জল খাওয়ার নাম করে স্কুলে ঢুকে ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা পুলিশকর্মীর, অভিযুক্তকে মারধর

জল খাওয়ার নাম করে স্কুলে ঢুকে ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা পুলিশকর্মীর, অভিযুক্তকে মারধর
Representative Image

ছাত্রীর চেঁচামেচিতে অন্য পড়ুয়া ও গ্রামবাসীরা চলে আসেন। জনরোষ থেকে বাঁচতে স্কুলের অফিসঘরে আলমারির পিছনে লুকোনর চেষ্টা করেন জাহাঙ্গির।

  • Share this:

#হাড়োয়া: পুলিশকর্মীর বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগে হাড়োয়ায় ধুন্ধুমার। অভিযুক্ত হাড়োয়া থানার ASI জাহাঙ্গির আলমকে টেনে হিঁচড়ে মাটিতে ফেলে চলল গণধোলাই। ASI-কে উদ্ধারে গিয়ে পুলিশ পালটা গ্রামবাসীদের মারধর করে বলে অভিযোগ। ভাঙচুর করা হয় ঘরবাড়িও। ASI-র বিরুদ্ধে অভিযোগপত্রে কারও সই না থাকায় চালু হল না মামলা।

গায়ে পুলিশের উর্দি। তাঁকেই মাটিতে ফেলে টেনে হিঁচড়ে নিয়ে যাচ্ছে জনরোষ। চলছে বেধড়ক মারধর। জ্বালিয়ে দেওয়া হল পুলিশের বাইক। ধর্ষণের অভিযোগে বিক্ষোেভর বেনজির ছবি। হাড়োয়ায় ধুন্ধুমার। হাড়োয়ার মোহনপুরে সরকারি স্কুলের মধ্যেই নাবালিকাকে ধর্ষণের অভিযোগ। অভিযুক্ত হাড়োয়া থানার ASI জাহাঙ্গির আলম।

শুক্রবার স্কুলে ছাত্র-যুব উৎসবের শেষ দিন ছিল। উৎসবের জন্য ডিউটি ছিল ASI জাহাঙ্গির আলমের। অভিযোগ, জল খাওয়ার নাম করে স্কুলের দোতলায় ক্লাস ইলেভেনর ছাত্রীকে ডাকেন ওই ASI । ছাত্রী গেলে তাকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন তিনি।

ছাত্রীর চেঁচামেচিতে অন্য পড়ুয়া ও গ্রামবাসীরা চলে আসেন। জনরোষ থেকে বাঁচতে স্কুলের অফিসঘরে আলমারির পিছনে লুকোনর চেষ্টা করেন জাহাঙ্গির। টেনে হিঁচড়ে তাঁকে বের করে চলে মারধর। অভিযুক্ত ASI-কে উদ্ধারে যায় হাড়োয়া থানার বিশাল পুলিশবাহিনী। অভিযোগ, তখনই গ্রামবাসীদের বেধড়ক মারধর করে পুলিশ। ঘরবাড়িও ভাঙচুর করা হয়।

প্রতিবাদে শনিবার সকালে দফায় দফায় রাস্তা অবরোধ হয়। ASI-কে মারধরের অভিযোগে কয়েকজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পরে ব্যক্তিগত বন্ডে তাঁদের জামিন দেওয়া হয়। গ্রামবাসীরা ASI-এর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করলেও অভিযোগপত্রে কারও সই না থাকায় মামলা শুরু করা যায়নি। বসিরহাট হাসপাতালে ওই ASI ভরতি । এদিকে নির্যাতিতা ও তার পরিবারের কোনও খোঁজ নেই।

First published: January 18, 2020, 6:10 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर