দক্ষিণবঙ্গ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

কার্জন গেটে সভা সমাবেশ বন্ধ হোক, চাইছেন বাসিন্দারাও

কার্জন গেটে সভা সমাবেশ বন্ধ হোক, চাইছেন বাসিন্দারাও

প্রশাসনের এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানাচ্ছেন তাঁরা।

  • Share this:

#বর্ধমান: রাজনৈতিক দলগুলির ভিন্ন ভিন্ন মত। তবে বর্ধমানের কার্জন গেটে চত্ত্বরে সভা সমাবেশ বন্ধ হোক চাইছেন শহরের বাসিন্দারা। প্রশাসনের এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানাচ্ছেন তাঁরা। বাসিন্দারা বলছেন, রাজনৈতিক দলগুলি সাধারন মানুষের কথা বলার নামে সমাবেশ আন্দোলন করে তাদের জীবনকেই দুর্বিষহ করে তোলে। সাধারন মানুষের কথা বলার নামে রাজনৈতিক ফায়দা লুটতেই তারা বেশি সক্রিয়। জনবহুল স্হানে ঘন্টার পর ঘণ্টা মাইকের চোঙ বাজিয়ে এসব বন্ধ হোক। বর্ধমানের কার্জনগেট চত্ত্বরে সভা সমাবেশ বন্ধ করতে উদ্যোগী হয়েছে জেলা প্রশাসন। যানজট ও সাধারন মানুষের হয়রানি থেকে মুক্তি দিতেই এমন ভাবনা প্রশাসনের। যদিও প্রশাসনের এই উদ্যোগে সহমতে পৌঁছতে পারেনি রাজনৈতিক দলগুলি। তারা বিকল্প হিসেবে নেতাজি মূর্তি সংলগ্ন এলাকার কথা বলেছেন। জেলা প্রশাসনের আধিকারিকরা বলছেন, কার্জন গেট চত্ত্বর এবং নেতাজি মূর্তির আশপাশ একই কথা হল। সেখানে সভা সমাবেশ হলে জটিলতা আরও বাড়বে। বর্ধমানে শহরের হৃৎপিন্ড কার্জন গেটের পাশেই বি সি রোড শহরের মূল বাজার এলাকা হিসেবে পরিচিত। সেখানের ব্যবসায়ীরা বলছেন, বেলা বারটা বাজলেই সভা সমাবেশ শুরু হয়ে যায়। মাইকের চোঙ বাঁধা হয় বহুদূর পর্যন্ত। কোনও শব্দবিধি না মেনে ভাষন চলে। একটা দলের কর্মসূচি শেষ হতে না হতে অন্য দলের সভা শুরু হয়ে যায়। মাইকের শব্দে কান ভোঁতা হয়ে গেল। রীতিমতো শব্দ যন্ত্রণার মধ্যে দিন কাটাতে হচ্ছে। এসব বন্ধ হলে তার চেয়ে ভালো কিছু হয়না।

শব্দ দূষণের সঙ্গে রয়েছে লাগামহীন যানজট। কার্জন গেটে সভা হলেই শক্তি প্রদর্শনের জন্য বাইরে থেকে গাড়ি ভাড়া করে হাজার হাজার লোক আনা হয়। সেসব গাড়ি রাখা হয় আশপাশের রাস্তা জুড়ে। অবরুদ্ধ হয়ে যায় জিটিরোড। বিপাকে পড়েন বাসিন্দারা। পাশেই রয়েছে মিউনিসিপ্যাল হাই স্কুল, মিউনিসিপ্যাল গার্লস স্কুল, টাউন স্কুল, সিএমএস, হরিজন, বানীপীঠ স্কুল। সভা সমাবেশের জন্য স্কুলে যেতে আসতে কার্জন গেট চত্ত্বর পার হতে হিমসিম খেতে হয়। বাসিন্দারা বলছেন, শুধু রাজনৈতিক দল নয়, শহরবাসীরও মতামত নিক প্রশাসন। সমীক্ষা হোক। বেশিরভাগ বাসিন্দা কার্জন গেটে সভা সমাবেশ না চাইলে তা কড়া হাতে বন্ধ করুক প্রশাসন।

Saradindu Ghosh

Published by: Ananya Chakraborty
First published: March 2, 2020, 12:35 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर