corona virus btn
corona virus btn
Loading

রাজ আমলের রীতি মেনে সুসজ্জিত পালকি চেপে রথে উঠলেন লালজি, নিয়ম মেনে হল পুজো

রাজ আমলের রীতি মেনে সুসজ্জিত পালকি চেপে রথে উঠলেন লালজি, নিয়ম মেনে হল পুজো

রাজ আমলে পালকি ছিল স্বর্ণ অলংকার মনিমুক্ত খচিত। সেদিন অতীত হলেও এখনও সুদৃশ্য পালকিতে চড়ে বিশিষ্টজনেদের কাঁধে চেপে পালকিতে ওঠেন লালজি।

  • Share this:

Saradindu Ghosh

#বর্ধমান: প্রতি বছরের মতো এ বারও কালনায় পালকি চড়ে রথে উঠলেন লালজি। সেই রাজ আমল থেকে এই প্রথা চলে আসছে। করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে রথযাত্রা বন্ধ থাকলেও রাজ আমলের সেই প্রথা বজায় থাকল এ দিনও। অন্যান্য বারের মতোই রীতি মেনে পুজো হল লালজির। তবে অন্যান্য বারের মতো এ বার অগণিত ভক্তের ঢল ছিল না। আড়ম্বরহীনভাবে রথযাত্রা অনুষ্ঠিত হলেও পুজোয় নিষ্ঠার কোনও খামতি ছিল না।

বর্ধমান রাজাদের শাসনকার্য বর্ধমান শহর থেকে চললেও রাজবাড়ির সদস্যরা থাকতেন মূলত কালনায়। প্রথম দিকে বর্ধমানের রানীরা পালকিতে বর্ধমান যাতায়াত করতেন। সে জন্য বর্ধমান রাজপরিবারের রানীদের উদ্যোগে গঙ্গা তীরবর্তী কালনায় প্রচুর মন্দির গড়ে ওঠে। বর্ধমান রাজ পরিবারের উপাস্য দেবতা লালজিউ। অর্থাৎ কৃষ্ণ। রথযাত্রায় কালনায় বর্ধমান রাজবাড়ির রথে জগন্নাথ বলরাম শুভদ্রা নয়, ওঠেন লালজি। এখানে রাধাকৃষ্ণের রথযাত্রা হয়।

কালনা শহরে লালজি প্রতিবার রথে ওঠার আগে চড়েন পালকিতে। সুদৃশ্য সেই পালকি সাজানোর কাজ চলে কয়েকদিন আগে থেকেই। রাজ আমলে পালকি ছিল স্বর্ণ অলংকার মনিমুক্ত খচিত। সেদিন অতীত হলেও এখনও সুদৃশ্য পালকিতে চড়ে বিশিষ্টজনেদের কাঁধে চেপে পালকিতে ওঠেন লালজি।  রীতিমেনে এ বারও লালজি দেবতাকে রাজবাড়ি কমপ্লেক্স থেকে পালকিতে চাপিয়ে নিয়ে যাওয়া হল রথে। লালজির পালকির বাহকের কাজ করলেন কালনার মহকুমা শাসক সুমন সৌরভ মোহান্তি। তিনি অন্যান্যদের সঙ্গে পালকি কাঁধে নিয়ে লালজিকে রাজবাড়ি থেকে রথে নিয়ে যান।

সুদৃশ্য রথে চাপানো হয় লালজিকে। তা দেখতে ভিড় করেন অনেকে। রথ যখন ছিল তখন রশিও ছিল। পুণ্য অর্জনের জন্যে সেই রশি তুলে ধরেন অনেকেই। তাতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার কথা ভুললেন অনেকেই। তবে রথের রশিতে এ বার টান পড়ল না। রথে বসিয়ে লালজির রথযাত্রার বিশেষ পুজো হয়। সেই পুজো দেখেই এ বার অন্যরকম রথযাত্রার সাক্ষী থাকলেন বাসিন্দারা।

Published by: Simli Raha
First published: June 23, 2020, 5:10 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर