corona virus btn
corona virus btn
Loading

লকডাউনে জেলা পুলিশ সুপারের নেতৃত্বে ধরপাকড় বর্ধমানে

লকডাউনে জেলা পুলিশ সুপারের নেতৃত্বে ধরপাকড় বর্ধমানে

জেলা পুলিশ জানিয়েছে, করোনার সংক্রমণ সম্পর্কে বাসিন্দাদের সচেতন করার পাশাপাশি পুরোপুরি লকডাউন নিশ্চিত করতে জেলা জুড়েই তৎপর ছিল পুলিশ।

  • Share this:

#বর্ধমান: শুক্রবার লকডাউনে বর্ধমান শহরে ব্যাপক ধরপাকড় চালালো পুলিশ। বর্ধমান শহরের প্রাণকেন্দ্র কার্জন গেট সহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ রাস্তার মোড়ে পুলিশি তৎপরতা ছিল চোখে পড়ার মতো। লকডাউন ভেঙে বাইরে বের হওয়া বাসিন্দাদের আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। জরুরি প্রয়োজন ছাড়া লকডাউন অমান্য করে বাইরে বের হওয়ার অভিযোগে বেশ কয়েকজনকে  আটক করে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এদিন জেলা পুলিশ সুপার ভাস্কর মুখোপাধ্যায় অন্যান্য পদস্থ আধিকারিকদের সঙ্গে নিয়ে এই অভিযানে নেতৃত্ব দেন।

জেলা পুলিশ জানিয়েছে, করোনার সংক্রমণ সম্পর্কে বাসিন্দাদের সচেতন করার পাশাপাশি পুরোপুরি লকডাউন নিশ্চিত করতে জেলা জুড়েই তৎপর ছিল পুলিশ। বর্ধমান শহরের সব এলাকাতেই পুলিশি টহল চলছে। কোথাও কোনও দোকান পাট খুলতে দেওয়া হয়নি। তবে চিকিৎসা সহ জরুরি পরিষেবা এর আওতার বাইরে ছিল।

আরও পড়ুন ভাঙছে নদীর পাড়, ভাঙছে একের পর এক ঘরবাড়ি! আতঙ্কে গ্রাম ছাড়ছেন বাসিন্দারা

সকাল থেকেই দফায় দফায় বৃষ্টি হয়েছে বর্ধমান শহরে। তার ওপর লকডাউন। দুইয়ে মিলে বেশিরভাগ বাসিন্দাই নিজেদের গৃহবন্দি রেখেছিলেন। কিন্তু তার মধ্যেও বেশকিছু বাসিন্দা নানান অজুহাতে পথে বেরিয়েছেন। বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া রাস্তায় নামা বাসিন্দাদের আটকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে পুলিশ। অনেকেই চিকিৎসার প্রয়োজন বা ওষুধ কেনার প্রয়োজনে বাইরে বেরিয়েছেন বলে জানিয়েছেন। আবার অনেকেই কোনওরকম সন্তোষজনক কারণ দেখাতে পারেনি। তাদের পুলিশের গাড়িতে তুলে থানায় নিয়ে গিয়ে আটক করে রাখা হয়।

এদিন লকডাউন নিশ্চিত করতে সকাল থেকেই বর্ধমানের রাস্তায় সক্রিয় ছিল পুলিশ। বর্ধমানের কার্জন গেটের পাশাপাশি বীরহাটা,পার্কাস রোড, স্টেশন মোড়,  উল্লাস মোড়ে নজরদারি চালিয়েছে পুলিশ। শহরের অন্যান্য রাস্তা গুলিতেও পুলিশের গাড়ি দিনভর টহল দিয়েছে। লকডাউনের জেরে শহরের সব দোকান বাজার বন্ধ ছিল। রাস্তায় যানবাহন চলাচল করেনি। অভিযানে অংশ নেওয়া জেলা পুলিশের এক পদস্থ কর্তা জানান,বর্ধমান শহর জুড়ে ব্যাপক ভাবে করোনার সংক্রমণ দেখা যাচ্ছে। এই মুহূর্তে বাইরে বের হওয়া  মনে করোনায় আক্রান্ত হবার ঝুঁকিকে সঙ্গী করে বাড়ি ফেরা। কিন্তু তারপরও দেখা যাচ্ছে কিছু ব্যক্তি কোনওরকম কারন ছাড়াই রাস্তায় ঘুরে বেড়িয়েছেন। মূলত তাদের আটক করে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

Published by: Pooja Basu
First published: August 21, 2020, 5:55 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर