• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • PURULIA WORKER SUFFERING IN PERITONEAL LOOSE BODIES FROM 25 YEARS NOW HE IS WELL AFTER OPERATION SB

Bangla News: ভয়ংকর! ২৫ বছর ধরে পেটের মধ্যে ওটা কী? পুরুলিয়ার শ্রমিকের জীবনে যা ঘটল...

ভয়ংকর কাণ্ড

Bangla News: ডাক্তারি পরিভাষায় এর নাম পেরিটোনিয়াল জায়েন্ট লুজ বডি । পেটের গহ্বরের মধ্যে নিজের ইচ্ছেমতো অনায়াসে ঘুরে বেড়ানো একটি মাংসপিণ্ড।

  • Share this:

    #পুরুলিয়া: মাঝে মধ্যে পেট ব্যাথা হত। সমস্যা হত মল মূত্র ত্যাগেরও। গ্যাস, অম্বল লেগেই থাকত । মাঝেমধ্যে মনে হত পেটের মধ্যে বড়সড় কিছু রয়েছে। গত কুড়ি থেকে পঁচিশ বছর ধরে এভাবেই কাটছিল পুরুলিয়ার শ্রমিক মদন রজকের । চিকিৎসা যে একেবারে হয়নি তাও নয়। পুরুলিয়া ,জামশেদপুর ও বর্ধমানে চিকিৎসা করালেও কিছুতেই কিছু হয়নি । অবশেষে বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজে জটিল অস্ত্রোপচার করে চিকিৎসকরা বের করে আনেন প্রায় সাড়ে সাতশো গ্রাম ওজোনের টিউমার । আপাতত সুস্থ রোগী।

    ডাক্তারি পরিভাষায় এর নাম পেরিটোনিয়াল জায়েন্ট লুজ বডি । পেটের গহ্বরের মধ্যে নিজের ইচ্ছেমতো অনায়াসে ঘুরে বেড়ানো একটি মাংসপিণ্ড । কয়েক হাজার মানুষের মধ্যে এক’জন দু’জনের শরীরে হঠাত তৈরি হওয়া মাংস পিন্ড কখনো কখনো মারাত্মক আকার নেয় । মল মূত্র আটকে দিয়ে এই মাংস পিন্ড কখনো কখনো হয়ে ওঠে রোগীর মৃত্যুর কারণও । চিকিৎসকরা জানিয়েছেন বছর কুড়ি পঁচিশ আগে পুরুলিয়া জেলার মানবাজার ব্লকের জবলা গ্রামের বাসিন্দা মদন রজকের পেটের গহ্বরের মধ্যেও এমনই একটি মাংস পিন্ড তৈরি হয় । প্রথম প্রথম পেট ব্যাথার উপসর্গ দেখা দিত । বিষয়টিতে তেমন আমল না দিতেন না পেশায় জন মজুর মদন রজক । স্থানীয় চিকিৎসকের কাছে দু একবার চিকিৎসা করালেও তাঁরাও তেমন আমল দেননি ।

    আরও পড়ুন: ভবানীপুরে ভোট চেয়ে এবার জনস্বার্থ মামলা! ৮ সেপ্টেম্বরের দিকে নজর সব শিবিরের...

    বছর পাঁচেক আগে থেকে মদন রজকের শরীরে তৈরি হতে শুরু করে নিত্য নতুন সমস্যা । মল ,মূত্র অনিয়মিত হয়ে পড়ার পাশাপাশি গ্যাস, অম্বলে লাগাতার ভূগতেন মদন রজক । প্রথমে পুরুলিয়া দেবেন মাহাতো সদর হাসপাতাল ও পরে বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজে চিকিৎসার জন্য ছুটে যান মদন রজক । একসময় পার্শ্ববর্তী ঝাড়খন্ডের জামশেদপুরেও চিকিৎসা করিয়েছিলেন । কিন্তু অসুখ সারেনি । সম্প্রতি বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজের আউটডোরে চিকিৎসার জন্য আসেন তিনি । চিকিৎসকরা বিভিন্ন পরীক্ষা নিরীক্ষা করে দেখেন মদন রজকের পেটের গহ্বরের মধ্যে রয়েছে পেরিটোনিয়াল লুজ বডি । তার আকারও বেশ বড় ।

    এরপরই ওই রোগীর পেট কেটে ওই মাংসপিন্ড বের করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় । সম্প্রতি বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজের সার্জিক্যাল বিভাগের চিকিৎসক শিবশঙ্কর কুইরির নেতৃত্বে দশ জনের একটি টিম মদন রজকের শরীরে অস্ত্রোপচার করে বের করে আনেন প্রায় সাড়ে সাতশো গ্রাম ওজোনের এই মাংসপিন্ডকে । মাংসপিণ্ডর আকার দেখে রীতিমত হতবাক চিকিৎসক মহল । বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজ কর্তৃপক্ষের দাবি এই ধরনের বড় মাংসপিন্ড পেটের গহ্ব্বরের মধ্যে তৈরি হওয়া যেমন বিরল ঘটনা তেমনই এই অস্ত্রোপচারও যথেষ্ট জটিল । হাসপাতালের পরিকাঠামোগত উন্নতি ও চিকিৎসকদের চেষ্টার ফলেই এই ধরনের অস্ত্রোপচার সফল হয়েছে বলে দাবি বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজ কর্তৃপক্ষের । এতদিন ধরে চিকিৎসার পরে অবশেষে রোগী সুস্থ হয়ে ওথায় খুশি রোগীর পরিবারও ।

    Published by:Suman Biswas
    First published: