corona virus btn
corona virus btn
Loading

বর্ধমান শহরে বেসরকারি মিনি বাস চলাচল শুরু হল

বর্ধমান শহরে বেসরকারি মিনি বাস চলাচল শুরু হল

তবে বাস মালিকরা বলছেন, বাসের বেশিরভাগ সিটই ফাঁকা থেকে যাচ্ছে। যাত্রী মিলছে খুবই কম।

  • Share this:

#বর্ধমান: দীর্ঘ লকডাউনের পর স্বাভাবিক ছন্দে ফেরার পথে বর্ধমান শহর। প্রায় আড়াই মাস পর বর্ধমানের শহরের রাস্তায় ফের বেসরকারি টাউন সার্ভিস বাসের চাকা গড়াতে শুরু করলো। গতকাল এবং আজ দুদিনে বিভিন্ন রুটে বেশ কয়েকটি বেসরকারি বাস পথে নেমেছে। ধীরে ধীরে কয়েকদিনের মধ্যেই বেসরকারি টাউন সার্ভিস বাস চলাচল স্বাভাবিক হয়ে যাবে বলে আশা করছে জেলা প্রশাসন। ইতিমধ্যেই প্রশাসনের কাছে ভাড়া বাড়ানোর আর্জি জানিয়েছিল বেসরকারি মিনিবাস মালিকরা। তবে ভাড়া বাড়ানোর ব্যাপারে এখনও কোনও ফয়সালা না হলেও বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে বিবেচনা করা হবে বলে প্রশাসনিক আশ্বাস মিলেছে।

বর্ধমান শহরে এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে যাতায়াতের জন্য বাসিন্দারা টোটোর পাশাপাশি টাউন সার্ভিস বাস এর উপর নির্ভরশীল। জি টি রোড সহ বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ রাস্তায় বেসরকারি টাউন সার্ভিস বাসই একমাত্র ভরসা বাসিন্দাদের কাছে। মাঝারি বা ছোট রাস্তাগুলি যেখানে বাস চলাচল করে না সেই সব রাস্তায় টোটো বা রিকশর প্রাধান্য রয়েছে। রাজ্য সরকার বেসরকারি বাস চলাচলে অনুমতি দেওয়ার পরেই জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বর্ধমানের বেসরকারি বাস চলাচলের উদ্যোগ নেওয়া হয়। এ ব্যাপারে বর্ধমান শহরের মিনি বাস মালিকদের সঙ্গে জেলা প্রশাসনের বৈঠক হয়। তবে সেই বৈঠকে ভাড়া বাড়ানোর আবেদন জানায় কয়েকটি সংগঠন। তারই মধ্যে শুরু হয়েছে বেসরকারি মিনিবাস চলাচল। তাতে উপকৃত হচ্ছেন নানা প্রয়োজনে পথে বেরোনো যাত্রীদের অনেকেই। বর্ধমান মিনিবাস ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের সম্পাদক প্রদীপ বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, বর্ধমান শহরে বিভিন্ন রুটে ছিয়াশিটি বেসরকারি মিনিবাস চলাচল করে। গত কয়েক দিনে ধাপে ধাপে চৌত্রিশটি বাস চলাচল শুরু হয়েছে। আগামী দু-একদিনের মধ্যে আরও বেশ কয়েকটি বাস রাস্তায় নামবে বলে খবর রয়েছে।

তবে বাস মালিকরা বলছেন, বাসের বেশিরভাগ সিটই ফাঁকা থেকে যাচ্ছে। যাত্রী মিলছে খুবই কম। তাঁরা বলছেন, এখনও সেভাবে শহরের বাইরে রুটের বাস চলাচল করছে না। লোকাল ট্রেন চলাচল বন্ধ রয়েছে। তার ফলে জেলার অন্যান্য অংশ বা পাশের জেলার বাসিন্দারা বর্ধমান শহরে আসতে পারছেন না। তার ওপর অফিস কাছারি স্কুল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এখনও বন্ধ রয়েছে। সেসব কারণেই যাত্রী না মেলায় অনেকেই রাস্তায় বাস নামানোর আগ্রহ হারাচ্ছেন। তাই সকাল দুপুর বা বিকেল পর্যন্ত বাস চলাচল করলেও সন্ধ্যায় বা রাতে রাস্তা শুনশান হয়ে যাওয়ায় অনেক বাসেরই দেখা মিলছে না।

SARADINDU GHOSH

Published by: Piya Banerjee
First published: June 3, 2020, 6:50 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर