• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • চলন্ত ট্রেন থেকে উধাও গার্ড! ট্রেন দাঁড় করিয়ে খুঁজতে গিয়ে নদীতে তাঁর মৃতদেহ পেলেন চালক

চলন্ত ট্রেন থেকে উধাও গার্ড! ট্রেন দাঁড় করিয়ে খুঁজতে গিয়ে নদীতে তাঁর মৃতদেহ পেলেন চালক

গার্ডের মৃত্যু হল কীভাবে তা নিয়ে রহস্য দানা বাঁধতে শুরু করেছে।

গার্ডের মৃত্যু হল কীভাবে তা নিয়ে রহস্য দানা বাঁধতে শুরু করেছে।

গার্ডের মৃত্যু হল কীভাবে তা নিয়ে রহস্য দানা বাঁধতে শুরু করেছে।

  • Share this:

#বর্ধমান: ট্রেন ছাড়ার আগে গার্ডের সঙ্গে যোগাযোগ করেছিলেন চালক। কিন্তু তার তরফে কোনও সাড়া মেলেনি। বাধ্য হয়ে নিজের আসন ছেড়ে নিচে নেমে গার্ডের কেবিনে হেঁটে গেলেন,চালক। গিয়ে দেখলেন গার্ড সেখানে নেই। নিজের দায়িত্ব কর্তব্য ছেড়ে কোথায় গেলেন তিনি। ট্রেন দাঁড়িয়ে থাকল। চলল খোঁজাখুঁজি। এরপর অজয় নদীতে মিলল গার্ডের মৃতদেহ। বর্ধমান রামপুরহাট শাখায় পূর্ব বর্ধমানের ভেদিয়া রেল স্টেশনের কাছে এই ঘটনা ঘটেছে। গার্ডের মৃত্যু হল কীভাবে তা নিয়ে রহস্য দানা বাঁধতে শুরু করেছে।

ট্রেনে ডিউটিতে ছিলেন গার্ড। অজয় নদে সেই গার্ডের   মৃতদেহ উদ্ধারকে কেন্দ্র করে ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।  পূর্ব বর্ধমানের ভেদিয়া স্টেশনের কাছে অজয় নদের সেতুর ৩২ ফুঁকো এলাকা থেকে তাঁর মৃতদেহ  উদ্ধার হয়। মৃতের নাম দেবীপ্রসাদ গঙ্গোপাধ্যায় (৫৭)। তাঁর বাড়ি বীরভূমের নলহাটীতে।

রবিবার সকালে রামপুরহাট বর্ধমান স্টাফ স্পেশাল ট্রেনে তিনি কর্মরত ছিলেন।ট্রেন অজয় নদের ওপর সেতু পার করে ভেদিয়া ঢোকার পর ছাড়ার মুখে চালক গার্ডের সঙ্গে যোগাযোগ করতে চাইলে তাঁর অনুপস্থিতির বিষয়টি গোচরে আসে।

খোঁজাখুঁজির সময় একজন জানায় রেল সেতুর নীচে সাদা জামা পরা এক জনের দেহ ভাসছে। এরপর আউশগ্রাম থানার পুলিশ ওই গার্ডের মৃতদেহ উদ্ধার করে। পুলিশ মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য বর্ধমান পাঠিয়েছে।

পুলিশ ও রেল সূত্রে জানা গিয়েছে, ট্রেনটি অজয় নদ পার হওয়ার সময় এই ঘটনা ঘটেছে বলেই মনে হচ্ছে। এখন ওই গার্ড নিজে আত্মহত্যার জন্য চলন্ত ট্রেন থেকে ঝাঁপ দিলেন, নাকি দরজার সামনে দাঁড়িয়ে থাকার সময় অসাবধানে পড়ে গেলেন তা পরিষ্কার নয়। আবার এর পেছনে অন্য কোনও কারণও থাকতে পারে। মৃতদেহ ময়না তদন্তের জন্য বর্ধমান মেডিকেলের পুলিশ মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়না তদন্তের রিপোর্টে মৃত্যুর  কারণ সম্পর্কে অনেকটাই পরিষ্কার ধারণা পাওয়া যাবে বলে মনে করা হচ্ছে।

Saradindu Ghosh

Published by:Elina Datta
First published: