• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • PURBA BARDHAMAN DISTRICT ADMINISTRATION STARTED PLANTING TREE IN SCHOOL PREMISES DURING LOCKDOWN DD

সব স্কুল পরিষ্কার করে বৃক্ষরোপণের কর্মসূচি নিল পূর্ব বর্ধমান জেলা প্রশাসন

এদিকে স্কুলের সমস্ত পড়ুয়ার হাতে তুলে দেওয়া হবে মাস্ক, এই পর্বে দেওয়া হবে ৬ লক্ষ মাস্ক

এদিকে স্কুলের সমস্ত পড়ুয়ার হাতে তুলে দেওয়া হবে মাস্ক, এই পর্বে দেওয়া হবে ৬ লক্ষ মাস্ক

  • Share this:

#পূর্ব বর্ধমান: একশো দিনের কাজের প্রকল্পে পূর্ব বর্ধমান জেলায় সব স্কুল পরিষ্কার করা ও সেখানে বৃক্ষ রোপণের পরিকল্পনা নিল পূর্ব বর্ধমান জেলা প্রশাসন। ইতিমধ্যেই সেই কাজ শুরু করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। পূর্ব বর্ধমানের জেলা শাসক বিজয় ভারতী জানান, গত কয়েক দিনে শিক্ষা দফতরের আধিকারিকদের নিয়ে বেশ কয়েকটি স্কুল পরিদর্শন করা হয়েছে। তারপরই স্কুলগুলি পরিষ্কার করার পাশাপাশি সেখানে বৃক্ষ রোপনের কর্মসূচি চূড়ান্ত করা হয়।

লকডাউনের শুরু থেকেই প্রাথমিক থেকে শুরু করে উচ্চ মাধ্যমিক পর্যন্ত সব স্কুল বন্ধ রয়েছে। টানা তিন মাসেরও বেশি সময় স্কুলগুলি পুরোপুরি অব্যবহৃত অবস্থায় পড়ে থাকায় স্কুল চত্বর অপরিষ্কার হয়ে পড়েছে। প্রচুর আগাছা জন্মেছে অনেক স্কুলে। আবার বর্ষায় স্কুলের সামনের অংশ জল কাদায় ভরে উঠেছে। তার পাশাপাশি বাইরের রাজ্য থেকে আসা পরিযায়ী শ্রমিকদের কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে রাখার জন্য এক হাজারের কাছাকাছি স্কুলকে ব্যবহার করেছিল জেলা প্রশাসন। এখনও ছশোর কাছাকাছি স্কুলে কোয়ারেন্টাইন সেন্টার রয়েছে। জেলাশাসক বিজয় ভারতী জানান, আর কয়েক দিনের মধ্যেই বেশিরভাগ স্কুল থেকেই কোয়ারেন্টাইন সেন্টার উঠে যাবে।সেই সব স্কুলগুলিকে স্যানিটাইজ করা হবে। শুধু সেই স্কুলগুলিই নয়,জেলার প্রতিটি স্কুলকে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করে তোলার পর সেখানে বৃক্ষরোপণের পাশাপাশি জীবাণুমুক্ত করা হবে। ইতিমধ্যেই তার প্রস্তুতি নেওয়া শুরু হয়ে গিয়েছে। একশো দিনের কাজ প্রকল্পে এলাকার জব কার্ড প্রাপ্ত বাসিন্দাদের সেই কাজে যুক্ত করতে বলা হয়েছে।

জেলাশাসক জানান, জুলাই মাসের পর স্কুলের পঠন পাঠন শুরু করা যাবে বলে আশা করা হচ্ছে। স্কুল খুললে প্রাথমিক, মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক,মাদ্রাসা, এসএসকে,এমএসকে সহ শিশু শ্রমিক স্কুলগুলির প্রত্যেক পড়ুয়াকে একটি করে মাস্ক দেওয়ার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। আমাদের জেলায় মোট ছ লাখ পড়ুয়া রয়েছে। প্রত্যেককে একটি করে মাস্ক দিতে এক কোটি চুয়াল্লিশ লক্ষ টাকা খরচ হবে। স্বনির্ভর গোষ্ঠীগুলিকে দিয়ে সেই মাস্ক তৈরি করানো হচ্ছে। এর ফলে সেই গোষ্ঠীগুলিও আর্থিক দিক দিয়ে স্বনির্ভর হয়ে উঠবে।

Saradindu Ghosh

Published by:Debalina Datta
First published: