Home /News /south-bengal /
East Burdwan || এ যেন স্বয়ং 'দাবাং'-এর সলমন খান! বর্ধমানে পুলিশের ভূমিকায় মুগ্ধ আমজনতা

East Burdwan || এ যেন স্বয়ং 'দাবাং'-এর সলমন খান! বর্ধমানে পুলিশের ভূমিকায় মুগ্ধ আমজনতা

East Burdwan || শহরের বিভিন্ন জায়গায় টোটো চালকদের সতর্ক করে তাদের উদ্দেশ্যে এই বার্তা দিল বর্ধমান থানার পুলিশ। পাশাপাশি টোটো চালকদের কোনও অভিযোগ রয়েছে কিনা তা খতিয়ে দেখে তা লিপিবদ্ধ করা হল  পুলিশের পক্ষ থেকে।

  • Share this:

    #পূর্ব বর্ধমান: "কোনও পয়সা দেবেন না কাউকে, কেউ কালেকশন করলে জানাবেন।" এভাবেই টোটো চালকদের কাছে গিয়ে সর্তক করল পুলিশ। এ যেন দাবাংয়ের সলমন খান! শনিবার তোলাবাজি নিয়ে হুঁশিয়ারি দিয়েছিলেন পূর্ব বর্ধমানের পুলিশ সুপার কামনাশিস সেন। এরপর তা কার্যকর করতে রবিবারই পথে নামলো বর্ধমান থানার পুলিশ। স্টেশন-সহ শহরের বিভিন্ন জায়গায় টোটো চালকদের সতর্ক করে তাদের উদ্দেশ্যে এই বার্তা দিল বর্ধমান থানার পুলিশ। পাশাপাশি টোটো চালকদের কোনও অভিযোগ রয়েছে কিনা তা খতিয়ে দেখে তা লিপিবদ্ধ করা হল  পুলিশের পক্ষ থেকে।

    আরও পড়ুন: বাইক চালানোর সময় মাথায় Helmet কই? উত্তরে 'বিস্ফোরক' বিজেপির রাজ্য সভাপতি! যা বললেন সুকান্ত মজুমদার...

    শনিবার বর্ধমান শহরের যানজট মোকাবিলায়  টোটো চালকদের নিয়ে সংস্কৃতি লোকমঞ্চে পৌরসভার পক্ষ থেকে একটি সভা ডাকা হয়। সেখানেই বক্তব্য রাখতে গেয়ে পূর্ব বর্ধমানের জেলা পুলিশ সুপার কামনাশিস সেনকে একেবারে দাবাং রূপে দেখা যায়। ভরা সভায় তিনি জানান, "কোনও তোলাবাজি চলবে না৷ কে কত বড় গুন্ডা আছে দেখে নিতে চাই।" তিনি আরও বলেন, "বর্ধমান স্টেশন ও তেলিপুকুর এলাকায় তোলাবাজি হচ্ছে বলে অভিযোগ আসছে। কোথাও কোনও তোলা দেবেন না। কেউ তোলাবাজি করলে সরাসরি অফিসে গিয়ে তাকে জানানোর কথা বলেন।" জেলা পুলিশ সুপারের এই বক্তব্যের পর সংস্কৃতি লোকমঞ্চ জুড়ে হাততালির ঝড় ওঠে।

    প্রায় একই সুর দেখা যায় বর্ধমান দক্ষিণের বিধায়ক খোকন দাসের গলাতেও। এরপরই আজ শহরজুড়ে তোলাবাজির বিরুদ্ধে পথে নামে পুলিশ। যাকে ঘিরে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক জল্পনা। বিজেপি বর্ধমান সাংগঠনিক জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক মৃত্যুঞ্জয় চন্দ্র জানান, "এ তো ভূতের মুখে রামনাম! সাধারণ মানুষের নিরাপত্তা দিতে পুলিশ ব্যর্থ।"

    পূর্ব বর্ধমান জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের মুখপাত্র প্রসেনজিৎ দাস জানান, "বিজেপি জানে না যে জনগণ তৃণমূলের সঙ্গে আছে বলে তৃণমূল আছে। তৃণমূলের বিধায়কই তো তোলা নিয়ে সরব হয়েছেন। তাই বিজেপির উচিত তাঁকে সমর্থন করা। পুলিশের কাজ আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি ঠিক রাখা। সেখানে যদি পুলিশের কাছে অভিযোগ আসে পুলিশ তো ব্যবস্থা নেবেই।"

    শরদিন্দু ঘোষ 
    Published by:Rachana Majumder
    First published:

    Tags: Burdwan, Burdwan news, Police

    পরবর্তী খবর