Home /News /south-bengal /
Purba Medinipur: মেলা আয়োজন হচ্ছে, কিন্তু তাতে কী পটশিল্পীদের পরিশ্রমের পট কিনছেন না কেউই

Purba Medinipur: মেলা আয়োজন হচ্ছে, কিন্তু তাতে কী পটশিল্পীদের পরিশ্রমের পট কিনছেন না কেউই

Purba Mediipur News: Century old pat shilpa is suffering

Purba Mediipur News: Century old pat shilpa is suffering

বিগত দু'বছরের করোনা পরিস্থিতি পটশিল্প কে আরও অসহায় করে তুলেছে।

  • Share this:

    #পূর্ব মেদিনীপুর:   হারিয়ে যাচ্ছে বাংলার লোকসংস্কৃতি ও লোকশিল্প। বাংলা লোক গান ও লোকশিল্পের অপূর্ব মেলবন্ধন ঘটেছে পট শিল্পে। পটশিল্পের চিত্রকরেরা একদিকে যেমন নিজেদের দক্ষ হাতে কাপড়ে রং তুলির মাধ্যমে ছবি আঁকে অন্যদিকে তারাই আবার লোক গান রচনা করে গেয়ে বেড়ায়। একসময় গ্রামে গ্রামে চিত্রকরেরা প দেখিয়ে গান গেয়ে টাকা রোজগার করতেন।

    ধীরে ধীরে অবলুপ্ত হয়ে চিত্রকরেরা নিজেরাই জিনিসপত্র বিক্রি করা শুরু করেছিল। একসময় হাতে আঁকা পটশিল্পের জিনিসপত্র বিক্রি ভালই ছিল। রোজগার হত ভাল। কিন্তু বর্তমানে পটশিল্পের কদর ক্রমশ কমছে। বিক্রি তলানিতে ঠেকেছে। পট শিল্পের জন্য বিখ্যাত পশ্চিম মেদিনীপুরের পিংলা হলেও পূর্ব মেদিনীপুরের হলদিয়া ও চন্ডিপুর বিভিন্ন ব্লকে চিত্রকর পাড়া রয়েছে। যারা সারা বছরই পটশিল্পের সঙ্গে যুক্ত। চিত্রকরেরা সারাবছর রঙ তুলি নিয়ে দেবদেবীর মূর্তি সহ বিভিন্ন ছবি আঁকেন।

    আরও পড়ুন - Birbhum News: বাড়ির চালের মধ্যে সাড়ে ছ' ভরি সোনার গয়না লুকিয়েছিলেন স্ত্রী, স্বামী না জেনেই দিলেন বেচে, তারপর...

    চন্ডিপুর ব্লকে হাবিবচক ও নানকারচক গ্রামে ১১৫ টি পরিবারের দেড়শ জন মানুষ পট শিল্পের সঙ্গে যুক্ত। বর্তমানে শুধু পট আঁকা নয়, মানুষের পরিধানযোগ্য বস্ত্র ও ব্যবহার্য জিনিসপত্র পটশিল্প ফুটিয়ে তোলে। বিগত দু'বছরের করোনা পরিস্থিতি পটশিল্প কে আরও অসহায় করে তুলেছে। পূর্ব মেদিনীপুর জেলার বিখ্যাত পটশিল্পী  আবেদ চিত্রকর জানিয়েছেন যে,  ‘‘পটশিল্পের জিনিসপত্রের আগের মত কদর নেই, বিক্রি কমেছে। সরকারি উদ্যোগে বছরে কয়েকটি মেলা আয়োজন করা হলেও বিক্রি নেই বললেই চলে। তাই বর্তমানে নিজেরাই উদ্যোগী হয়েছে বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যমে নিজেদের ভাস্কর্য বা সৃষ্টিকে  মানুষের কাছে তুলে ধরার প্রচেষ্টা করা হচ্ছে, যাতে বিক্রি হয়। বর্তমানে পাঞ্জাবি, শাড়ি, টি-শার্ট ওড়না নানান পরিধানযোগ্য পোশাকে পটশিল্পের কাজ চলছে।'’ প্রশাসন থেকে পটশিল্প বাঁচিয়ে রাখতে পর শিল্পকে একশো দিনের কর্ম প্রকল্পে অন্তর্ভুক্ত করার প্রয়াস করা হচ্ছে।

    Published by:Debalina Datta
    First published:

    Tags: Purba medinipur

    পরবর্তী খবর