'রামসেতুই তো প্রাচীন ভারতের ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের নিদর্শন,' IIT খড়গপুরে বললেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী

মঞ্চে ভাষণ দিতে উঠে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বলে বসলেন, 'ভারত ও শ্রীলঙ্কার সমুদ্রে যে রামসেতু রয়েছে, তা তো প্রাচীন ভারতের প্রযুক্তি ও কারিগরির নিদর্শন৷' প্রসঙ্গত, ওই শিলাখণ্ডকে রামসেতু বলে দাবি করা হলেও, তার সপক্ষে উপযুক্ত প্রমাণ এখনও নেই৷

Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Aug 27, 2019 11:54 PM IST
'রামসেতুই তো প্রাচীন ভারতের ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের নিদর্শন,' IIT খড়গপুরে বললেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী
রমেশ পোখরিয়াল
Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Aug 27, 2019 11:54 PM IST

#খড়গপুর: ভরা সভায় এক বিচিত্র অস্বস্তিকর পরিবেশ৷ কোও ছাত্র-ছাত্রী হাততালি দিচ্ছেন না৷ থমথমে সভাঘর৷ মঞ্চে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী৷ ঘটনাস্থল আইআইটি খড়গপুর৷ কী রকম? আইআইটি খড়গপুরে ৬৫তম সমাবর্তনে যোগ দেন কেন্দ্রীয় মানব সম্পদ উন্নয়নমন্ত্রী রমেশ পোখরিয়াল৷

মঞ্চে ভাষণ দিতে উঠে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বলে বসলেন, 'ভারত ও শ্রীলঙ্কার সমুদ্রে যে রামসেতু রয়েছে, তা তো প্রাচীন ভারতের প্রযুক্তি ও কারিগরির নিদর্শন৷' প্রসঙ্গত, ওই শিলাখণ্ডকে রামসেতু বলে দাবি করা হলেও, তার সপক্ষে উপযুক্ত প্রমাণ এখনও নেই৷ তা মন্ত্রী দিব্য এটা বলে আইআইটি-র ছাত্র-ছাত্রীদের উদ্দেশ্য সমর্থন চান, বিষয়টি ঠিক কিনা৷ সবাই চুপ৷ কয়েক সেকেন্ড পর পোখরিয়াল ফের জিগ্গেস করেন, 'সহি কি নেহি?' কোনও উত্তর নেই৷ সবাই চুপ৷ ফের যখন জিগ্গেস করেন মন্ত্রী, তখন মৃদু হাততালি৷ স্বস্তি পেলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী৷

আইআইটি খড়গপুরের বর্ণময় ৬৫তম সমাবর্তন অনুষ্ঠানে এদিন মন্ত্রী শুধু ওইটুকু বলেই ক্ষান্ত থাকেননি পাশাপাশি ভারতের সেই সব প্রচীন কৃৎকৌশলকে সঙ্গে নিয়েই বেদ বেদান্ত সঙ্গে নিয়েই ২১ শতকের 'চুনোতিয়া' বা চ্যালেঞ্জ মোকাবিলার জন্য পরামর্শ দিয়েছেন আইআইটি-র সদ্য উর্ত্তীণ পড়ুয়াদের।

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বলেন, 'যখন রাম সেতু তৈরি হয় তখন আমেরিকা বা জার্মান তাদের প্রযুক্তি নিয়ে আসেনি। ভারত নিজেই তৈরি করেছে। এই ঐতিহ্য আমাদের তো আছেই তার সঙ্গে আধুনিক ভাবনা নিয়ে আমাদের সামনের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করতে এগিয়ে যেতে হবে।'

Loading...

আইআইটি খড়গপুরের ইতিহাসে ৬৫তম সমাবর্তন অতীতের সমস্ত রেকর্ড ভেঙে ৩৭২জন পড়ুয়াকে পিএইচডি প্রদান করেছে যা গতবারের তুলনায় ৭৭জন বেশি। ২হাজার ৮০২জনের হাতে এদিন কারিগরী ও প্রযুক্তি বিষয়ে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি তুলে দেওয়া হয়। আইআইটি খড়গপুরের অধিকর্তা অধ্যাপক শ্রীমান ভট্টাচার্য জানিয়েছেন, আইআইটি খড়গপুরের ইতিহাসে এতজন ছাত্রছাত্রীর পিএইচডি ডিগ্রি লাভ এই প্রথম।

First published: 11:54:11 PM Aug 27, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर