তাকে খুন করে দুস্কৃতীরা। সুলেখাদেবী চিনে ফেলতে পারেন, এই আশঙ্কা থেকেই খুন করা হয়। সুলেখাদেবীর মৃত্যুর তদন্তে নেমে চারজনকে গ্রেফতার করল পুলিশ। জালে সুলেখাদেবীর পরিচারিকা মাধবী কর্মকার সহ ৪ জন।

মাধবী কর্মকার - সুলেখাদেবীর পরিচারিকা

বিশু কর্মকার - মাধবীর স্বামী সুবল কর্মকার - রাজমিস্ত্রী গোর্খা পাসোয়ান - রাজমিস্ত্রীর সহকারী

এই চারজনই যে খুনি, তা আগেই উঠে এসেছিল ইটিভি নিউজ বাংলার অন্তর্তদন্তে। গণিতের অধ্যাপিকা। নেশা পুরাতত্ব। ব্যান্ডেলের বাসিন্দা সুলেখা মুখোপাধ্যায় খুনের পর তাই স্বভাবতই প্রশ্ন উঠে, ঘরভর্তি প্রাচীন ও দুস্পাপ্র জিনিস সংগ্রহেই কি খুন?

বাড়ি মেরামতি ও ব্যক্তিগত কাজের জন্যই বড় অঙ্কের টাকা তুলেছিলেন সুলেখাদেবী ৷ সেই টাকা লুঠ করতেই বাড়িতে ঢোকে দুস্কৃতীরা ৷ সুলেখাদেবীর সঙ্গে ধস্তাধস্তি হয় ৷ তাদের চিনে ফেলার আশঙ্কায় গলার নলি কেটে খুন করা হয় ৷ খুনে ব্যবহার করা হয় ফল কাটার ছুরি ৷ পুলিশকে ধোঁকা দিতে কৌশলে গোর্খাই ভিতর দিয়ে ঘরের দরজা বন্ধ করে ৷ তারপর দোতলার ছাদের চিলেকোঠা টপকে পালিয়ে যায় গোর্খা পাসোয়ান ৷ তাকে হাতিয়ার করেই অ্যালিবাই তৈরির চেষ্টা মাধবীর ৷

পুলিশকে বিভ্রান্ত করতে শেষ মুহুর্ত পর্যন্ত চেষ্টা চালায় ৪ জন। তাতে অবশ্য লাভ হয়নি।

First published: November 16, 2017, 1:41 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर