অকাল বৃষ্টির জেরে এবার পেঁয়াজের পর আকাশ ছোঁয়া হতে চলেছে আলুর দাম

অকাল বৃষ্টির জেরে এবার পেঁয়াজের পর আকাশ ছোঁয়া হতে চলেছে আলুর দাম

এমনিতেই বুলবুলের কারনে দেরিতে চাষ হওয়ায় বাজারে এখনও সেভাবে নতুন আলুর দেখা নেই। পুরনো আলুর মজুতও শেষ। ফলে আলুর দাম বেড়েই চলেছে।

  • Share this:

#বর্ধমান: অকাল বৃষ্টিতে ফের ক্ষতির আশঙ্কা আলু চাষে। বৃহস্পতিবার রাত থেকে টানা বৃষ্টিতে পূর্ব বর্ধমান জেলার অনেক আলু জমিতেই জল দাঁড়িয়ে গিয়েছে। বৃষ্টি অব্যাহত থাকলে এই আলু পচে যেতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন কৃষকরা। এমনিতেই বুলবুলের কারনে দেরিতে চাষ হওয়ায় বাজারে এখনও সেভাবে নতুন আলুর দেখা নেই। পুরনো আলুর মজুতও শেষ। ফলে আলুর দাম বেড়েই চলেছে। এরপর এই প্রতিকূল আবহাওয়ায় ফলন মার খেলে পেঁয়াজের মতো আলুর দামও আকাশ ছোঁয়ার পথে পা বাড়াবে।

বৃহস্পতিবার রাত থেকে পূর্ব বর্ধমানের প্রায় সর্বত্রই দফায় দফায় মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টি হয়েছে। সেই বৃষ্টির জেরে কালনা, ভাতার, মন্তেশ্বর, পূর্বস্থলী, মেমারি, শক্তিগড়ের বেশিরভাগ আলু জমিতেই জল দাঁড়িয়ে গিয়েছে । জমি শুকোনোর আগেই ফের এই বৃষ্টি আলু চাষের পক্ষে বেশ ক্ষতি করতে পারে। জমিতে জল দাঁড়িয়ে থাকলে আলু পচে যেতে পারে। এমনটাই আশঙ্কা করছেন রাজ্যের শস্য ভান্ডার হিসেবে পরিচিত পূর্ব বর্ধমান জেলার কৃষি দফতর। ক্ষতির আশঙ্কা থাকছে শীতকালীন সবজিতেও।

এই আশঙ্কা সত্যি হলে আলুর ফলন মার খাবে। তাতে আলুর দাম আরও বাড়তে পারে। সব মিলিয়ে বৃষ্টির জেরে মাথায় হাত কৃষকদের। আলু চাষীদের বক্তব্য, জলের অভাবে প্রথমে আলু চাষ শুরু করা যায়নি। বিকল্প সেচের মাধ্যমে চাষ করার পর বুলবুলে তা নষ্ট হয়ে যায়। এখন আলু ওঠার মুখে এই বৃষ্টি ফের ক্ষতির মুখে দাঁড় করিয়ে দিয়েছে। চড়া দামে বীজ কিনে ধার দেনা করে চাষ করে এখন লোকসানের মুখে পড়তে হচ্ছে।

গতবার পূর্ব বর্ধমান জেলায় ৫২ হাজার হেক্টর জমিতে আলু চাষ হয়েছিল। এবার এখনও পর্যন্ত ৭২ হাজার হেক্টর জমিতে আলু চাষ হয়েছে। কৃষকরা বলছেন, এই বৃষ্টি আরও চললে আলুর আর কিছুই অবশিষ্ট থাকবে না। পাশাপাশি খামখেয়ালি আবহাওয়ার জেরে এখন শীতকালীন সবজিরও দাম বাড়ার আশঙ্কা।

First published: January 3, 2020, 5:52 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर