মন্দির থেকে উধাও শিবলিঙ্গ মিলল খড়ের গাদায়! তারপর যা ঘটল...

মন্দির থেকে উধাও শিবলিঙ্গ মিলল খড়ের গাদায়! তারপর যা ঘটল...
Representative Image

দোলের দিন সাতসকালে মন্দির থেকে নিখোঁজ হয়ে যাওয়া বাবা মহাদেব

  • Share this:

#পূর্ব বর্ধমান: নিখোঁজ বাবা ভোলানাথকে খড়ের গাদা থেকে উদ্ধার করে নিয়ে এল পুলিশ। দোল পূর্ণিমার সকালে মন্দির থেকে উধাও হয়ে যায় শিবলিঙ্গ। সে খবর চাউর হতেই চাঞ্চল্য ছড়ায় এলাকায়। অভিযোগ জানানো হয় পুলিশের কাছেও। বিশাল বাহিনী নিয়ে পুলিশ খানা তল্লাশি শুরু করতেই পাওয়া গেল শিবলিঙ্গ। কোথায় ঘটল এমন ঘটনা!

দোলের দিন সাতসকালে মন্দির থেকে নিখোঁজ হয়ে যাওয়া বাবা মহাদেবকে উদ্ধার করলো  বিশাল পুলিশ বাহিনী  ও র‍্যাফ।  পূর্ব বর্ধমানের মেমারি থানার সাতগেছিয়ার রঘুনাথবাটি গ্রামে এই ঘটনা ঘটেছে। সাত সকালেই সুপ্রাচীন মন্দির থেকে নিখোঁজ হয়ে গিয়েছিলেন বাবা মহাদেব। পুজো দিতে গিয়ে বাবার দেখা না পেয়ে আশপাশের বাসিন্দাদের তা জানান এক ভক্ত। এরপরই  এলাকায় ব্যাপক হইচই শুরু হয়ে যায়। এদিক সেদিক খুঁজেও শিবলিঙ্গের দেখা না পেয়ে পুরোহিত অরুন বন্দ্যোপাধ্যায়কে সঙ্গে নিয়ে মেমারি থানায় যান মন্দিরের মালিক হারাধন ঘোষ। খুলে বলেন সব কথা। মন্দির থেকে মহাদেবের অন্তর্ধানের খবর শুনে নড়েচড়ে বসেন পুলিশ অফিসাররা।

মহাদেবের হদিশ পেতে কোমর বেঁধে নামে পুলিশ। এসডিপিও আমিনুল ইসলাম খান , সিআই শামল চক্রবর্তী, মেমারি থানার ওসি সুদীপ্ত মুখোপাধ্যায়  বিশাল পুলিশ বাহিনী ও  র‍্যাফ নিয়ে এলাকায় যান। রঘুনাথবাটি গ্রাম ঘিরে ফেলে বাবার হদিশ পেতে শুরু হয় চিরুনি তল্লাশি। তাতেই সাফল্য মেলে। মন্দির থেকে প্রায় বেশ খানিকটা দূরে একটি খড়ের গাদার ভিতরে  চাপা পড়ে ছিল শিব লিঙ্গ। তল্লাশির সময় খড় সরাতেই বাবার হদিশ পান পুলিশ কর্তারা ।

ওসি সুদীপ্ত মুখোপাধ্যায়  সেই খড়ের গাদা থেকে শিবলিঙ্গ নিজের কাঁধে  তুলে নেন। এরপর অন্য পুলিশ কর্তারা তাঁর সঙ্গে  পায়ে হেঁটে সেই শিবলিঙ্গ ঘোষ বাড়ির মন্দিরে পৌঁছে দেন। বেলা এগারটা নাগাদ বাবার হদিশ মেলার খবরে উচ্ছ্বাসে মেতে ওঠেন গ্রামবাসীরা।শুরু হয় একে অপরকে মিষ্টি মুখ। আবির খেলায় মেতে ওঠেন রঘুনাথবাটি গ্রামের পুরুষ মহিলারা।

বাবা ফেরার স্বস্তিতে হারাধন ঘোষ। তিনি বলেন,বংশের সবাইকে নিয়ে পুরনো মন্দির সংস্কার করা হবে। সেই নতুন মন্দিরে ঘটা করে বাবা ভোলানাথকে প্রতিষ্ঠা করা হবে। পাঁচশো বছরের সেই মন্দির প্রতিষ্ঠায় পুলিশ কর্তাদের আসতেই হবে বলে কথা আদায় করে নিলেন হারাধনবাবু। এলাকাবাসীর আবেগের শিব লিঙ্গ খুঁজে দিতে পেরে তৃপ্ত পুলিশ কর্তারাও। উপস্থিত এক পুলিশ অফিসার জানালেন, পাঁচ শত বছরের পুরনো গৌরিপট্ট সহ শিবলিঙ্গটির  ঐতিহাসিক মূল্য অপরিসীম। তার আর্থিক মূল্যও অনেক। কেউ সেই অর্থের লোভেই চুরি করেছিল। খবর পাওয়া মাত্র গ্রাম ঘিরে ফেলে তল্লাশি শুরু হওয়ায় তা বেহাত হয়ে যায়নি।

First published: March 9, 2020, 8:26 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर