দক্ষিণবঙ্গ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

পচে লাল হয়ে যাওয়া চাল বিলি, রেশন ডিলারকে ঘেরাও করে তুমুল বিক্ষোভ বাসিন্দাদের

পচে লাল হয়ে যাওয়া চাল বিলি, রেশন ডিলারকে ঘেরাও করে তুমুল বিক্ষোভ বাসিন্দাদের

এর আগেও একাধিকবার এই ডিলারের বিরুদ্ধে নিম্নমানের খাদ্য সামগ্রী দেওয়ার অভিযোগ জানানো হয়েছিল। তারপরও খাদ্য দফতর থেকে কোনও রকম ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।

  • Share this:

Saradindu Ghosh

#বর্ধমান: পুজো মিটতে না মিটতে ফের রেশনে নিম্নমানের খাদ্য সামগ্রী দেওয়ার অভিযোগ উঠল পূর্ব বর্ধমানের ভাতারে। এবার খাবার অযোগ্য চাল দেওয়ার অভিযোগ উঠল ভাতারের বলগোনা রেল স্টেশন সংলগ্ন এক রেশন ডিলারের বিরুদ্ধে। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে বিক্ষোভে উত্তাল হয়ে ওঠে ওই এলাকা। রেশনে খাদ্য সামগ্রী বিলি বন্ধ করে দিয়ে বিক্ষোভে ফেটে পড়েন এলাকার বাসিন্দারা। উত্তেজনা দেখা দেওয়ায় ভাতার থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। গোলমালের খবর পেয়ে খাদ্য দফতরের এক আধিকারিক ঘটনাস্থলে গিয়ে বিক্ষোভের মুখে পড়েন। তাঁকেও ঘেরাও করে তুমুল বিক্ষোভ দেখায় গ্রামবাসীরা।

রেশনে পরিমাণে কম খাদ্য সামগ্রী দেওয়ার অভিযোগ উঠেছিল মাঝেমধ্যেই। তা নিয়ে জেলার বেশ কয়েকটি থানা এলাকায় ব্যাপক বিক্ষোভও হয়েছে। এ বার রেশনে নিম্নমানের চাল দেওয়ার অভিযোগ উঠলো। অভিযোগ, রেশনে দেওয়া চাল এতোই খারাপ যে নষ্ট হয়ে তা লাল রঙের হয়ে গিয়েছে। প্রতিবাদে চাল নিতে অস্বীকার করেন উপভোক্তারা। রেশন ডিলারকে ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখান উপভোক্তারা। খাদ্য দফতর ও প্রশাসনের আধিকারিকরা না আসা পর্যন্ত অবরোধ চলবে বলে হুমকি দেন বাসিন্দারা। গণবণ্টন ব্যবস্থার খাদ্য সামগ্রী বিলিবন্টন বন্ধ থাকার অভিযোগ পেয়ে ঘটনাস্থলে যান খাদ্য দফতর ও ভাতার ব্লক প্রশাসনের আধিকারিকরা। সেখানে গিয়ে খাদ্য দফতরের ইন্সপেক্টর বিক্ষোভের মুখে পড়েন।

গ্রামবাসীদের অভিযোগ, খাদ্য দফতরের নজরদারিতে রেশনে খাদ্য সামগ্রী বিলিবণ্টন হওয়া উচিত। এর আগেও একাধিকবার এই ডিলারের বিরুদ্ধে নিম্নমানের খাদ্য সামগ্রী দেওয়ার অভিযোগ জানানো হয়েছিল। তারপরও খাদ্য দফতপ্তর থেকে কোনও রকম ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। বাসিন্দাদের অভিযোগ, ভাল মানের চাল সরকার সরবরাহ করছে। অথচ রেশন ডিলার ও খাদ্য দফতরের কিছু অসাধু আধিকারিকের যোগসাজশে সেই চাল খোলাবাজারে বিক্রি করে দিয়ে নিম্নমানের চাল রেশনে বন্টন করা হচ্ছে।

যদিও এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন সংশ্লিষ্ট রেশন ডিলার। তাঁর বক্তব্য, ডিস্ট্রিবিউটর যে চাল সরবরাহ করেছে সেটাই উপভোক্তাদের দেওয়া হচ্ছে। ক্ষোভের মুখে পড়ে চাল পাল্টে দেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন প্রশাসনিক আধিকারিকরা। ভাতার ব্লক খাদ্য আধিকারিক বলেন, উপভোক্তাদের দাবি মেনে চাল পাল্টে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এই ধরনের অভিযোগ যাতে আর না ওঠে তাও দেখা হবে।

গ্রাহকদের অভিযোগ, এ বারেই প্রথম নয়, এর আগেও বেশ কয়েকবার নিম্নমানের চাল দেওয়া হয়েছিল। তখনও প্রতিবাদ করা হয়েছিল। কিন্তু তারপরেও পরিস্থিতির কোনও রকম পরিবর্তন না ঘটায় ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন বাসিন্দারা। এ বারও খাবার অযোগ্য চাল দেওয়া শুরু হতেই বিক্ষোভে ফেটে পড়েন তাঁরা।

পূর্ব বর্ধমান জেলায় রেশনে দুর্নীতির অভিযোগ উঠছে মাঝেমধ্যেই। ডিলার ঘর থেকে চাল চিনি খোলা বাজারে চলে যাচ্ছে বলে অভিযোগ উঠছে। এর আগেও দুর্নীতির অভিযোগে বেশ কয়েকজন রেশন ডিলারকে শোকজ করা হয়েছে। কয়েকজন রেশন ডিলারকে সাসপেন্ড পর্যন্ত করা হয়েছে। জেলা প্রশাসন জানিয়েছে, কোনও দুর্নীতি বরদাস্ত করা হবে না। গণবণ্টন ব্যবস্থায় স্বচ্ছতা বজায় রাখতে অভিযোগগুলি তদন্ত করে আইন মোতাবেক ব্যবস্থা নেবে খাদ্য দপ্তর।

Published by: Simli Raha
First published: November 3, 2020, 5:24 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर