শাসক দলের বিরুদ্ধে ক্ষোভ ফুঁসছেন বাসিন্দারা! ভোট বয়কটের ডাক পূর্বস্থলীতে

শাসক দলের বিরুদ্ধে ক্ষোভ ফুঁসছেন বাসিন্দারা! ভোট বয়কটের ডাক পূর্বস্থলীতে

ভোট বয়কটের ডাক পূর্বস্থলীতে

ভোট ঘোষণা হওয়ার পরই রাজ্যের শাসকদলের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগড়ে দিচ্ছেন বাসিন্দারা। দেওয়ালে দেওয়ালে রং তুলি হাতে ভোট বয়কটের দাবি তুলছেন এলাকার যুবকরা। পূর্ব বর্ধমান জেলার পূর্বস্থলীতে এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে যথেষ্টই অস্বস্তিতে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস।

  • Share this:

#বর্ধমান: গ্রামে ঢোকার মুখ থেকে শুরু করে সব রাস্তাই বেহাল। ভোট ঘোষণা হওয়ার পরই রাজ্যের শাসকদলের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগড়ে দিচ্ছেন বাসিন্দারা। দেওয়ালে দেওয়ালে রং তুলি হাতে ভোট বয়কটের দাবি তুলছেন এলাকার যুবকরা। পূর্ব বর্ধমান জেলার পূর্বস্থলীতে এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে যথেষ্টই অস্বস্তিতে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস।

রাস্তা সারাই না হলে এলাকার কোনও বাসিন্দা ভোট দিতে বুথে যাবেন না বলে হুমকি দিচ্ছেন গ্রামের বাসিন্দারা। পূর্বস্থলী দু নম্বর ব্লকের নিমদহ পঞ্চায়েতের হরিশপুর গ্রামে অনুন্নয়নের প্রতিবাদে ভোট বয়কটের ডাক দিয়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। এই এলাকা পূর্বস্থলী উত্তর বিধানসভা কেন্দ্রের মধ্যে পড়ে। গত বিধানসভা নির্বাচনে এই বিধানসভা এলাকা থেকে বামফ্রন্ট জয়লাভ করেছিল।

গ্রামবাসীদের দাবি,আট মাস আগে রাস্তা তৈরির পরিকল্পনা চূড়ান্ত হয়েছিল। কিন্তু আজ পর্যন্ত নিয়ম মেনে প্রয়োজনীয় কাজ করা হয়নি। অভিযোগ, স্থানীয় এক জনপ্রতিনিধি নিজের প্রভাব খাটিয়ে ই-টেন্ডার থমকে রেখেছেন। তার ফলে রাস্তাটি হয়নি। রাস্তা তৈরি না হলে একটিও ভোট দেবেন না বলে এককাট্টা হয়েছেন গ্রামবাসীরা। ভোট বয়কটের দাবি তুলে দেওয়াল লিখন করছেন তাঁরা।

গ্রামবাসীদের অভিযোগ, অঞ্চল সভাপতি আকবর আলি সেখের জন্যই রাস্তা আটকে আছে। তাই তাঁর অপসারণ চেয়েও দেওয়াল লিখছেন গ্রামবাসীরা। ওই গ্রামে বসবাস করেন পঞ্চায়েতের জনস্বাস্থ্য ও পরিবেশ কর্মাধ্যক্ষ শেখ শহিদুল ইসলাম ও স্থানীয় পঞ্চায়েত সদস্য নাসিরুল বিবি। রাস্তা না হওয়াতে তাঁরাও অঞ্চল সভাপতি আকবর আলির বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছেন। ভোটের মুখে দলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে আসায় বিড়ম্বনায় পড়েছে তৃণমূল কংগ্রেস নেতৃত্ব।

এ বিষয়ে আকবর আলির বক্তব্য, আমার বিরুদ্ধে তোলা অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যে। ই টেন্ডার হয়েছিল। কিন্তু পঞ্চায়েত প্রধানের স্বাক্ষর না হওয়ার কারণে তা পাস হয়নি। নিমদহ পঞ্চায়েত প্রধান মিহির দাস বর্তমানে মুম্বইতে চিকিৎসাধীন। সেই কারণেই কাজ করা যায়নি। এ বিষয়ে পূর্বস্থলী উত্তরের তৃণমূল প্রার্থী তপন চট্টোপাধ্যায় বলেন, আমরা গ্রামবাসীদের সঙ্গে বসব। ভোট বয়কট হবে না। আলোচনার মাধ্যমে বাসিন্দাদের যেটুকু ক্ষোভ রয়েছে তা মিটিয়ে নেওয়া যাবে বলে আমরা আশাবাদী।

Saradindu Ghosh

Published by:Swaralipi Dasgupta
First published: