corona virus btn
corona virus btn
Loading

জরুরি পরিষেবা দিতেই হচ্ছে, খড়গপুরের ৬জন রেলকর্মী করোনা আক্রান্ত হওয়ার পর সাবধানী রেল

জরুরি পরিষেবা দিতেই হচ্ছে, খড়গপুরের ৬জন রেলকর্মী করোনা আক্রান্ত হওয়ার পর সাবধানী রেল
  • Share this:

ABIR GHOSHAL

#খড়গপুর: খড়গপুরের রেলের ৬ নিরাপত্তা রক্ষী করোনা পজিটিভ হওয়ায় নড়েচড়ে বসেছে রেলের ফ্রেট করিডর পয়েন্টগুলি। বিভিন্ন জায়গায় জল, সাবান ও স্যানিটাইজার রেখে দিতে বলা হয়েছে। বিশেষ করে বুকিং লবি, ক্যাব ও ইঞ্জিনে বিশেষ করে নজর দেওয়া হয়েছে।

যেহেতু, পণ্য পরিবহণের জন্য ভরসা রেলই। তাই এই কাজের সাথে যারা যুক্ত তাদের প্রতি বিশেষ নজর দেওয়া হয়েছে। এই লকডাউন পরিস্থিতিতে  আগামী ৩'রা মে অবধি দেশের বিভিন্ন প্রান্তে যাতে রেল মারফত যথাযথ ভাবে পণ্য সরবরাহ করা হয় সে বিষয়ে নজর দিতে বললেন রেল মন্ত্রকের আধিকারিকরা। অন্যদিকে শুক্রবার সকাল থেকেই রাজ্যের বিভিন্ন ফ্রেট টারমিনালে পণ্য পরিবহণের রেক এসে পৌছে গেছে। কয়লা থেকে চিনি সবই নিয়ে আসা হয়েছে তাতে। এখনও অবধি গোটা দেশে প্রায় ৩০০০ রেক অত্যাবশকীয় পণ্য পরিবহণের জন্য ব্যবহার করছে ভারতীয় রেল। পূর্ব রেলের তরফ থেকে কয়েকশো রেক ব্যবহার হয়েছে যার মধ্যে ১২১ টি রেকে থাকছে লৌহচূর্ণ, ৪৮ টি রেকে থাকছে স্টিল, ২৫ টি রেকে থাকছে সিমেন্ট, ২৮ টি রেকে থাকছে রাসায়নিক সার, ১০৬ টি রেকে থাকছে ওষুধ। এছাড়া ৪৭৪ টি রেকে সরবরাহ হচ্ছে দুধ, ফল ও শাক সবজি, নুন, চিনি, ভোজ্য তেল, পিঁয়াজ ও কয়লা। রেল সূত্রে খবর রাজ্য সরকারগুলির সাথে যোগাযোগ রেখেই চলছে এই পণ্য পরিবহণের কাজ। এদিন কলকাতায় নিউ আলিপুরে নিয়ে আসা হয় কয়লা। সিইএসসি'র বিদ্যুৎ পরিচালনার জন্য প্রয়োজন কয়লার। লকডাউনের সময় যাতে বিদ্যুৎ ঘাটতি না থাকে তাই রেল পথেই কয়লা নিয়ে আসা হয়েছে। রাজ্য বিদ্যুৎ সরবরাহ নিগমের জন্য কয়লা বিভিন্ন জায়গায় পৌছে যাচ্ছে বলে জানানো হয়েছে।

অন্যদিকে, কল্যাণীতে চিনি ও শুকনো খাবার নিয়ে আসা হল। সেখান থেকেই বাকি জায়গায় সরবরাহ করা হবে শুকনো খাবার।শুধুমাত্র পূর্ব রেলে ২০০ পণ্যবাহী রেল চলাচল করছে। যেখানে সরবরাহ করা হচ্ছে কয়লা, খাদ্যশস্য, লৌহ চূর্ণ, সার। এছাড়া মহারাষ্ট্র, তামিলনাড়ু, কেরালা থেকে আসছে আরও রেক। যাতে থাকছে ফল সহ শাকসবজি। এদিকে করোনা ভাইরাস সচেতনতায় বাজারে চাহিদা বাড়ছে স্যানিটাইজারের। আগামী ৩'রা মে অবধি লকডাউন থাকলে তার চাহিদা আরও বাড়বে। এই পরিস্থিতিতে এবার স্যানিটাইজার ও পিপিই তৈরি করার সংখ্যা বৃদ্ধি শুরু করল রেল। ভারতীয় রেলের যে সমস্ত প্রোডাকশন ইউনিট আছে সেখানেই এই স্যানিটাইজার তৈরি করা হচ্ছে। আপাতত অন্ডাল ডিজেল শেডে ৫০০ লিটারের এই স্যানিটাইজার তৈরি করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে রেলের কর্মীরা এগুলো ব্যবহার করবেন। পাঠানো হবে রেলের হাসপাতালগুলিতেও।

Published by: Simli Raha
First published: April 25, 2020, 12:39 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर