হোম /খবর /দক্ষিণবঙ্গ /
খালাসির স্ত্রীর সঙ্গে ট্রাক চালকের প্রেম! খড়্গপুরে গুলি কাণ্ডে রহস্যভেদ পুলিশের

Crime News: খালাসির স্ত্রীর সঙ্গে ট্রাক চালকের প্রেম! খড়্গপুরে গুলি কাণ্ডে রহস্যভেদ পুলিশের

এই জায়গাতেই গুলি চলে বলে গল্প ফেঁদেছিল ট্রাক চালক৷

এই জায়গাতেই গুলি চলে বলে গল্প ফেঁদেছিল ট্রাক চালক৷

গত ২৫ নভেম্বর ভোর রাতে খড়্গপুর লোকাল থানার অন্তর্গত জকপুর এলাকায়, ৬০ নম্বর জাতীয় সড়কের উপরে ঘটনাটি ঘটে। সেই সময় জানা গিয়েছিল, দু'জন দুষ্কৃতী মোটরবাইকে করে এসে ট্রাক ছিনতাই করার চেষ্টা করে।

  • Share this:

#শঙ্কর রাই, খড়্গপুর: যেন নিখুঁত এক ক্রাইম থ্রিলার! খালাসি'র স্ত্রীর সঙ্গে অবৈধ সম্পর্কে জড়িয়েছিলেন ট্রাকের চালক। খালাসিকে 'খুন' করে তাই পথের কাঁটা সরাতে চেয়েছিল দু'জনে মিলে। পরিকল্পনামাফিক তাই গত ২৫ নভেম্বর (শুক্রবার) ভোর রাতে, খড়্গপুর গ্রামীণ সংলগ্ন জকপুর এলাকায় জাতীয় সড়কের উপর খালাসিকে স্ক্রু-ড্রাইভার দিয়ে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা করেছিলেন চালক। হয়তো ভেবেছিল মৃত্যুও হয়েছে!

এর পরেই, জাতীয় সড়কের উপর ছিনতাইয়ের চেষ্টা এবং গুলি চলার গল্প সাজিয়েছিল ট্রাক চালক আমিনুর হক। পুলিশকে বিভ্রান্ত করতে, ট্রাকের সামনের কাঁচে স্ক্রু-ড্রাইভার দিয়ে ফুটোও করেছিল সে! তবে, তাতেও শেষ রক্ষা হলোনা! প্রেমিকা সহ ধরা পড়তে হল পুলিশের জালে। অন্যদিকে, কলকাতার এসএসকেএম হাসপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে আহত খালাসি! খালাসির স্ত্রী তামান্না বিবি এবং চালক আমিনুর হককে সোমবার গ্রেফতার করে মেদিনীপুর আদালতে তুলেছিল খড়্গপুর গ্রামীণ থানার পুলিশ। দু' জনকে বিচারক ৯ দিনের পুলিশ হেফাজতে পাঠিয়েছেন৷

আরও পড়ুন: গলায় গেঁথে আস্ত ত্রিশূল, এনআরএসে নতুন জীবন পেলেন যুবক! ধৃত এসএফআই নেতা

সোমবার বিকেলে একটি প্রেস বিবৃতি জারি করে জেলা পুলিশ সুপার দীনেশ কুমার জানিয়েছেন, "মাত্র ৩৬ ঘণ্টার মধ্যে এই ভয়ঙ্কর চক্রান্ত বা খুনের চেষ্টার ষড়যন্ত্রের রহস্য উন্মোচন করে অপরাধীদের গ্রেফতার করার জন্য খড়্গপুর মহাকুমা পুলিশ তথা খড়্গপুর গ্রামীণ থানার পুর টিমকে ১০ হাজার টাকা আর্থিক পুরস্কারে সম্মানিত করা হচ্ছে জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে।"

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত ২৫ নভেম্বর ভোর রাতে খড়্গপুর লোকাল থানার অন্তর্গত জকপুর এলাকায়, ৬০ নম্বর জাতীয় সড়কের উপরে ঘটনাটি ঘটে। সেই সময় জানা গিয়েছিল, দু'জন দুষ্কৃতী মোটরবাইকে করে এসে ট্রাক ছিনতাই করার চেষ্টা করে। বাধা পেয়ে গুলি চালায় দুষ্কৃতীরা। দু'তিন রাউন্ড গুলি চলে বলে অনুমান করা হয়। ট্রাকের খালাসি নাজমুল সাকিনকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে মেদিনীপুর মেডিক্যাল ও পরে এসএসকেএম হাসপাতালে পাঠানো হয়। তাঁকে খুব কাছ থেকে গুলি চালানো হয় বলে পুলিশকে জানায় অপেক্ষাকৃত কম আহত ট্রাকের চালক।

আরও পড়ুন: ফের দিল্লি! বাঙালি প্রৌঢ়ের দেহ ফ্রিজে, রোজ রাতে দেহাংশ ফেলতে যেত স্ত্রী ও ছেলে

এর পরই, তদন্ত নেমে পুলিশ জানতে পারে, মেডিক্যাল রিপোর্টে গুলির আঘাতের কথা উল্লেখ নেই! তবে, মাথায় গভীর ক্ষত নিয়ে এই মুহূর্তে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছেন কেশপুর ব্লকের মুগবসান এলাকার বাসিন্দা তথা ট্রাকের খালাসি নাজমুল। এ দিকে, ট্রাকের সামনের কাঁচেও যে দুটি গুলি চলার মতো দাগ দেখতে পায় পুলিশ, তা নিয়েও সন্দেহ হয়। এর পরই, ট্রাকের চালককে টানা জিজ্ঞাসবাদ করতেই নানা অসঙ্গতি ধরা পড়ে! এর পর, খালাসির স্ত্রীর সঙ্গে তাঁকে বসিয়ে জেরা করে পুলিশ। জেরায় ক্রমশ ভেঙে পড়ে দু'জনই। সত্য উদঘাটিত হয়।

দু'জনেই সম্পর্কের কথা স্বীকার করেন। এমন কি, খালাসির মৃত্যুর পর দু'জনে বিয়ে করার পরিকল্পনা করেছিল বলে জানায়। পথের কাঁটা সরাতেই তাই নাজমুলকে হত্যার চেষ্টা! অভিযুক্তদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেছেন এলাকাবাসী।

Published by:Debamoy Ghosh
First published:

Tags: Crime News, Kharagpur, Paschim medinipur