পুরুলিয়ায় উত্তেজনা, পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তি-ব্যারিকেড ভাঙার চেষ্টা লকেট ও বিজেপি কর্মীদের

File Photo

পুলিশি ব্যারিকেড ভেদ করে ঢুকতে না পেরে হোমের সামনেই অবস্থান বিক্ষোভে সামিল হন হুগলির বিজেপি সাংসদ লকেট, কাঞ্চনা মৈত্র, জ্যোর্তিময় মাহাতো সহ নেতা কর্মীরা ৷

  • Share this:

    #পুরুলিয়া: সরকারি হোমে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ ৷ প্রতিবাদ জানাতে হোমে যাওয়ার পথে পুলিশি বাধার মুখে বিজেপি সাংসদ লকেট চক্রবর্তী ৷ অভিযোগ, পুলিশকর্মীদের সঙ্গে প্রবল ধস্তাধস্তি, বাক বিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন বিজেপি সাংসদ ও নেতা কর্মীরা ৷ জোর করে হোমে ঢুকতে চাইলে ব্যাপক বিশৃঙ্খলা ছড়িয়ে পড়ে ৷ পুলিশি ব্যারিকেড ভেদ করে ঢুকতে না পেরে হোমের সামনেই অবস্থান বিক্ষোভে সামিল হন হুগলির বিজেপি সাংসদ লকেট, কাঞ্চনা মৈত্র, জ্যোর্তিময় মাহাতো সহ নেতা কর্মীরা ৷

    বহুদিন ধরে যৌন নির্যাতন সহ একাধিক অভিযোগের কারণে সংবাদ শিরোনামে পুরুলিয়ার আনন্দমঠ হোম ৷ এই সরকারি হোমে বেআইনি কার্যকলাপ নিয়ে পকসো আইনের দশ নম্বর ধারায় স্বতঃপ্রণোদিত মামলা রুজু করে তদন্তে নামে পুলিশ ৷ হোমে বেআইনি কার্যকলাপের প্রতিবাদে রবিবার একগুচ্ছ কর্মসূচি নিয়ে সাংসদ লকেটের নেতৃত্বে পুরুলিয়া যান বিজেপির মহিলা প্রতিনিধি দল ৷

    এদিন সকালেই বিজেপির কর্মসূচির কারণে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয় হোমের বাইরে ৷ বিজেপি নেত্রী সহ গোটা বিজেপি দলকে পুরুলিয়া আনন্দমঠ হোমের ৫০০ মিটারেরও আগে আটকে দেয় পুলিশ ৷ মুহূর্তের মধ্যে বিশৃঙ্খলা ছড়িয়ে পড়ে ৷ ব্যারিকেড ভেঙে ভেতরে ঢোকার চেষ্টা করলে পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তি বেঁধে যায় লকেট বাহিনীর ৷ পুলিশের সঙ্গে বচসায় জড়িয়ে পড়েন লকেট চট্টোপাধ্যায়, কাঞ্চনা মৈত্র সহ বিজেপি নেত্রীরা ৷ হুগলির সাংসদ বার বার প্রশ্ন তুলতে থাকেন, ‘হোমে ঢোকার জন্য কেন অনুমতি নিতে হবে? বাইরে থেকে লোকজন এসে নোংরামো করছে তখন আটকাতে পারছেন না আর এখন মহিলা প্রতিনিধি দল এসেছে আর তাদের বাধা দিচ্ছেন!’ তবে শেষ অবধি পুলিশি বাধার মুখে হার মানতে হয় তাদের ৷ হোমে ঢুকতে না পেরে এই ঘটনার প্রতিবাদে সেখানেই অবস্থান বিক্ষোভে বসে পড়েন গেরুয়া বাহিনী ৷

    Published by:Elina Datta
    First published: