corona virus btn
corona virus btn
Loading

ট্রেন নেই... খাঁ খাঁ করছে সিউড়ি স্টেশন! পেশা বদলে কোনও মতে সংসার টানছেন ট্রেনের হকাররা

ট্রেন নেই... খাঁ খাঁ করছে সিউড়ি স্টেশন! পেশা বদলে কোনও মতে সংসার টানছেন ট্রেনের হকাররা

বিভিন্ন ট্রেনে হকারি করতেন এঁরা । কেউ বিক্রি করতেন ঝালমুড়ি, কেউ বিক্রি করতেন চা, আবার কেউ করতেন জুতো পালিশ। লকডাউনের জেরে ট্রেন বন্ধ । তাই বাধ্য হয়েই পেশা পরিবর্তন করেছেন তাঁরা।

  • Share this:

Supratim Das

#বীরভূম: বীরভূমের সিউড়ির হাটজন বাজার এলাকায় ৪০ থেকে ৪২ জন রেল হকারের বসবাস। সকাল হলেই এঁরা সিউড়ি রেল স্টেশন থেকে ট্রেনে চেপে নিজেদের ব্যবসার জন্য এদিক-ওদিক রওনা দিতেন । কেউ চলে যেতেন সাঁইথিয়া, কেউ চলে যেতেন অন্ডাল। বিভিন্ন ট্রেনে হকারি করতেন এঁরা । কেউ বিক্রি করতেন ঝালমুড়ি, কেউ বিক্রি করতেন চা, আবার কেউ করতেন জুতো পালিশ। লকডাউনের জেরে ট্রেন বন্ধ । সিউড়ি স্টেশন এখন খাঁ খাঁ করছে। কয়েকদিন চুপচাপ বসে ছিলেন তাঁরা । কিন্তু সংসার চলছিল না । তাই বাধ্য হয়েই পেশা পরিবর্তন করেছেন তাঁরা।

চা ওয়ালা হকার সুজয় দে এখন অনুষ্ঠান বাড়িতে রান্নার ঠাকুরের সহযোগী হিসেবে কাজ করছেন। ঝালমুড়ি বিক্রেতা সমীর সিং এখন মাছ বিক্রি করছেন। চা ওয়ালা আরেক হকার কালি প্রসাদ দে এখন সিউড়িতে জাতীয় সড়কে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ঠান্ডা জল বিক্রি করছেন। প্রত্যেকে অপেক্ষায় রয়েছেন কবে আবার ট্রেন চালু হবে । তাঁরা নিজেদের হকারের ব্যবসাতে ফিরে আসবেন। কারণ এই লাভে সংসার চলছে না তাঁদের। সরকারের দেওয়া রেশনের চালটুকুতে পেট ভরেছে ঠিকই, কিন্তু বাকি টাকায় সংসার চালাতে অসুবিধার মধ্যে পড়েছেন তাঁরা । তাই বাধ্য হয়েই পেশা পরিবর্তন।

সুজয় দে ট্রেনে ট্রেনে চা বিক্রি করে বেড়াতেন তাতে তাঁর লাভ হতো ভালই। বাড়িতে রয়েছে এক মেয়ে ও বউ । তিন জনের সংসার চালাতে হিমশিম খেতে হয়েছিল তাঁকে লকডাউন চলাকালীন। তাই বাধ্য হয়েই পেশা পরিবর্তন করে অনুষ্ঠান বাড়িতে রান্নার ঠাকুরের সহযোগী হিসেবে কাজ করে যা টাকা পাচ্ছে তাতে কোনও রকমে সংসার চলছে।

ঝালমুড়িওয়ালা সমীর সিং, তাঁর বাড়ির সদস্য চারজন । হিমশিম খেতে হচ্ছে তাঁকেও, তাই পেশা পরিবর্তন করে তিনি এখন মাছ বিক্রেতা । হাতে যা আছে তাই দিয়ে সংসার চলছে, কিন্তু সব সমস্যা মিটছে না, মাছ বিক্রির প্রতিযোগিতার এই বাজারে।

চা-বিক্রেতা কালীপ্রসাদ, তিনিও ট্রেনে ট্রেনে চা বিক্রি করে বেরিয়ে যা লাভ করতেন তাতে তাঁর সংসার ভালই চলত । কিন্তু বর্তমানে পেশা পরিবর্তন করে তিনি এখন সিউড়িতে জাতীয় সড়কের উপরে বিক্রি করছেন ঠান্ডা জলের বোতল, কখনও কলা, তো কখনও লিচু।  বিক্রি করে হাতে যা টাকা আসছে তাতে কোনও রকমে সংসার চলছে।

Published by: Simli Raha
First published: June 16, 2020, 9:06 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर