লক ডাউন অমান্য করে রাস্তায় বহু মানুষ ! ফাঁকা অ্যাম্বুল্যান্সও আটক করল পুলিশ 

লক ডাউন অমান্য করে রাস্তায় বহু মানুষ ! ফাঁকা অ্যাম্বুল্যান্সও আটক করল পুলিশ 

বিনা কারণে লক ডাউন অমান্য করে রাস্তায় বের হওয়ার অভিযোগে বহু মোটর সাইকেল, ই রিকশ, চারচাকার গাড়ির সঙ্গেই আটক করা হয় অ্যাম্বুল্যান্সকেও।

  • Share this:

#বর্ধমান: অ্যাম্বুল্যান্সে চেপে হাওয়া খেতে বেরনো ! অন্যান্য বেশ কিছু গাড়ির সঙ্গে অ্যাম্বুল্যান্সও আটক করল বর্ধমানের পুলিশ। বিনা কারণে লক ডাউন অমান্য করে রাস্তায় বের হওয়ার অভিযোগে বহু মোটর সাইকেল, ই রিকশ, চারচাকার গাড়ির সঙ্গেই আটক করা হয় অ্যাম্বুল্যান্সকেও। পুলিশ জানিয়েছে, বাসিন্দাদের স্বার্থেই এই লকডাউন। কিছু অবিবেচক বাসিন্দা অতি উৎসাহে রাস্তায় বেরিয়ে পড়েছেন। রাস্তায় আটকে বুঝিয়ে তাদের বাড়ি ফেরানো হচ্ছে।

অনেকেই পকেটে ডাক্তারের দু’তিন বছরের পুরনো প্রেসক্রিপশন নিয়ে রাস্তায় বেরচ্ছেন। পুলিশ ধরলেই ওষুধ কিনতে যাচ্ছি বলছেন। তাতেও রেহাই মিলছে না। পুলিশ সঙ্গে করে নিয়ে যাচ্ছে ওষুধের দোকানে। কেউ কেউ ব্যাংক কর্মী, নার্সিংহোম কর্মী পরিচয় দিচ্ছেন। পরিচয়পত্র না দেখাতে পারলে তাদের ঘুরিয়ে দিচ্ছে পুলিশ। তবে অ্যাম্বুলান্সে ছাড় রয়েছে। হুটার বাজিয়ে ছুটছে অ্যাম্বুল্যান্স। বর্ধমানের কার্জনগেটে হুটার বাজিয়ে ছোটা একটি অ্যাম্বুল্যান্সকে আটক করে পুলিশ। সেই অ্যাম্বুল্যান্সে রোগী ছিল না। দীর্ঘক্ষণ আটকে রাখার পর তাকে ছাড়া হয়। রেল স্টেশনের দিক থেকে কিছু যুবক মুখে মাস্ক লাগিয়ে টোটোয় চেপে শহরে বেরিয়েছিলেন। কার্জন গেটে সেই টোটো আটকে আরোহীদের নামিয়ে বাড়ি ফিরতে বাধ্য করে পুলিশ।

শুধু কার্জন গেট নয়, বর্ধমানের বীরহাটা, বড় নীলপু মোড়, রেল স্টেশন, পুলিশ লাইন মোড়, উত্তর ফটক, নবাবহাট, উল্লাস সর্বত্র পুলিশ রাস্তায় নজরদারি চালায়। পুলিশি তৎপরতার জেরে ঘরের বাইরে পা রাখা অতি উৎসাহীরা ঘরে ঢুকতে বাধ্য হন। বাজার করতে বের হওয়া অনেককেও প্রশ্নের সামনে পড়তে হয়। পুলিশ জানিয়েছে, নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া রাস্তায় বের হলে গ্রেফতার পর্যন্ত করা হতে পারে। তবে বেশিরভাগ পুরুষ মহিলাই সরকারি নির্দেশ মেনে  ঘরে থেকে সচেতনতার পরিচয় দিয়েছে। সামান্য যে কয়েক জন বেরিয়েছিলেন তাদের ঘরে ঢোকাতেই তৎপরতা দেখাতে হয়েছে পুলিশকে। বিভিন্ন ক্লাবেও এদিন বারে বারে অভিযান চালায় পুলিশ। ক্লাব ঘরের ভেতরে সদস্যদের জমায়েত রুখতেই এই অভিযান বলে জানিয়েছে পুলিশ।

Saradindu Ghosh

First published: March 24, 2020, 11:49 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर