• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • Bardhaman News: মাস্ক না পরে বেরোচ্ছেন? পুলিশ কিন্তু আপনার উপর নজর রাখছে! যা ঘটছে বর্ধমানে...

Bardhaman News: মাস্ক না পরে বেরোচ্ছেন? পুলিশ কিন্তু আপনার উপর নজর রাখছে! যা ঘটছে বর্ধমানে...

করোনায় কড়া হচ্ছে পুলিশ

করোনায় কড়া হচ্ছে পুলিশ

Bardhaman News: ফের চোখ রাঙাচ্ছে করোনা, কী উদ্যোগ নিল পূর্ব বর্ধমান জেলা পুলিশ?

  • Share this:

#বর্ধমান: পুজো মিটতেই চোখ রাঙাচ্ছে করোনার সংক্রমণ। কলকাতার পাশাপাশি পূর্ব বর্ধমান জেলাতেও আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলেছে (Corona in Bardhaman)। তার সঙ্গে তাল মিলিয়ে বেড়েছে বাসিন্দাদের মাস্ক না পরার প্রবণতা। সংক্রমণে লাগাম টানতে এবার বর্ধমানের রাজপথে অভিযানে নামল পুলিশ। বাসিন্দাদের মাস্ক পরা নিশ্চিত করতে জোর তৎপরতা শুরু হয়েছে।

জেলার সদর শহর বর্ধমানের বিভিন্ন এলাকা থেকে প্রতিদিনই করোনা আক্রান্তের হদিশ মিলছে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, পুজোর সময় মণ্ডপে মণ্ডপে ভালোই ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। তার ফলে সংক্রমণ বাড়ার একটা আশঙ্কা থেকেই যাচ্ছে। আবার পুজোর সময় করোনা পরীক্ষাও তুলনামূলকভাবে অনেক কম হয়েছে। তাই পরীক্ষার সংখ্যা বাড়লে তার সঙ্গে তাল মিলিয়ে আক্রান্তের সংখ্যাও অনেকটাই বাড়বে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। সেই সঙ্গে পোস্ট কোভিড বিভিন্ন উপসর্গ নিয়ে চিকিৎসকের দ্বারস্থ হচ্ছেন অনেকেই। তার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে শিশুদের জ্বর ও শ্বাসকষ্টের সংক্রমণ।

আরও পড়ুন: আসছিল অরুণাচল থেকে-যাচ্ছিল গুজরাত, ট্রাকে উদ্ধার মা ও সন্তান! তবে, মানুষ নয়...

গত একমাসে শ্বাসকষ্ট নিয়ে ভর্তি হওয়া ৯  শিশুর মৃত্যু হয়েছে বর্ধমান মেডিক্যালে। এখনও প্রচুর শিশু চিকিৎসাধীন রয়েছে। শিশুদের এখনও ভ্যাকসিনের আওতায় নিয়ে আসা সম্ভব হয়নি। করোনার তৃতীয় ঢেউ দেখা দিলে তাতে শিশুদের আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা সবচেয়ে বেশি। তাই তৃতীয় ঢেউ আটকাতে যাবতীয় সাবধানতা ব্যাপারে বাসিন্দাদের সচেতন করতে উদ্যোগী হয়েছে পুলিশ।

আরও পড়ুন: 'BJP-র পক্ষে এর চেয়ে লজ্জার আর কী হতে পারে?' ফের বিস্ফোরক তথাগত রায়! নিশানায় কে?

পুজোর দিনগুলিতে নাইট কারফিউ শিথিল ছিল। বর্ধমান শহরে রবিবার রাত থেকে সেই নাইট কারফিউ যাতে যথাযথভাবে কার্যকর হয় তা নিশ্চিত করতে উদ্যোগী হয়েছে পুলিশ সেই সঙ্গে মাস্ক পরা নিশ্চিত করতে সোমবার বর্ধমানের প্রাণকেন্দ্র কার্জন গেট সংলগ্ন জিটি রোডে পুলিশের পক্ষ থেকে বিশেষ অভিযান চালানো হয়। একদিকে যেমন মাইকে প্রচার শুরু হয়েছে ঠিক তেমনই মাস্ক পরেননি এমন বাসিন্দাদের চিহ্নিত করা হচ্ছে। তাদের মাস্ক পরিয়ে দেওয়া হচ্ছে। ঘরের বাইরে পা দিলেই তারা যাতে মাস্কে মুখ ঢাকেন তা নিশ্চিত করতে পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।

বাসিন্দাদের মধ্যে এমন অনেকেরই দেখা মিলছে, যারা সঙ্গে মাস্ক রাখলেও তা মুখে লাগাচ্ছেন না। পুলিশ ধরলে তখন পকেট থেকে বেরিয়ে আসছে মাস্ক।জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হচ্ছে, দ্বিতীয় ডোজ নেওয়ার পরও করোনায় আক্রান্ত হচ্ছেন এমন অনেক দৃষ্টান্ত মিলছে। তাই এখনও পরিষ্কার করে হাত ধোয়া, মাস্ক ব্যবহার ও জনবহুল এলাকায় শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখা জরুরি। এ ব্যাপারে বাসিন্দাদের পুনরায় সচেতন করতেই জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে এই বিশেষ অভিযান শুরু হয়েছে।

Published by:Suman Biswas
First published: